Monday, 21 October 2019

ওয়েব ডেস্ক ২১ ই অক্টোবর ২০১৯: এই না হলে দিলীপ ঘোষ , ভোল বদলাতে তিনি বিশেষজ্ঞ। যখন এক দিকে বিজেপির সব নেতা মন্ত্রীরা , অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের সমালোচনায় মুখর , এবং তিনি যোগ্য ভূমিকা পালন করেছিলেন , যখন দেখলেন বাংলার মানুষ এটাকে ভালো ভাবে নেয়নি , তখনই একশো আশি ডিগ্রী ঘুরে অভিজিৎ ব্যানার্জীর প্রশংসায় পঞ্চমুখ হলেন । অভিজিৎ ব্যানার্জিকে বিজেপি তরফ থেকে কে না সমালোচনা করেছেন !
পীযুষ গেল থেকে রাহুল সিনহা আর প্রাক্তন মন্ত্রী তথাগত রায় থেকে স্বয়ং দিলীপ বাবু । অবশেষে ঢোক গিলতে হলো দিলীপ বাবুর , উল্টো সুরও গাইতে হলো । এদিন কামারহাটিতে বিজেপির ‘গান্ধী সংকল্প যাত্রা’য় অংশ নিয়ে দিলীপ বলেন, ‘নোবেলজয়ী অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায় বিরাট মাপের ব্যক্তিত্ব। আশা করব দেশের আর্থিক সংকট থেকে পরিত্রাণ পেতে নিজের মূল্যবান মতামত তিনি দেবেন।’তিনি একরকম মেনেই নিলেন ভারতীয় অর্থনীতির অবস্থা ঠিক নেই । যেখানে নির্মলা সীতারামানের মতো ব্যক্তিত্ব কিছুতেই সেটা মানতে চাইছেনা । এবার বিজেপি কি করবে ? দু রকম কথা যে হয়ে গেল ? আইন মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রাসাদ কি কিছু বার করবেন , এই অচলাবস্থা কাটাবার জন্য ? 
ওয়েব ডেস্ক ২০ই অক্টোবর ২০১৯:আলটপকা মন্তব্যের মাশুল এবার বিজেপির রাহুল সিনহা কে গুনতে হচ্ছে করায় গন্ডায় । তিনি যে এরকম একটা উক্তি পাবেন অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের মায়ের কাছ থেকে সেটা স্বপ্নেও হয়তো ভাবতে পারেননি ।
 রাহুল বাবুর  সাথে সাথে যে সব বিজেপি নেতা মন্ত্রীরা মনে করেন অভিজিৎ ব্যানার্জি বিদেশিনী বিয়ে করেছে বলেই তিনি নোবেল পেয়েছেন তারাও ব্যাপক লজ্জার সম্মুখীন হলেন নির্মলা ব্যানার্জির উক্তিতে । নির্মলা দেবী বলেন যারা মনে করেন এস্থার ডাফলো কে  বিয়ে করার জন্য অভিজিৎ ব্যানার্জি নোবেল পেয়েছেন তাহলো তারাও বিদেশিনী বিয়ে করুননা , সে ক্ষেত্রে এদেশে অনেক বেশি নোবেল আসবে দেশে । এ কথার মাধ্যমে নির্মলা দেবী কতটা আঘাত হেনেছেন রাহুল বাবুদের সেটা তারা টের পেয়েছেন নিশ্চয় । তাহলে কি বেফাঁস মন্তব্য থেকে বিরত থাকবেন বিজেপি নেতা মন্ত্রীরা ? একমাত্র ঈশ্বরই বলতে পারবেন ।

ওয়েব ডেস্ক ২১ ই অক্টোবর ২০১৯:মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যেই প্রকল্পেই হাত দিচ্ছেন সোনা ফলে যাচ্ছে । বিরোধী শিবিরে থেকেও , কেন্দ্রের বৈমাতৃসুলভ ব্যবহার পেয়েও তার উন্নতির রথ যে থামানো যায়নি সেটা আরো একবার প্রমান করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ।মাত্র ৮ মাসে ৩৭ লক্ষেরও বেশি কৃষককে আর্থিক সহায়তা করেছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার।এর জন্য ৫০০ কোটি টাকার বেশি খরচ হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে ।
এই প্রকল্পে কৃষকদের এক একর করে জমি ও ৫ হাজার টাকা আর্থিক সহায়তা করে রাজ্য সরকার। পাশাপাশি কোনও কৃষকের মৃত্যু হলে, তাঁর পরিবারকে আর্থিক সাহায্য করা হয়।যেটা বাম জমানায় মাত্র কয়েক কিলো চাল ডালে সীমিত থাকতো ।কৃষকরা যাতে নিজের পায়ে দাঁড়াতে পারে ৯ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এই প্রকল্পের আওতায় ৩৭ লক্ষ ৭৪ হাজার ৪৪৫ জন কৃষককে ৪৭৮.৩৭ কোটি টাকা দেওয়া হয়েছে। এই সময় পর্যন্ত রাজ্য সরকারের কাছে মোট আবেদনপত্রের সংখ্যা ছিল ৪০ লক্ষ ২২ হাজার ৩৫৪। অন্যদিকে, এই প্রকল্পের আওতায় ১৮-৬০ বছর বয়সী কোনও কৃষকের মৃত্যু হলে, তাঁর পরিবারকে ২ লক্ষ টাকা করে সহায়তা করা হয়। এই খাতে এখনও পর্যন্ত ২৩.৪৬ কোটি টাকা প্রদান করেছে সরকার।
ওয়েব ডেস্ক ২১ ই অক্টোবর ২০১৯:মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সৌজন্যতা দেখানোয় এক নম্বর । সারা দেশে যত নামি দামি নেতা মন্ত্রীরা আছে তাদের সহজেই 'চ্যালেঞ্জের ' মুখে দাঁড় করিয়ে দিতে পারেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সৌজন্য দেখানোর ব্যাপারে । অতি বড় বাম্পন্থীও এই ব্যাপারে মুখে কুলুপ আঁটতে বাধ্য হবেন । প্রসঙ্গত জম্মু ও কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আবদুল্লার ‘কঠিন সময়ে’ তার পাশে দাঁড়ানোর আশ্বাস দিলেন পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আজ সোমবার ন্যাশনাল কনফারেন্সের প্রতিষ্ঠাতা ফারুক আবদুল্লার জন্মদিন। এই উপলক্ষে জম্মু ও কাশ্মীরের প্রবীণ ওই নেতাকে শুভেচ্ছাবার্তা জানিয়েছেন তৃণমূল নেত্রী। পাশাপাশি তাকে ইতিবাচক মনোভাব রাখার আহ্বান জানিয়েছেন মমতা। সেই সঙ্গে তার সুস্বাস্থ্যের জন্য কামনাও করেছেন তিনি।
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় টুইটে লিখেছেন, ‘ফারুক আবদুল্লাজিকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা। এটা আপনার পক্ষে কঠিন সময়। আমরা আপনার পাশে আছি। দয়া করে ইতিবাচক মনোভাব নিয়ে থাকুন। আমরা আপনার এবং ওমর আবদুল্লার সুস্বাস্থ্যের জন্য প্রার্থনা করছি।’জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলের পরপরই নিরাপত্তার স্বার্থে ৮২ বছর বয়সী জম্মু ও কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আবদুল্লাকে জননিরাপত্তা আইন (পিএসএ) এর আওতায় গ্রেফতার করা হয় কেন্দ্রীয় সরকারের নির্দেশে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানান কেননা বরাবরই ফারুক আবদুল্লা তৃণমূল নেত্রীর সঙ্গে একটি সুসম্পর্ক বজায় রেখেছেন। গত ১৯ জানুয়ারি কলকাতায় অনুষ্ঠিত ‘ইউনাইটেড ইন্ডিয়া র‌্যালিতে’ অংশও নেন ন্যাশনাল কনফারেন্সের প্রতিষ্ঠাতা তথা জম্মু ও কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আবদুল্লা।গত ৫ আগস্ট কেন্দ্রের পক্ষ থেকে জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলের ঘোষণা করার আগের রাত থেকেই আটক রাখা হয় ন্যাশনাল কনফারেন্সের সভাপতি ফারুক আবদুল্লাহ এবং তার ছেলে ওমর আবদুল্লাকে। তখন থেকে ওই দুই নেতার সঙ্গে তার দলের কোনও সদস্যদেরই সাক্ষাতের অনুমতি দেয়া হয়নি প্রশাসনের পক্ষ থেকে। শেষ পর্যন্ত, ফারুক এবং ওমর আবদুল্লাকে আটকের দু’মাস পরে, গত ৬ অক্টোবর, জম্মু ও কাশ্মীর প্রশাসন ন্যাশনাল কনফারেন্সের দলীয় সদস্যদের তাদের সঙ্গে দেখা করার অনুমতি দেয়া হয়। 
ওয়েব ডেস্ক ২১ ই অক্টোবর ২০১৯:আবার বিধানসভা ভোটের দামামা শুরু হলো মহারাষ্ট্রে ।বিজেপিকে যতই মুখে আত্মবিশ্বাসী শোনাক ভেতরে ভেতরে টেনশনে দিন গুনছেন অমিত শাহেরা। গতকাল  মহারাষ্ট্রে মোট ২৮৮টি আসনে ভোট নেওয়া হচ্ছে। অন্যদিকে হরিয়ানায় ভোট নেওয়া হচ্ছে ৯০ আসনে। দুইটি রাজ্যেই এদিন সকাল ৭টায় ভোট গ্রহণ শুরু হয়, তা চলবে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত। আগামী ২৪ অক্টোবর ভোটের ফল প্রকাশিত হবে।এবারের নির্বাচনী ময়দানে মহারাষ্ট্রে প্রধান রাজনৈতিক দলগুলি হল বিজেপি, শিবসেনা, কংগ্রেস ও ন্যাশনালিস্ট কংগ্রেস পার্টি (এনসিপি)।
প্রধান লড়াই হচ্ছে বিজেপি-শিবসেনা জোটের সাথে কংগ্রেস-এনসিপির মধ্যে। ভোট কেন্দ্রের সংখ্যা ৯৬,৬৬১টি। এই রাজ্যে মোট ৩২৩৭ জন প্রার্থীর ভাগ্য নির্ধারণ হবে। হেভিওয়েট প্রার্থীদের মধ্যে আছেন মুখ্যমন্ত্রী বিজেপির দেবেন্দ্র ফড়নবিস, প্রাক্তন  মুখ্যমন্ত্রী তথা কংগ্রেস প্রার্থী পৃত্থীরাজ চৌহান, কংগ্রেসের আশিস দেশমুখ, শিবসেনা প্রধান উদ্ধব ঠাকরে, তার পুত্র আদিত্য ঠাকরে, এনসিপি প্রার্থী সাবেক উপমুখ্যমন্ত্রী অজিত পাওয়ার, আম আদমি পার্টির পারমিতা প্রাণগোপাল গোস্বামী, মহারাষ্ট্রের বিজেপি সভাপতি চন্দ্রকান্ত বাচ্চু পাতিল, এনসিপি প্রধান শারদ পাওয়ারের ভাইপো রোহিত পাওয়ার প্রমুখ।হরিয়ানায় লড়াই হচ্ছে বিজেপি, কংগ্রস ও জননায়ক জনতা পার্টির মধ্যে। এবারের নির্বাচনী লড়াইয়ে প্রার্থী হয়েছেন মোট ১১৬৯ জন। হেভিওয়েট প্রার্থীরা হলেন বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী বিজেপি প্রার্থী মনোহর লাল খাট্টার, প্রাক্তন  মুখ্যমন্ত্রী তথা কংগ্রেসের ভূপিন্দর সিং হুডা, ইন্ডিয়ান ন্যাশনাল লোক দল (আইএনএলডি) প্রার্থী অভয় সিং চৌতালা, জননায়ক জনতা পার্টির দুশ্যন্ত চৌতালা, বিজেপির অলিম্পিক পদক জয়ী ববিতা ফোগট, সাবেক হকি দলের অধিনায়ক সন্দীপ সিং, কংগ্রেসের মুখপাত্র রণদীপ সিং সুরজেওয়ালা। 
ওয়েব ডেস্ক ২১ ই অক্টোবর ২০১৯:ভারতে প্রতি বছর পুষ্টির অভাবে প্রায় ৬৯ শতাংশ শিশুর মৃত্যু হয়। যাদের সবার বয়স পাঁচ বছরের নিচে। এছাড়াও পুষ্টির অভাবে অধিকাংশ শিশুই নানা ধরনের জটিল রোগে ভোগে। আর ২১ শতাংশ শিশুর খাদ‌্যতালিকায় বিবিধ এবং সুষম আহারের যথাযথ সমন্বয় ঘটে।ইউনিসেফ’র ‘দ‌্য স্টেট অফ দ‌্য ওয়ার্ল্ডস চিলড্রেন- ২০১৯’ শীর্ষক এক প্রতিবেদনে এমন তথ্য উঠে আসে।‘বড়দের’ হাইপারটেনশন, কিডনির জটিল রোগ, মধুমেহ-সহ অনেক রোগ রয়েছে। মহিলাদের স্বাস্থ্যের চিত্রটা আরো খারাপ।
ভারতে প্রতি দু’জন মহিলার মধ্যে একজন রক্তাল্পতায় ভোগেন বলে ইউনিসেফের প্রতিবেদনে বলা হয়।প্রতিবেদনে অনুযায়ী, পাঁচ বছরের কম বয়স যে শিশুদের, তাদের প্রতি পাঁচ জনের মধ্যে একজনের শরীরে ভিটামিন এ’র ঘাটতি দেখা যায়। প্রতি তিনজন শিশুর মধ্যে একজনের শরীরে ভিটামিন বি১২-এর অভাব রয়েছে। প্রতি পাঁচ জনের মধ্যে দু’জন ভোগে রক্তাল্পতায়। ‘মাইক্রো নিউট্রিয়েন্টস’র অভাবে রিকেট, রাতকানা এবং অন্ধত্বেরও ঘটনা ঘটে।
বাঁকুড়ার বিষ্ণুপুরের রামানন্দ কলেজের পুষ্টিবিদ‌্যার অধ‌্যাপিকা গার্গী বোসের বিশ্লেষণ অনুসারে, ‘আট মাস বয়সের পর শিশুদের মধ্যে অপুষ্টির সমস‌্যা বাড়ে। এর ফলে মৃত্যুও হয়। এর প্রধান কারণ, ওই বয়সে মাতৃদুগ্ধ পান করার অভ‌্যাস ছাড়িয়ে শিশুকে বাহিরের খাবার দেয়া হয়। কিন্তু বহুক্ষেত্রেই এই খাবার পরিমাণেও যথেষ্ট হয় না, আবার পুষ্টির নিরিখেও যথাযথ হয় না। কারণটা মূলত দারিদ্র‌্য ও অশিক্ষা ছাড়াও পুষ্টি এবং স্বাস্থ‌্য সংক্রান্ত সচেতনতার অভাব।’

Sunday, 20 October 2019

ওয়েব ডেস্ক ২০ই অক্টোবর ২০১৯: বিজেপিতে যে যা খুশি তাই বলে বেড়াচ্ছে , কোনো প্রোটোকল বলে কিছুই নেই । নরেন্দ্রমোদী নেতা মন্ত্রীদের উদ্দেশ্যে বলেছিলেন ক্যামেরার সামনে বা পেছনে বেফাঁস মন্তব্য যাতে কেউ না করে । কিন্তু কে শোনে কার কথা । দিলীপ ঘোষ থেকে বিপ্লব দেব যে যা খুশি তাই বলে বেড়িয়েছেন ।কদর্য কথাতেও টেক্কা দেওয়ার পথও বেছে নিয়েছেন ,এবার বেফাঁস মন্তব্য করে বসলেন  উত্তরপ্রদেশের দেওবন্দের বিজেপি সভাপতি গজরাজ রানা।
তার নিদান এবার ধানতেরাস উপলক্ষে দলের সমর্থকেরা সোনা কেনার বদলে যেন তরোয়াল কেনে । তাঁর মতে ভবিষ্যতে ওই তরোয়াল কাজে দেবে। এই মন্তব্য করার সঙ্গে সঙ্গে তৈরি হল নয়া বিতর্ক।সংবাদমাধ্যমে তিনি বলেন, ‘‌দেশের মানুষ চান অযোধ্যায় রামের একটি মন্দির হোক। এই বিষয়ে শীঘ্রই রায় দেবে সুপ্রিম কোর্ট। আশা করছি মন্দিরের পক্ষেই রায় দেবে সর্বোচ্চ আদালত। ফলে আইনশৃঙ্খলার অবনতি হতে পারে। তাই ধনতেরাসে সোনা–রুপো কেনার পরিবর্তে এবার তরোয়াল কেনা উচিত। নিজের রক্ষার জন্য তা কাজে দেবে।’‌ সঙ্গে সঙ্গে নেটিজেনদের ঝড় বয়ে গেছে । অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন , এসব নেতারা বিজেপিতে সুযোগ পায় কি করে ?
ওয়েব ডেস্ক ২০ই অক্টোবর ২০১৯: তিনি যে পক্ষপাতদুষ্ট নন, অর্থনৈতিতে নিজের  ভাবনাচিন্তা নিয়ে নিজের অবস্থানের কথা জানিয়ে দিলেন নোবেলজয়ী ভারতীয় অর্থনীতিবিদ অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়।
বাণিজ্যমন্ত্রী পীযূষ গোয়েলের এক বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে  শনিবার একথা জানান তিনি। অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, কোনও অর্থনৈতিক ভাবনাচিন্তা নিয়ে আমি পক্ষপাতদুষ্ট নই।
গত শুক্রবার পীযুষ গোয়েলের এক সমালোচনার পরিপ্রেক্ষিতে অভিজিৎ বলেন, আমার পেশাদারিত্ত্ব নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন বাণিজ্যমন্ত্রী। কংগ্রেসের জায়গায় যদি বিজেপি আমায় জিজ্ঞাসা করত, একটি নির্দিষ্ট আয়ের হার কত, তাহলে কি আমি সত্যিটা বলতাম না? আমি তাদের ঠিকটা বলেছিলাম, আমি ইচ্ছুক ছিলাম। একজন পেশাদার হিসেবে, আমি সবার সঙ্গে পেশাদারিত্ব রাখি।নোবেলজয়ী এই অর্থনীতিবিদ বলেন, আমরা যে কোনও রাজ্য সরকারের সঙ্গে কাজ করি, তাদের মধ্যে বেশিরভাগই বিজেপি সরকারের। যখন গুজরাটে নরেন্দ্র মোদি মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন, সেই সময় আমরা গুজরাট দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের সঙ্গে কাজ করেছি, এবং প্রকৃতপক্ষে আমাদের দারুণ অভিজ্ঞতা হয়েছিল। আমি বলব, তারা প্রমাণ চাইছিল এবং সেই অভিজ্ঞতা  থেকে পাওয়া নীতিগুলি কার্যকর করেছে।বিজেপি সরকারের আর্থিক নীতির কট্টর সমালোচক অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়। সম্প্রতি তিনি বলেন, ভারতের অর্থনীতি সঙ্কজনক অবস্থায় রয়েছে।
ওয়েব ডেস্ক ২০ই অক্টোবর ২০১৯: জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে কাশ্মীর ইস্যুতে পাকিস্তানের সুরে কথা বলেছে তুরস্ক। আর তাই নরেন্দ্র মোদির প্রস্তাবিত তুরস্ক সফর বাতিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত সরকার।ভারতের সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ প্রত্যাহার করা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে তুরস্ক। তুরস্কের এমন মন্তব্যের জেরে আপাতত ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আঙ্কারা সফর বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে নয়াদিল্লি।জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে কাশ্মীর ইস্যুতে পাকিস্তানের সুরে কথা বলেছে তুরস্ক। আর তাই নরেন্দ্র মোদির প্রস্তাবিত তুরস্ক সফর বাতিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত সরকার।ভারতের সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ প্রত্যাহার করা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে তুরস্ক। তুরস্কের এমন মন্তব্যের জেরে আপাতত  প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আঙ্কারা সফর বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে নয়াদিল্লি।
গত মাসে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে কাশ্মীর নিয়ে পাকিস্তানের মতামতকে সমর্থন জানিয়ে নরেন্দ্র মোদি সরকারের ভূমিকার তীব্র সমালোচনা করেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান। তিনি বলেন, কাশ্মীর ইস্যুকে দক্ষিণ এশিয়ার স্থিতিশীলতা এবং সমৃদ্ধি থেকে কোনোভাবেই আলাদা করা যায় না। তাই আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে এ সমস্যার সমাধান করা প্রয়োজন। সংঘর্ষের মাধ্যমে এ সমস্যার সমাধান নয়।গত জুনে জাপানের ওসাকায় তুরস্কের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে নরেন্দ্র মোদির সাক্ষাৎকালে এ সফরের বিষয়ে আলোচনা হয়। এর আগের পরিকল্পনা অনুযায়ী, চলতি বছরের শেষে তুরস্ক সফর করার কথা ছিল নরেন্দ্র মোদির।
পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র রাবীশ কুমার বলেন, তুরস্কের প্রেসিডেন্টের মন্তব্যকে আমলে দিতে চায় না ভারত। কারণ, কাশ্মীরের প্রসঙ্গটি সম্পূর্ণ ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়।
ওয়েব ডেস্ক ২০ই অক্টোবর ২০১৯: সার্জিকাল স্ট্রাইকের পর আরো একটি সাফল্যের পালক জুটলো ভারতীয় সেনা বাহিনীর মাথায় । জম্মু ও কাশ্মীরের কুপওয়ারা জেলায় পাকিস্তানি সেনাদের গুলিতে দুই ভারতীয় সেনা ও এক বেসামরিক নিহত হয়েছিল এর কয়েকঘন্টার মধ্যে দারুন প্রত্যাঘাত করল ভারতীয় সেনা বাহিনী ।
প্রথমত পাকিস্তানের  'স্পন্সরড' আতঙ্কবাদীরা ভারতের ঢোকার চেষ্টা করে , সেটা বানচাল করে দিয়েই , 'আর্টিলারি' আঘাতে পাকিস্তানের ৭ টি লঞ্চ প্যাড ধ্বংস করে দেয়। তিন বছর আগেকার 'সার্জিকাল স্ট্রাইকে ' ভারত পাকিস্তানের একাধিক লঞ্চ প্যাড ধ্বংস করে দেয় যেগুলি জঙ্গিদের সুবিদার্থে ব্যব্যহার করা হতো । আজ দুপুরের এই প্রত্যাঘাতে পাকিস্তানের ১০ জন সৈন্য মারা যায় , আর ৩৫ জন আতঙ্কবাদীদের শীর্ষ স্থানীয় স্বঘোষিত কমান্ডার নিহত হয় । 
loading...