Thursday, 21 June 2018

ওয়েব ডেস্ক ২১ই জুন ২০১৮ : প্রায় ৪০  কোটি টাকার হেরোইন এবং পার্টিতে উন্মাদনা জাগানোর  ওষুধ, মণিপুরের চন্দল ​​জেলার স্বায়ত্তশাসিত জেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের সরকারি বাসভবন থেকে   আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছে  পুলিশ।

গতকাল রাতে পুলিশ হানা দেয় বিজেপি নেতা লুংখসেই জৌ বাসভবনে সেখানে ৪কিলো হিরোইন , ২,৮০০০০ পার্টিতে উন্মাদনা জাগানোর  ট্যাবলেটস উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন সুপারিনটেনডেন্ট অফ পুলিশ ,নারকোটিকস এন্ড অ্যাফেয়ার্স অফ বর্ডার্সের ডাবলু .বি বসু সিংহ ।
একজন পুলিশ কর্তার কোথায় আন্তর্জাতিক বাজারে এর দাম ৪০ কোটি টাকা এবং তার সাথে ১৩ লক্ষ টাকা নগদ টাকাও উদ্ধার করা হয়েছে ।
যেই আট জনকে আটক করা হয়েছে বিজেপি নেতা  লুংখসেই জৌ এদের মধ্যে অন্যতম ।
প্রসঙ্গত বিজেপি নেতা শ্রীযুক্ত লুংখসেই জৌ এ.ডি.সি চান্দেল মোড়ে শহর থেকে নির্বাচিত হয়েছেন যেটি মায়ানমার সীমানার খুব কাছেই ।
ওয়েব ডেস্ক ২১ই জুন ২০১৮ :  নিম্ন মধ্যবিত্ত মানুষেদের জন্য মাথার ওপরে ছাদ দেওয়ার স্বপ্ন মুখ্যমন্ত্রীর অনেক দিনেরই ছিল ,সেটাই বুধবার রাজ্য মন্ত্রিসভার বৈঠকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্বপ্নের ‘নিজশ্রী’ গৃহীত হল ।অনেকের মতে লোকসভা ভোটার আগে এটার তাৎপর্য্য আছে বলে মনে হলেও , যারা মুখ্যমন্ত্রীকে কাছ থেকে চেনেন তাদের বক্তব্য অনুসারে ,এটা তার স্বপ্ন ছিল নিম্ন মধ্যবিত্ত মানুষকে বাসস্থান দেওয়া ।
‘নিজশ্রী’ প্রকল্পে সরকারি জমিতে দু’ধরনের ফ্ল্যাট তৈরি করা হবে। এক শয্যাকক্ষ বিশিষ্ট ফ্ল্যাটের আয়তন (কার্পেট এরিয়ার নিরিখে) হবে ৩৭৮ বর্গফুট এবং দুই শয্যাকক্ষ বিশিষ্ট ফ্ল্যাটগুলি হবে ৫৫৯ বর্গফুট আয়তনের। এক শয্যাকক্ষ বিশিষ্ট ফ্ল্যাটের দাম হবে ৭ লক্ষ ২৮ হাজার টাকা এবং দু’শয্যাকক্ষের ফ্ল্যাটের দাম হবে ৯ লক্ষ ২৬ হাজার টাকা। কলকাতা পুরসভা, পুর ও নগরোন্নয়ন দফতর, জেলাভিত্তিক বিভিন্ন পুরসভা, পঞ্চায়েত বা উন্নয়ন পর্ষদগুলির তত্ত্বাবধানে গড়ে উঠবে পাঁচতলার এক-একটি আবাসন। তবে আবাসনগুলিতে লিফটের সুবিধা থাকবে না। যাঁদের মাসিক আয় ১৫ থেকে ৩০ হাজার টাকার মধ্যে, তাঁদের জন্যই এই প্রকল্পের কথা ভাবা হয়েছে। পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম , বলেন যাদের ১৫০০০ টাকা থেকে ৩০০০০, হাজারের মধ্যে মূলত তাদের জন্যই এই ফ্ল্যাট গুলো তৈরী কড়া হবে ।
প্রসঙ্গত গত বছর বস্তিবাসীদের জন্য ৫০ হাজার টাকার বিনিময় ২৫৮ বর্গফুটের ফ্ল্যাট দেওয়ার কথা বলা হয়েছিল,সেই ব্যাপারেই নবান্ন যে আরো একধাপ এগোলো ,সেটা না বললেও চলে ।



তথ্য কৃতজ্ঞতা স্বীকার "আনন্দ বাজার পত্রিকা "

ওয়েব ডেস্ক ২১ই জুন ২০১৮ :  আসন্ন লোকসভা ভোটার আগে নিজের দলের নেতা মন্ত্রী থেকে শুরু করে দলের কর্মীদের কড়া বার্তা দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷ বিরোধী দলনেতার নাম নাকরে তিনি বলেন , কেউ কেউ বলছেন এনকাউন্টার করবেন , তাদের ক্ষমতা থাকলে যেন আসে ৷ সে ভাবেই দিলীপ ঘোষকে যেমন একহাত নিয়েছেন , নিজের দলের কর্মীদেরও ছাড়েননি ৷ জঙ্গল মহলে যেসব  জায়গায় তৃণমূলের ফল খারাপ হয়েছে ,তার রিপোর্ট দশ দিনের মধ্যে জমাদিতে বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী  ৷তিনি হুঁশিয়ারির সুরে বলেন "যাঁরা নিজেদের দলের থেকে বড় ভাবছেন তাঁদের দলে থাকার দরকার নেই।

গায়ে হাওয়া লাগিয়ে দলে থাকার দরকার নেই। যাঁরা ঝগড়া করছেন তাঁদের বের করে দিন। প্রয়োজনে নতুন নেতা তৈরি করুন। " ছাত্র নেতাদের উদ্দেশ্যে তিনি কঠোর বার্তা দিয়ে বলেন , টাকা তোলাটাই তাদের কাজ নয় , ছাত্র ছাত্রীদের সাহায্য করাটাই তাদের কাজ ।মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মনে করে আর আট মাসের মধ্যে লোকসভা নির্বাচন হবে , সেই মতো ভোটার তালিকার কাজও শুরু হয়ে গেছে সেদিকে দলীয় কর্মীদের নজর রাখার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। পুলিস প্রশাসনের কাজে নেতাদের হস্তক্ষেপ না করার কথাও বলেছেন মমতা। তাঁর আরও নির্দেশ, পুরনো কর্মীদের ভুলে গেলে চলবে না। পেট্রো পণ্যের দাম প্রায় প্রতিদিনই বেড়ে চলেছে ,এ নিয়ে কেন কোন কর্মসূচি নেওয়া হয়নি ,সে ব্যাপারেও তিনি প্রশ্ন তুলেছেন , আর জেলা পরিষদে সভাপতি তিনি নিজেই যে ঠিক করবেন সেটা সবার সামনে বলে দেন ।মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মনে করে আর আট মাসের মধ্যে লোকসভা নির্বাচন হবে , সেই মতো ভোটার তালিকার কাজও শুরু হয়ে গেছে ।


তথ্য কৃতজ্ঞতা স্বীকার "এবেলা"


ওয়েব ডেস্ক ২১ই জুন ২০১৮ :  বিজেপি শাসিত ছত্তীসগঢ়ে একটি ধর্ষণ কাণ্ডে সারা সমাজকে লজ্জার মুখে ফেলে দিল ।এমনি এক ধর্ষণ কান্ড যেখানে এবার থেকে বাড়ির মহিলারা নিজেদের কন্যা সন্তানকে কোনো আত্মীয়র কাছে  রেখে যেতেও সাহস পাবেননা ।কোন বাইরের অজানা–অচেনা লোক  ছত্তিশগড়ের কোন্ডাগাঁওয়ে চার বছরের নাতনিকে ধর্ষণ করে খুন করল, আর কেউ নয়, শিশুটির দাদু। ঘটনাটি গত ১১ই জুনের , সেদিন মাঠে খেলতে খেলতে আচমকা নিখোঁজ হয়ে যায় ছোট্ট শিশুটি।

তারপরই ৪ বছরের শিশুর বাবা পুলিশে অভিযোগ করেন। ঘটনার তদন্তে নেমে পুলিশ শিশুটির দেহ উদ্ধার করলেও, কীভাবে তার মৃত্যু হল সে সম্পর্কিত কোনও সূত্রই পাচ্ছিল না। পরে পুলিশ কুকুর এনে অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হয়  ।প্রথমে পুলিশ কুকুর রক্ত মাখা একটি লুঙ্গি উদ্ধার করে তারপর সটান সেই ষাট বছরের পৌঢ়র কাছে চলে যায় ।অভিযুক্ত দাদু জেরার মুখে স্বীকার করেন তার অপকর্মের কথা ।কোন্ডাগাঁওয়ের এসপি অভিষেক পল্লব জানিয়েছেন,খেলতে খেলতে হটাৎ শিশুটি হারিয়ে যায় , অভিযুক্ত ব্যক্তি অপকর্ম করার পর প্রথমে মাঠের  মধ্যেই মৃতদেহটি লুকিয়ে রাখেন ,তিনি এটাই বোঝাতে চেয়ে ছিলেন শিশুটি নিখোঁজ , তার পর কি মনে করে মৃত দেহটি বাড়ির সামনেই কাদাজলে ফেলে রেখে পালান  ।
অভিযুক্ত ব্যক্তিকে ভারতীয় দণ্ড দণ্ডবিধির ৩০২ ধারায় গ্রেফতার করা হয়েছে। কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে , বিজেপি শাসিত রাজ্যেই ধর্ষণের মাত্রা এভাবে বাড়ছে কেন ? তও আবার শিশুদের বেশি  ।

Wednesday, 20 June 2018

ওয়েব ডেস্ক ২০ই জুন ২০১৮ :  এক দিকে যখন বিজেপি সরকার চীন সরকারের সাথে দ্বিপক্ষীয় বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছে এই কয়েক মাসে , উল্টো দিকে ভারতীয় জনতা পার্টির তাদের কর্মীদের প্রশিক্ষণের বইয়ে চীনকে বিপদজনক  হিসেবে বর্ণনা করা হল । দলীয় পণ্ডিত দিনা দয়াল দেবেন উপাধ্যায় প্রশিক্ষণ  মহাবিজ্ঞান (মেগা প্রশিক্ষণ কর্মসূচী), ২০১৮  এর অধীনে সারা দেশে বিজেপি কর্মীদের প্রশিক্ষণের উপাদান তৈরি করা হয়েছে।



১৩ই জুন ,২০১৮ অমিত শাহের প্রকাশিত পুস্তিকাগুলোই বেরিয়েছে , পাকিস্তান এবং চীন দুটি পরমাণু শক্তিধর দেশ ,ভারতের উন্নতি ঠেকানোর উঠেপড়ে লেগেছে ।তাদের মহিলা প্রশিক্ষণ বইয়ে এই একই কথা একটু ঘুরিয়ে লেখা হয়েছে , যে ভারতের সামনে চীনই এখন চ্যালেঞ্জ ।
পুস্তিকাগুলোয় আরও লেখা হয়েছে বিজেপি কর্মীদের উদ্দ্যেশে,প্রতিবেশী রাষ্ট্রগুলোর মধ্যে পাকিস্তান আমাদের ঐক্যতা আর অর্থনীতিকে সমানে ক্ষতি করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে ,আর চীন সামরিক দিক থেকে আমাদের চ্যালেঞ্জ করছে ।
 সীমান্ত বিবাদ নিয়ে নয়াদিল্লি আর বেইজিং যখন নতুন সমীকরণে ব্যস্ত তখন বিজেপির কর্মীদের উদ্দ্যেশে বইয়ে লেখা রয়েছে চীন সীমান্ত বিতর্ক কিছুতেই মেটাতে চায়না ।
কেন চীনের সম্বন্ধ্যে এরকম কথা বইয়ে লেখা হল এনিয়ে কোনো মন্তব্য এখনও বিজেপির তরফ থেকে পাওয়া যায়নি ।
ওয়েব ডেস্ক ২০ই জুন ২০১৮ :  প্রধান অর্থনৈতিক উপদেষ্টার পদ থেকে সরে দাঁড়ালেন অরবিন্দ সুব্রামানিয়াম । অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি তার ফেস বুকে এই কথাই জানিয়েছেন । তিনি ফেস বুকে লিখেছেন ,কয়েক দিন আগে অরবিন্দ সুব্রামানিয়াম অরুন জেটলির সাথে ভিডিও কনফারেন্সে কথা  বলে জানান ,যে তিনি আমেরিকাতে ফায়ার যেতে চান । কারণ হিসেবে অরবিন্দ সুব্রামানিয়াম জানিয়েছেন তার পরিবারের প্রতি দায়বদ্ধতার  জন্যই তিনি সরে দাঁড়াতে চান । তার এই সিদ্ধান্ত একান্ত নিজেস্ব ,তাই অরুন জেটলির তরফ থেকে কোনো দ্বিমত পোষণ করা সম্ভব হয়নি ,অরিন্দ সুব্রামানিয়ামের কথায় রাজি না হওয়া ছাড়া ।




নর্থ ব্লকের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কিছু আধিকারিকদের মতে, অরবিন্দ সুব্রামানিয়াম বাউন্ডুলে ধরণের  লোক ছিলেন ,উনি কূটনীতির ধার ধারতেননা , তার যেটা মনে হতো উনি সেটাই করতেন । কিন্তু সংবাদ মাধ্যমের সামনে অরুন জেটলি আর অরবিন্দ সুব্রামানিয়াম যা ব্যাখ্যা দিতেন সেটা রাজনৈতিক ভাবে দুজনেই ঠিক বলতেন । অরবিন্দ সুব্রামিয়ামকে কখনই তার কাজের প্রতি দায়বদ্ধতা আছে বলে মনে হয়নি ,নর্থ ব্লকের এক আধিকারিকের কথায় ।  এরই মধ্যে অরুন জেটলির সাথে তার একটা ছানউতোর চলছিলই যেটা কোনদিন প্রকাশ্যে আসেনি ।  
য়েব ডেস্ক ২০ই জুন ২০১৮ :  একটি অনন্য উদ্যোগে, পশ্চিমবঙ্গ সরকার রাজ্য জুড়ে  তৃতীয় লিঙ্গ  লেখিকাদের জন্য একটি সাহিত্যিক আয়োজনের কর্মসূচি নিয়েছে ।সাহিত্য একাডেমি দ্বারা আয়োজিত এই কর্মসূচি জুলাই মাসের শেষ সপ্তাহে হওয়ার কথা ।সাহিত্য সংস্থার এক সদস্যা শ্রীমতি মানবী বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন  "আমার জ্ঞানত  , এই প্রথম এই ধরনের সাহিত্যিক মিলন, বিশেষত তৃতীয় লিঙ্গ লেখিকাদের  দ্বারা অংশগ্রহণ, যাদের শিল্প  কমই আলোতে আসে, "।
উলেখ্য মানবী বন্দ্যোপাধ্যায়ই প্রথম তৃতীয় লিঙ্গ ধারী মানুষ যিনি কলেজ অদক্ষ  হয়েছিলেন ।
জীবনের বিভিন্ন পেশায় জড়িত ,এমনই তৃতীয় লিঙ্গ ধারী পাঁচজন মানুষ ইতিমধ্যেই অনুষ্টানে অংশ গ্রহণের সম্মতি জানিয়েছেন  ।এই অনুষ্ঠানটি ,সমাজের তৃতীয় লিঙ্গ বিশিষ্ট মানুষের প্রতি মানুষের নোংরা ধ্যান ধারণার মুছে ফেলার লক্ষ্যে আয়োজন করা হবে বলে জানিয়েছেন  মানবী বন্দ্যোপাধ্যায়  ।
সাহিত্য একাডেমির   অফিসার ইনচার্জ মিহির সাহু বলেন, ইভেন্টের তারিখ এখনও পর্যন্ত চূড়ান্ত হয়নি। "অনন্য উদ্যোগটি বাংলার ট্রান্সজেন্ডার লেখকদের প্রচারের লক্ষ্যে পরিচালিত করা হচ্ছে। ভবিষ্যতে এ ধরনের আরও উদ্যোগের মাধ্যমে এটি অনুসরণ করা যেতে পারে "।

ওয়েব ডেস্ক ২০ই জুন ২০১৮ : বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ প্রায় প্রতিদিনই তার সাহসের মাত্রা বাড়াচ্ছেন , উনি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বেফাঁস মন্তব্যের নিষেধকে বুড়ো আঙ্গুল দেখিয়ে এবার শাসক দলের কর্মীদের এনকাউন্টারের ভয় দেখালেন । কোচবিহারের এক জন সভায় তিনি বলেন "গুনে গুনে গুলি চলবে, আর গুনে গুনে লাশ তোলা হবে। কেষ্ট–বিষ্টু কেউ বাঁচবে না।‌ " পুলিশের বিরুদ্ধেও এক হাত নিয়ে তিনি বলেন ‘‌পুলিশ  যদি শাসকদলের ক‍্যাডারের মতো ব্যবহার করে, তা হলে আপনারাও তাদের সঙ্গে একইরকম ব্যবহার করুন। বিজেপি কর্মীদের হয়রান করতে এলে পুলিসকে গাছে বেঁধে রাখুন।’


উল্লেখ্য জলপাইগুড়ির ৩ নম্বর গুমটি এলাকার থেকে একটি মিছিল বার করেন বিজেপি কর্মীরা , সেখানে নেতৃত্ব দেন দিলীপ ঘোষ, তার সঙ্গে ছিলেন বাপি গোস্বামী, সুভাষ সরকার, দীপেন প্রামাণিক, দেবাশিস চক্রবর্তী–সহ বিভিন্ন নেতারা এবং রাজ্যের বিজেপি সম্পাদক সায়ন্তন বসু ।বিভিন্ন এলাকায় প্ররোচনা মূলক স্লোগান দিতে দিতে ,মিছিলটি আসে  জলপাইগুড়ির জেলা শাসকের দফতরের সামনে ।যদিও আগাম খবর পেয়ে আঁটোসাঁটো পুলিশি ব্যারিকেড আগের থেকেই করা হয়েছিল ।সেখানে বিজেপি কর্মীরা পুলিশের সাথে মারামারিতে জড়িয়ে পড়েন ।
প্রসঙ্গত জনসভায় বিজেপি ২০২১ সালে রাজ্যের ক্ষমতায় আসলে ,তাদের  ইচ্ছার কথাও শোনা যায় ।যেমন পুলিশের উর্দি গেরুয়া করে ফেলা হবে , সবুজ বেল্ট পোড়ানো হবে ,এবং মাথায় সাদা তুপি থাকবে ,সঙ্গে ছিল নেতা মন্ত্রীদের প্ররোচনা মূলক  মন্তব্যও  ।বিদ্যজনেদের একাংশের মত, এতটা উগ্র নাহলেও পারতেন , দিলীপ বাবু ।

তথ্য কৃতজ্ঞাতা স্বীকার 'আজকাল "

Tuesday, 19 June 2018

ওয়েব ডেস্ক ১৮ই জুন ২০১৮ : প্রতি বছর ৫০০০ টাকা বেশি খরচ হবে জেনেও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ১৮ শতাংশ ডি.এ বাড়াতে পিছপা হলেন না ।আজ নবান্নে মুখমন্ত্রী জানান , অতি কঠিন পরিস্থিতিতেও মহার্ঘ্য ভাতা বাড়ানো হল ।


তিনি এও জানান ১ লা জানুয়ারী ২০১৯ থেকে  লাগু হবে বর্ধিত মহার্ঘ ভাতা।তিনি দাবি করেন এর জন্য ৯০ শতাংশ বকেয়া মহার্ঘ্য ভাতা মিতে গেল ।
ওয়েব ডেস্ক ১৮ই জুন ২০১৮ : রাজ্যের বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ তার স্বমহিমা ছেড়ে কোনো দিনও বেরোবেন না বলে ঠিক করেছেন , সেটি এখন প্রমাণিত  ।গত ১২ই জুন সোমবার  পুরুলিয়ার বোলরামপুরে এক জনসভায় শ্রীযুক্ত দিলীপ ঘোষ বলেছিলেন  , পুলিশ যদি গ্রামে কাউকে গ্রেফতার করতে আসে ,তাহলে গ্রামবাসীরা যেন পুলিশকে বেঁধে রাখেন ।




আজ  মঙ্গলবার জলপাইগুড়িতে ছিল বিজেপির আইন অমান্য কর্মসূচি।এক ধাপ এগিয়ে সেই কর্ম সূচিতেই রাজ্যের বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ পুলিশকে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে বসলেন । যার জন্য আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে জানিয়েছেন পুলিস সুপার অমিতাভ মাইতি।
জেলা শাসকের দফতরের সামনে তিনি বলেন ,'গুলির বদলা গুলি, খুনের বদলা খুন। কার কোথায় গুলি লাগবে কেউ জানে না।' বিদ্যজনেরা প্রায় প্রত্যেক বারই দিলিপি বাবু ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় মনে করিয়ে দিয়েছেন এটা বাংলার রাজনীতির ধারা নয় , কিন্তু কি করা যাবে , দিলীপ ঘোষ যে আছেন দিলীপ ঘষেই । 
loading...