Saturday, 26 September 2020

ওয়েব ডেস্ক ২৬শে সেপ্টেম্বর ২০২০ : ঠিক কতটা জমি ভারত ছেড়ে দিল চীনের কাছে ? কোনো সদুত্তর নেই কেন্দ্রের কাছে।  কেন্দ্র বলছে কূটনৈতিক আলোচনা চলবে আর সেটা চালিয়ে যাবে চীনও।  কিন্তু ভারতের জমি যেটা তারা দখল করে রেখেছে সেটা ফেরত দেবে কি ?


সর্বশেষ ভারত চীন সমঝোতা  লাদাখ পরিস্থিতিকে মে মাসের আগের অবস্থায় নিয়ে যাবে এমন আশা করছে না ভারত  । চীন মনে করে, লাদাখের অবস্থাকে মে মাসের আগের শান্তিপূর্ণ অবস্থা নিতে হলে আরও অনেক আলোচনা-সংলাপের প্রয়োজন রয়েছে।যার মানে তারা সময় নষ্টের দিকে বেশি মনোযোগী। এ কারণেই সমস্যার স্থায়ী সমাধানের আগে  পর্যন্ত ভারতও সমঝোতার পরও সামরিক-কূটনৈতিক পদক্ষেপ অব্যাহত রাখার কথা জানিয়েছে।

ওয়েব ডেস্ক ২৬শে সেপ্টেম্বর ২০২০ : আন্তর্জাতিক আদালতে কর দাবির মামলায় ভোডাফোনের কাছে হারলো কেন্দ্র । শুধু তাই নয় ভারতকে দিতে হবে ৫৫ লাখ টাকা জরি’মানা। সূত্রের খবর অনুসারে , শুক্রবার (২৫ সেপ্টেম্বর) হেগে অবস্থিত ইন্টারন্যাশনাল আ’র্বিট্রে’শন ট্রাই’বুনাল নেদারল্যান্ডসের কোম্পানিটির পক্ষে রায় দেয়।

 

সু’দ ও জ’রিমা’নাসহ যে কর দায় ভোডাফোনের ওপর ভারতের সরকার আরো’প করেছে, তা নেদারল্যান্ড ও ভারতের মধ্যে একটি আন্তর্জাতিক চু’ক্তির ল’ঙ্ঘ’ন। একটি সূত্র জানিয়েছে, সুদ ও জরি’মানাসহ ২০০ কোটি ডলারের কর এবং আরও ১৮৯ কোটি ডলার ভোডাফোনের কাছে দাবি করেছিল ভারত।

প্রায় ছয় বছর পর এই মামলার রায় দিল আন্তর্জাতিক আদালত। ইন্টারন্যাশলান আর্বিট্রেশন ট্রাইবুনালে যাওয়ার আগে ২০১২ সালে ভোডাফোনের পক্ষে রায় দিলেও পরবর্তীতে আইন পরিবর্তন করে পুরনো চু’ক্তির উপরেও ক’রারো’পের বিধান করে কেন্দ্র  ।

ওয়েব ডেস্ক ২৬শে সেপ্টেম্বর ২০২০ : পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষ রাজ্যসভায় পাস হওয়া নতুন কৃষি সংস্কার বিলের প্রতিবাদে দেশের  বিভিন্ন প্রান্তে বিক্ষোভ হয়েছে। শুক্রবার দেশের  কৃষক সংগঠনগুলো মিলিতভাবে  অবস্থান কর্মসূচি পালনের ডাক দিয়েছিল। কংগ্রেস-সহ পাঞ্জাব-হরিয়ানার বিভিন্ন জায়গা ছাড়াও কর্নাটক, মহারাষ্ট্র, বিহারেও প্রতিবাদ-বিক্ষোভ করেছেন কৃষকরা। অনেক জায়গায় রাস্তা বন্ধ করে, রেললাইনের ওপরে বসে প্রতিবাদ দেখিয়েছেন তারা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে দেশজুড়ে মোতায়েন করা হয়েছে অতিরিক্ত পুলিশ।

বিক্ষোভের দাবানল সবচেয়ে বেশি দেখা গেছে পাঞ্জাব ও হরিয়ানাতে। অমৃতসর, জালন্ধর, লুধিয়ানা, আম্বালা, চণ্ডীগড়ের বিভিন্ন জায়গায় রাস্তা অবরোধ করে বিভিন্ন কৃষক সংগঠন। জালন্ধরের কাছে সকাল থেকেই অমৃতসর-দিল্লি জাতীয় সড়ক অবরোধ করেছে ভারতীয় কিষান ইউনিয়ন ও রেভোলিউশনারি মার্ক্সিস্ট পার্টি অব ইন্ডিয়া।আম্বালাতে বিক্ষোভের কারণে বন্ধ হয়ে যায় দিল্লি-চণ্ডীগড় বাস চলাচল। কিষান মজদুর সংঘর্ষ কমিটি বৃহস্পতিবার থেকেই পাঞ্জাবজুড়েই ‘রেল রোকো’ অভিযান চালিয়ে আসছে। পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিং বিক্ষোভকারী কৃষকদের করোনাভাইরাস সুরক্ষাবিধি মেনে শান্তিপূর্ণভাবে বিক্ষোভ করার আবেদন জানিয়েছেন। এনডিএর শরিক শিরোমণি আকালি দলও এই বিলের প্রতিবাদে সারা পাঞ্জাবজুড়ে তিন ঘণ্টার ‘চাক্কা জ্যাম’ কর্মসূচি পালন করে।


কৃষি সংস্কার বিল ২০২০-এর প্রতিবাদে রাস্তায় নেমে আসে কর্নাটকের রাজ্য কৃষক সংগঠনগুলো। বোম্মানহালিতে কর্নাটক-তামিলনাড়ু জাতীয় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখান রাজ্যের কৃষকরা। মহারাষ্ট্রেও বিক্ষোভ করেছে বাম সমর্থিত অল ইন্ডিয়া কিষান সভা। রাজ্যের প্রায় ২১টি জেলাতে বিলের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেছেন কিষান সভার ৩০ হাজারেরও বেশি সদস্য।


 উত্তরপ্রদেশের বিভিন্ন জায়গাতেও পথে নেমে বিক্ষোভ করেছেন কৃষকরা। অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে দিল্লি- উত্তরপ্রদেশ সীমানায় চিল্লাতে বিপুলসংখ্যক পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হয়। 


কৃষি সংস্কার বিল দেশের কৃষকদের আর্থিক উন্নতির জন্য আনা হয়েছে বলে শুরু থেকে দাবি করে আসছে  বিজেপি সরকার। বিরোধীদের আপত্তি উড়িয়ে সংসদে বিলটি পাশ করেছে নরেন্দ্র মোদি নেতৃত্বাধীন বিজেপি। তারপর থেকেই দেশজুড়ে বিরোধীরা বিক্ষোভ করে আসছেন।

ওয়েব ডেস্ক ২৬শে সেপ্টেম্বর ২০২০ : মুম্বাই হাইকোর্ট জানিয়ে দিয়েছে, যৌন পেশা কোনো অপরাধ নয়। যৌনকর্মী বানিয়ে নারীদের পাচার করা ঠেকাতে প্রয়োগ করা হয় অনৈতিক পাচার রোধ আইন। মুম্বাই হাইকোর্টের বিচারপতি পৃথ্বীরাজ কে চৌহান জানিয়েছেন, প্রাপ্তবয়স্ক নারী নিজের পেশা বেছে নেওয়ার অধিকার পাবেন। একটি হোমে বন্দি তিন যৌনকর্মীকে মুক্তিও দিয়েছে হাইকোর্ট। 

বিচারপতি জানান, কোনো প্রাপ্তবয়স্ক নারীকে তার সম্মতি ছাড়া আটক রাখা যায় না। হাইকোর্ট জানিয়েছে, অনৈতিক পাচার রোধ আইনে যৌন পেশায় যোগ দেওয়ার জন্য কারো বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা বা কাউকে শাস্তি দেওয়ার ব্যবস্থা  নেই। কিন্তু যৌন ব্যবসার কারণে কাউকে নির্যাতন করা হলে বা প্রকাশ্য স্থানে যৌন ব্যবসা সংক্রান্ত প্রলোভন দেখানো হলে তা শাস্তিযোগ্য অপরাধ।মহারাষ্ট্রের মালাড এলাকায় একটি গেস্ট হাউসে মধুচক্রের খবর পেয়ে ফাঁদ পেতে তিন নারী ও নিজামুদ্দিন খান নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।  নিম্ন আদালতে শুনানির সময় জানা যায়, ওই তিন নারী বেদে সম্প্রদায়ের। মহারাষ্ট্রে ওই সম্প্রদায়ের নারীদের অনেককে নির্দিষ্ট বয়সের পর যৌন পেশায় যোগ দিতে পাঠানোর রেওয়াজ আছে। ম্যাজিস্ট্রেট আদালত জানায়, এক্ষেত্রে বাবা-মা মেয়েকে যৌন পেশায় যোগ দেওয়ার অনুমতি দিতে পারেন। তাই মায়ের হাতে মেয়ের দায়িত্ব দেওয়া নিরাপদ নয়। ওই তিন নারীকে এক বছর মহারাষ্ট্রের একটি হোমে আটক রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।দায়রা আদালতও ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের রায় বহাল রাখে। কিন্তু হাইকোর্ট জানিয়েছে, ওই তিন নারীর বিরুদ্ধে মামলা চালানো হচ্ছে না। সে ক্ষেত্রে তাদের কোনো প্রতিষ্ঠানের হেফাজতে রাখা অর্থহীন। 


হাইকোর্ট জানিয়েছে- রায় দেখে মনে হয় ওই তিন নারী যে একটি বিশেষ সম্প্রদায়ের সদস্য, সেই বিষয়টি ম্যাজিস্ট্রেটকে প্রভাবিত করেছিল। তার মনে রাখা উচিত ছিল, ওই তিন নারী প্রাপ্তবয়স্ক। হোমে পাঠানোর আগে তাদের মত নেওয়ার প্রয়োজন ছিল। তারা প্রকাশ্য স্থানে যৌন ব্যবসা এ সংক্রান্ত প্রলোভন দেখিয়েছেন বা যৌন পল্লী চালাতেন এমন কোনো প্রমাণ নেই। ফলে তাদের হোমে আটক রাখা অর্থহীন।

ওয়েব ডেস্ক ২৬শে সেপ্টেম্বর ২০২০ : কেন্দ্রীয় সরকারের শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ১৩ সেপ্টেম্বর অনির্দিষ্টকালের জন্য পেঁয়াজ রপ্তানি নিষিদ্ধ ঘোষণা করে। ওইদিন সন্ধ্যায় এই খবরটি প্রকাশিত হওয়ার পর পেঁয়াজ-চাষিদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে তীব্র ক্ষোভ। উমরানে, লাসালগাঁও, সাতানা এবং নাগপুর- পেঁয়াজের জন্য বিখ্যাত এসব বাজারে নিলামে পণ্য বিক্রি বন্ধ করে দিয়ে তারা সরকারি এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে অবস্থান কর্মসূচি শুরু করেন। উমরানের ক্ষুব্ধ কৃষকরা মুম্বাই-আগ্রা জাতীয় মহাসড়কে অবরোধ সৃষ্টি করে যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয়। বিক্ষোভকারীরা বলেন, কেন্দ্রীয় সরকার চাষিদের ধ্বংস করে ফেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ১০ গ্রাম সোনার দাম যখন ৫০ হাজার টাকাতে  পৌঁছালো, এক কেজি মাংসের দাম হলো ৭০০ টাকাতে , সরকার তো এসব খাতে তখন কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। চাষিরা যখন পাঁচ-ছয় রুপি কেজিতে পেঁয়াজ বিক্রি করছিল তখন কি তারা ঘুমিয়েছিল?

মহারাষ্ট্রে পেঁয়াজ-চাষি সমিতির প্রেসিডেন্ট ভারাত দীঘল পেঁয়াজ রপ্তানি নিষিদ্ধ করার সরকারি সিদ্ধান্তের নিন্দা জানিয়ে বলেন, কেন্দ্রীয় সরকার যদি নিষেধাজ্ঞা তুলে না নেয়, চাষিরা বাজারে পেঁয়াজ আনবে না এবং এক গাড়ি পেঁয়াজও মহারাষ্ট্রের বাইরে যাবে না। এর ফলে পেঁয়াজের অভাব দেখা দিলে এবং দাম বেড়ে গেলে এর জন্য সরকার দায়ী থাকবে। চাষিরা এবার আর মাথা নত করবে না।দেশের  পেঁয়াজচাষিরা এ বছরের মার্চ মাস থেকে প্রতি কেজি পেঁয়াজ চার থেকে ছয় টাকা  দরে বিক্রি করে আসছে। কিন্তু এক কেজি পেঁয়াজ উৎপাদন করতে তাদের খরচ হয় ২০ টাকার মতো।গত বছর ভালো আবহাওয়ার কারণে দেশে  পেঁয়াজের উৎপাদন ৪০ শতাংশ বেড়ে গিয়েছিল। ফলে অনেক কৃষক তাদের উৎপাদিত পণ্য তখনই বিক্রি না করে মজুদ করে রেখে দিয়েছিল আরো বেশি দামে বিক্রি করার আশায়।কিন্তু পরে করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে লকডাউন জারি করা হলে এই পেঁয়াজই কৃষকদের চোখে অশ্রু ঝরিয়ে ছাড়ে।এ বছর অতিবৃষ্টি এবং বাতাসে আর্দ্রতা বেশি হওয়ার কারণে মজুদ করে রাখা পেঁয়াজের ৪০ থেকে ৫০ শতাংশ পচে নষ্ট হয়ে যায়। গত বছরের তুলনায় এবছর রপ্তানির পরিমাণও ছিল বেশি। কিন্তু উৎপাদন যথেষ্ট ছিল না।জুলাই ও অগাস্ট মাসে প্রবল বৃষ্টিপাতের কারণে খারিফ এলাকায় পেঁয়াজের ফলন মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ক্ষতিগ্রস্ত হয় গুজরাট, মধ্য প্রদেশ, অন্ধ্র প্রদেশ এবং কর্নাটকাতে লাল পেঁয়াজের ফসলও।মহারাষ্ট্রেও লাল পেঁয়াজের বীজের সঙ্কট দেখা দেয়। ফলে লাল পেঁয়াজ সেপ্টেম্বর মাসে জমি থেকে তোলার কথা থাকলেও সেটা পেতে পেতে দেড় মাস দেরি হয়। এ কারণে বাজারে মজুদ করে রাখা লাল পেঁয়াজের চাহিদা বৃদ্ধি পায়। গত চার দিন ধরে কৃষকরা প্রতি কেজি পেঁয়াজের দাম পেয়েছে ৩০ রুপি করে। কিন্তু কেন্দ্রীয় সরকার রপ্তানি নিষিদ্ধ করার মাত্র দুদিন বাদে ১৫ই সেপ্টেম্বরে প্রতি কেজি পেঁয়াজের দাম ১০ টাকাতে নেমে আসে।


নাশিকের জয়গাও এলাকায় পাঁচ একর জমিতে পেঁয়াজের চাষ করেছেন ভীমা দীঘল। কিছু পেঁয়াজ তিনি বাজারে বিক্রি করেছেন এবং বাকিটা তিনি মজুদ করে রেখেছেন। তিনি আশা করেছিলেন অগাস্ট মাসের পর থেকে পেঁয়াজের মূল্য বৃদ্ধি পাবে এবং তার ফলে তার উৎপাদনের খরচ উঠে আসবে। শুরুতে তিনি তার উৎপাদিত কিছু পেঁয়াজ বাজারে বিক্রি করেছিলেন। প্রতি ১০০ কেজি পেঁয়াজে তিনি পেয়েছিলেন ৪০০ থেকে ৭০০ টাকাতে। অর্থাৎ প্রতি কেজি পেঁয়াজের দাম পেয়েছেন মাত্র চার থেকে সাত টাকাতে।


পাঁচ একর জমিতে পেঁয়াজ চাষ করতে তার খরচ হয়েছে প্রায় আড়াই লাখ টাকা  এবং আশা করেছিলেন যে পৌনে দুই লাখ রুপি তিনি পেয়ে যাবেন মজুদ করে রাখা পেঁয়াজ বিক্রি করে। কিন্তু তিনি দেখলেন যে খারাপ আবহাওয়ার কারণে অর্ধেক পেঁয়াজই পচে গেছে।

ওয়েব ডেস্ক ২৬শে সেপ্টেম্বর ২০২০ : প্রথমবার ছুটবে আরআরটিএস ট্রেন। গতকাল শুক্রবার এই প্রথম লুক প্রকাশ্যে আনেন কেন্দ্রীয় সচিব দুর্গা শঙ্কর মিশ্র। প্রথম পর্যায়ে তিনটি রুট এই ট্রেনের জন্য বেছে নেওয়া হয়েছে। তার মধ্যে অন্যতম দিল্লি-গাজিয়াবাদ-মীরট।ট্রেনের ছবি প্রকাশ করেন কেন্দ্রীয় আবাসন ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রণালয়ের দাবি, ৮২ কিলোমিটার লম্বা রুটে ১৮২ কিলোমিটার প্রতি ঘণ্টায় চলাচল করবে ট্রেনটি।

এনসিআরটিসি জানিয়েছে, ভারতে এ ধরনের ট্রেন এই প্রথম চলতে যাচ্ছে। এতে থাকবে আলো ও তাপমাত্রার কন্ট্রোল সিস্টেম। অর্থাৎ প্রয়োজনে আলো ও উত্তাপ কমানো বা বাড়ানো যাবে।বর্তমানে সড়কপথে দিল্লি থেকে মীরট যেতে সময় লাগে তিন-চার ঘণ্টা। সেই রুটেই এই ট্রেনে করে এক ঘণ্টারও কম সময়ে পৌঁছে যাওয়া যাবে।এ ট্রেনের বাইরের দিকটি তৈরি স্টেইনলেস স্টিলে। এই ট্রেন ওজনে হালকা, পুরোপুরি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত।একটি কামরা থাকবে নারীদের জন্য সংরক্ষিত। প্রতি কামরায় থাকবে দু'পাশে তিনটি করে দরজা। বিজনেস ক্লাসের কামরায় দু'দিকে দুটি করে দরজা।

আরামদায়ক বসার জায়গার সঙ্গে মোবাইল ফোন, ল্যাপটপ চার্জ করার জায়গা, ওয়াইফাইসহ একাধিক সুবিধা থাকবে।২০২৫ সালে সর্ব-সাধারণের জন্য এই রুটে ট্রেনটি চালু হওয়ার কথা।সবই তো বোঝা গেল কিন্তু বেকার সমস্যা ঘোচাবার জন্য কিছু পদক্ষেপও তো ভারতের মানুষ আশা করে বসে আছে। 

Friday, 25 September 2020

ওয়েব ডেস্ক ২৫শে সেপ্টেম্বর ২০২০ : বামফ্রন্ট জমানার কিছু বকেয়া টাকা ,যা সেই সময় মাথা খুঁড়েও ঠিকাদারেরা পাননি ,আজ ফিরহাদ হাকিমের জমানাতেও ব্যাপারটা একটুও বদলায়নি।  অন্তত এরকমই মনে করেন কিছু পাওনাদারর।  

বামফ্রন্ট জমানায় কিছু ঠিকাদারেরা মাল সরবরাহ করেও কোনো এক অজ্ঞাত কারণে তাদের পেমেন্ট আটকে যায়।  ঠিকাদারেরা হাই কোর্টে মামলা দায়ের করেও সেই মামলার রায় নিজেদের অনুকূলে পেয়েও তারা এখনো তাদের বকেয়া টাকা পাননি।  তাদের আশা ছিল সরকার পরিবর্তন হলে তারা তাদের সরবরাহ করা মালের দাম সম্পূর্ণ পাবে কিন্তু সেটা এখনও  হয়নি। পরিষ্কার করে বলাও হচ্ছেনা তাদের ফাইলটা কতদূর এগোলো।  আর এদিকে চলে আসছে পুজো।  এমন অনেক ঠিকাদারই আশায় বসে ছিল পুজোর আগে তারা হয়তো তাদের বকেয়া টাকা কলকাতা মিউনিসিপাল কর্পোরেশনের কাছ থেকে পেয়ে যাবে , কিন্তু ব্যাপারটা বিষবাও জলে দেখে হতাশ হয়ে পড়েছেন।  তাদের আশা মুখ্যমন্ত্রী এই ব্যাপারটা দেখবেন সহানুভূতির সঙ্গে।      

ওয়েব ডেস্ক ২৫শে সেপ্টেম্বর ২০২০ : বিকল্প রোজগারের ব্যবস্থা করার দাবি নিয়ে শিক্ষকদের মহাকরণ অভিযানে পুলিশের লাঠি চালনা ঘিরে আবারও উত্তপ্ত ত্রিপুরা। বিজেপি আইপিএফটি জোট সরকারের কর্মসংস্থানের প্রতিশ্রুতি ভুয়ো বলেই চিহ্নিত করছেন রাজ্যের ১০৩২৩ সংগঠনের সদস্যরা।গত বুধবার পূর্ব ঘোষণা অনুসারে আগরতলায় চাকরিচ্যুত ১০৩২৩ শিক্ষক-শিক্ষিকারা মহাকরণ অভিযান করেন। তবে নিরাপত্তা বলয়ের নির্দিষ্ট সীমা পেরনোর আগেই সেই মিছিল আটকে দেয় পুলিশ।


আন্দোলনকারীদের উপর পুলিশ লাঠি চার্জ করেছে বলে অভিযোগ। কয়েকজন শিক্ষিকা লাঠির আঘাতে রাস্তার উপরেই ছিটকে পড়েন। তাঁরা কান্নায় ভেঙে পড়েন। এই ছবি সোশ্য়াল মিডিয়ায় ছড়িয়েছে। তাঁরা নির্বিচারে লাঠি চালানোর অভিযোগ করেছেন।

এই সংগঠনের সদস্যরা জানান, গত বিধানসভা নির্বাচনের আগে রাজ্যের ১০,৩২৩ শিক্ষক শিক্ষিকার চাকরি স্থায়িত্ব নিয়ে বাম আমলের শেষের দিকে সমস্যা তৈরি হয়েছিল। বিজেপি নেতারা আশ্বাস দিয়েছিলেন, তাদের সরকার তৈরি হলে সমস্যা সমাধান হবে। সরকার আসার পর আড়াই বছর কেটেছে, কিছুই হয়নি। বিকল্প রোজগারের দাবিতে আন্দোলনে পুলিশ লাঠি চালিয়েছে।


গত ৩১ মার্চ সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পর ত্রিপুরার ১০,৩২৩ জন শিক্ষককে তাঁদের চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়। বহিষ্কৃত শিক্ষকরা সরকারের কাছে বিকল্প আয়ের ব্যবস্থার দাবি জানাচ্ছেন।

 

বিরোধী দল সিপিআইএম ও কংগ্রেস বারবার অভিযোগ তুলছে রাজ্যেে কর্মসংস্থান সূচক নিম্নমুখী। পাশাপাশি, করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের সরকারের ভূমিকা নিয়েও প্রবল সরব বিরোধী নেতা তথা প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকার। তাঁর অভিযোগ, ত্রিপুরাবাসীকে গত লোকসভা নির্বাচনের সময় থেকেই সন্ত্রাসের ভয় দেখিয়েছে বিজেপি। নিকম্মার সরকার বলেও বর্তমান শাসকদের কটাক্ষ করেছেন মানিকবাবু।


অন্যদিকে মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব জানিয়েছেন, ত্রিপুরায় কর্মসংস্থানের গতি বেড়েছে। স্বনিযুক্তি প্রকল্প, আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের পরিমাণ উর্ধমুখী। বিরোধীদের আন্দোলন নিছকই বিরোধিতার জন্য বলেই তাঁর দাবি।


তবে রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি ঠিক করা, কর্মসংস্থানের দাবিতে একদিন আগেই কংগ্রেসের ডাকা ১২ ঘণ্টার বনধ ঘিরে আগরতলা ও বিভিন্ন এলাকায় বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষ হয়। বনধে মিশ্র সাড়া পড়ে।


কংগ্রেসের বনধের পরেই ছিল ১০,৩২৩ সংগঠনের শিক্ষক শিক্ষিকাদের কাজের দাবিতে বুধবারের মহাকরণ অভিযান। অভিযোগ, পুলিশ নির্মমভাবে লাঠি চালিয়ে মিছিল ভেঙে দেয়। আক্রান্ত শিক্ষক শিক্ষিকারা ক্ষোভে ফেটে পড়েন। তাঁরা শিক্ষামন্ত্রী রতনলাল নাথ ও সরকারের বিরুদ্ধে সরব হন।

ওয়েব ডেস্ক ২৫শে সেপ্টেম্বর ২০২০ : জাতিসংঘে কাশ্মির ইস্যু তুলেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোয়ান। মঙ্গলবার সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে এ নিয়ে কথা বলেন তিনি। এরদোয়ান বলেন, ‘দক্ষিণ এশিয়ায় শান্তি ও স্থিতাবস্থা বজায় রাখতে হলে কাশ্মির সমস্যার সমাধান করতে হবে। এটি এখনও একটি জ্বলন্ত সমস্যা। জাতিসংঘের প্রস্তাব ও কাশ্মিরের মানুষের প্রত্যাশা মেনে এই সমস্যার সমাধান করা দরকার।’ এদিকে এরদোয়ানের এমন বক্তব্যে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে দিল্লি।

জাতিসংঘে নিযুক্ত ভারতের স্থায়ী প্রতিনিধি টি এস তিরুমূর্তি বলেছেন, তুরস্ককে অন্য দেশের সার্বভৌমত্বের প্রতি সম্মান জানানো শিখতে হবে। তাদের নীতিতে এর প্রতিফলন থাকা দরকার।

জাতিসংঘে নিযুক্ত ভারতের স্থায়ী প্রতিনিধি টি এস তিরুমূর্তি বলেছেন, তুরস্ককে অন্য দেশের সার্বভৌমত্বের প্রতি সম্মান জানানো শিখতে হবে। তাদের নীতিতে এর প্রতিফলন থাকা দরকার।

টুইটারে দেওয়া এক পোস্টে তিরুমূর্তি বলেন, ‘ভারতের কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল জম্মু ও কাশ্মির নিয়ে তুরস্কের প্রেসিডেন্টের মন্তব্য আমাদের চোখে পড়েছে। এটা ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ ছাড়া আর কিছুই নয়। দিল্লি তা কখনোই বরদাশত করবে না।’


গত এক বছর ধরে পাকিস্তানের বন্ধু দেশ তুরস্ক নানা আন্তর্জাতিক মঞ্চে কাশ্মির প্রসঙ্গ তুলছে বা তোলার চেষ্টা করছে। সপ্তাহখানেক আগেই তুরস্ক, পাকিস্তান এবং ওআইসির নিন্দা করেছিল ভারত। কারণ, তারা মানবাধিকার কাউন্সিলে কাশ্মির প্রসঙ্গ তুলেছিল। দিল্লির দাবি, তুরস্ক যেন ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে মন্তব্য না করে।


এমন সময়ে এরদোয়ান জাতিসংঘে কাশ্মির প্রসঙ্গের অবতারণা করলেন যখন এ ইস্যুতে দৃশ্যত পাকিস্তানকে পরিত্যাগ করেছে সৌদি আরব। রিয়াদ বরং দিল্লির সঙ্গে অর্থনৈতিক সম্পর্ক জোরদারে অধিক জোর দিচ্ছে।


কাশ্মির ইস্যুতে মুসলিম দেশগুলোর জোট ওআইসির পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের একটি বিশেষ বৈঠক আহ্বানের প্রস্তাবও সরাসরি নাকচ করে দিয়েছে সৌদি আরব। এ নিয়ে চাপ প্রয়োগ করায় পাকিস্তানের সঙ্গে ৬২০ কোটি ডলারের ঋণ ও তেল সরবরাহের চুক্তি বাতিল করে রিয়াদ। অর্থাৎ এটা স্পষ্ট যে পাকিস্তানের সঙ্গে মুসলিম ভ্রাতৃত্ববোধের বদলে ভারতের সঙ্গে ব্যবসায়িক সম্পর্ক জোরদারের প্রতিই অধিক আগ্রহী সৌদি আরব। এমন পরিস্থিতিতে আন্তর্জাতিক মঞ্চে কাশ্মির ইস্যুতে এরদোয়ানের সরব হওয়ার ঘটনা তাৎপর্যপূর্ণ হিসেবে প্রতীয়মান হচ্ছে।

ওয়েব ডেস্ক ২৫শে সেপ্টেম্বর ২০২০ : করোনায় আক্রান্ত হয়ে ভারতের প্রখ্যাত পরমাণু বিজ্ঞানী শেখর বসুর মৃত্যু হয়েছে৷ মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬৭ বছর৷ ভারতের পরমাণু শক্তি কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান ছিলেন তিনি৷জানা গেছে,পরমাণু বিজ্ঞানী শেখর বসু কিডনির সমস্যা নিয়ে ভর্তি হয়েছিলেন কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে৷ সেখানে করোনা পরীক্ষা হলে রিপোর্ট পজিটিভ আসে৷ তারপর গতকাল  সকালে তাঁর মৃত্যু হয়৷

ভারতের প্রথম পরমাণু জ্বালানি চালিত ডুবোজাহাজ আইএনএস অরিহন্তের পরমাণু চুল্লির নকশা তৈরি করেছিলেন পরমাণু বিজ্ঞানী শেখর বসু৷ পরমাণু বর্জ্য নিষ্কাষণের নতুন নতুন পদ্ধতি উদ্ভাবনেও গুরুত্বপূর্ণ অবদান ছিল তাঁর।এছাড়া দেশের  পরমাণু শক্তি কমিশনের চেয়ারম্যানের পদ অলঙ্কৃত করেছেন তিনি৷ দীর্ঘদিন পরমাণু শক্তি মন্ত্রণালয়ের সচিবের দায়িত্বও পালন করেছেন তিনি। জীবনব্যাপী গবেষণা কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ ২০১৪ সালে তাঁকে ‘পদ্মশ্রী’ সম্মানে ভূষিত করেন তত্‍কালীন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়।

loading...