Thursday, 3 May 2018

"বিজেপি ,আরএসএস, সাম্প্রতিক কালে সবথেকে বেশি হিন্দুত্বের ক্ষতি করেছে" :শঙ্করাচার্য স্বরূপানন্দ

ওয়েব ডেস্ক ৩ রা ২০১৮:   রাষ্ট্রীয়  স্বয়ংসেবক সংঘ (আরএসএস) নিজেদের  দৃষ্টিভঙ্গিতে  হিন্দুধর্মকে পুনরায় স্থাপিত  করার চেষ্টা করছে । সাধুদের দৃষ্টিতে হিন্দু ধর্ম হলো শান্তির  প্রতীক , কিন্তু যেই ভাবে হিন্দু ধর্মকে  রাষ্ট্রীয়  স্বয়ংসেবক সংঘ বদনাম  করছে সেটা মোটেও ভালো চোখে  দেখছেননা সাধুরা ।
বিজেপি এবং আরএসএসের ভূমিকা সম্পর্কে মন্তব্য করে দেশব্যাপী সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা কেন্দ্রকরে , দ্বারকা পিঠের শঙ্করাচার্য স্বরূপানন্দ সরস্বতী বলেন, বিজেপি ও আরএসএস সাম্প্রতিক বছরগুলোতে হিন্দুধর্মের আদর্শকে সবচেয়ে বড় ক্ষতি করেছে।



তিনি আরও বলেন, এটা বিস্ময়ের ব্যাপার যে, আরএসএস প্রধান মোহন ভাগবত হিন্দুধর্ম সম্পর্কে কিছুই জানেন না।শঙ্করাচার্য স্বরূপানন্দ  প্রশ্ন করেন      "মোহন ভাগবত বলেছেন ভারতে যাদের জন্ম তারা সবাই হিন্দু , কিন্তু যাদের  ইংল্যান্ড , আমেরিকাতে জন্ম আর তাদের বাবা ,মায়েরাও হিন্দু ,তাহলে তারা কি ?"
এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বিজেপি নেতারা গরুর মাংসের সবচেয়ে বড় রপ্তানিকারক এবং এটা একই বিজেপি, যে গরু হত্যার  বিরুদ্ধে অভিযোগ করে আসছে , এবং বীফ রপ্তানিকে ভারতের কলঙ্ক হিসেবে বর্ণনা করে । তিনি জিজ্ঞাসা করেন, বিজেপি যেই  প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল তা কোনটাই  পালন করতে সক্ষম হয়েছে কিনা । তিনি দাবি করেছেন জানবার জন্য  ধারা ৩৭০কে কাশ্মীর থেকে অপসারণ করা হয়েছে ?, দেশের তরুণদের লাভজনক কর্মসংস্থান দেওয়া হয়েছে ?, ভারতের  দরিদ্র জনগোষ্ঠীকে ১৫  লাখ টাকা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল ,সেটা বিজেপি করেছে কিনা , রাম মন্দিরটি অযোধ্যায় নির্মিত করার প্রতিস্তুতি দিয়েছিলো বিজেপি সেটা করেছে কি ? তিনি বলেন, এই প্রশ্নগুলি  প্রধানমন্ত্রী মোদির সহ বিজেপি নেতারা এখন উত্তর দিতে ব্যর্থ , কিন্তু ২০১৪  সালের নির্বাচনে প্রচারের সময় বিজেপি এইসব  প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল ক্ষমতায় আসার জন্য ।

আশারামের  ধর্ষণের মামলায় যাব্বজীবন কারাবাস  সম্পর্কে মন্তব্য করে শংকরাচার্য বলেন, "আসারামকে আইনের অধীনে শাস্তি দেওয়া হয়েছে , তবে হিন্দু ধর্ম অনুসারে সেটি দেওয়া এখনো বাকি আছে । শুধু আশারাম নয়, তার পুত্র নারায়ণ স্বামীকেও  কঠোর শাস্তি সম্মুখীন হতে হবে । হিন্দুধর্মের এই ধরনের আত্মনির্ভরশীল ভন্ড  লোকেদের  জন্য কোন স্থান নেই  এবং জনগণ  যতদিন বোকা হয়ে থাকবে  এ ধরনের লোকের সংখ্যা চিরকাল বাড়তে থাকবে। "
ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে কর আদায়ের  বিষয়ে তার মন্তব্য সম্পর্কে জানতে চাইলে শংকরাচার্য বলেন , জনগণের উপর কর আরোপ করার আগে সরকারকে প্রথমে নিজের ব্যয় নিয়ন্ত্রণ করা উচিত । সাধারণ মানুষদের ওপর কর চাপানোর আগে  সংসদ সদস্য ও বিধায়কদের  আগে নিজেদের বেতন কমানো উচিত ।
তথ্য সূত্র ইন্ডিয়া টুডে 

No comments:

Post a Comment

loading...