Wednesday, 10 January 2018

মহারাষ্ট্রের হিংসার অন্যতম অভিযুক্ত জিগনেশ-উমরের দিল্লির সভা ফ্লপ; সমর্থকের থেকে সাংবাদিকের সংখ্যা বেশি

দিল্লি ৯ই জানুয়ারি :- কংগ্রেস সমর্থিত গুজরাটের নির্দল বিধায়ক ও মাহারাষ্টের জাতি দাঙ্গায় উস্কানিতে অভিযুক্ত জিগনেশ মেবানির বহুল প্রচারিত দিল্লির 'যুবা হুঙ্কার ৱ্যালি' একটি ফ্লপ শো তে পরিণত হলো ৷ সর্বভারতীয় চ্যানাল টাইমস নাও এর মতে ওই সভাতে ২০০-৩০০ জনের বেশি লোক সমাগম হলো না ৷ অধিকাংশ চেয়ারই ছিল ফাঁকা ৷



তথ্য অনুযায়ী ভিড়ের অধিকাংশই ছিলেন সাংবাদিক ৷ এই সভাতে দেশ বিভাজনের স্লোগানে অভিযুক্ত জে এন ইউ বিতর্কিত ছাত্র নেতা উমর খালিদ ও ছাত্র কাউন্সিলের পূর্ব অধ্যক্ষ কানাইয়া কুমার ও নেত্রী সাহিল রাশিদ অংশ গ্রহণ করেন ৷ এছাড়া ওই সভায় উকিল প্রশান্ত ভূষণ ও আসামের কৃষক নেতা অখিল গগৈ উপস্থিত ছিলেন ৷ ভিড় কম হওয়ায় সভাস্থল থেকে কিছু দূরে জে এন ইউ এর বর্তমান বামপন্থী ছাত্র নেতৃত্বকে চিন্তিত অবস্থায় ঘুরে বেড়াতে দেখা যায় ৷  

  
যদিও এই কম অনুপস্থিতি সম্পর্কে মেবানির সমর্থকেরা বলেন দিল্লি পুলিশ সভা করার অনুমতি না দেওয়ার জন্য সভায় ভিড় কম হয়েছে ৷ দিল্লি পুলিশ সভা করার জন্য কোনো অনুমতি না দেবার পরও জিগনেশ সভা করেন ৷ তথ্যাভিজ্ঞ মহল থেকে বলা হচ্ছে যে জিগনেশ ও পুলিশের মধ্যে একটি গোপন সমঝোতার পর তারা সমাবেশ শুরু করেন ৷ পুলিশও বিশাল জনসমাগমের আশঙ্কায় আইন শৃঙ্খলা বজায় রাখতে আঁটোসাঁটো নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয় ৷

ভীম আর্মির প্রতিষ্ঠাতা উগ্র দলিত নেতা চন্দ্রশেখর আজাদকে জেল থেকে মুক্তি দাবিতে এই সভা ডাকা হয়েছিল ৷ গত বছর উত্তরপ্রদেশের সাহারানপুর দলিত - ঠাকুর দের মধ্যে যে দাঙ্গা হয় তার প্রধান অভিযুক্ত ছিলেন আজাদ ৷ আত্মগোপন করা অবস্থায় তাকে হিমাচল প্রদেশ থেকে গ্রেফতার করেছিল উত্তরপ্রদেশ পুলিশ ৷ এই প্রসঙ্গে বিজেপির সূত্র থেকে বলা হয় সাম্প্রদায়িক বিভাজনের রাজনীতি মানুষ কোনোদিন ও মেনে নেয়নি ৷ দিল্লির বহুল চর্চিত সমাবেশে এতো কম ভিড় তাই আর একবার প্রমান করলো ৷


No comments:

Post a Comment

loading...