Thursday, 7 June 2018

সেনার বরাদ্দে কেন্দ্রের কাটছাট, এবার নিজের টাকাতেই সৈনিককে কিনতে হবে পোশাক ??

ওয়েব ডেস্ক ৭ই জুন ২০১৮ :ভারতের দ্রুততম ক্রমবর্ধমান অর্থনীতির দাবি একটি  কঠিন সত্যের মুখোমুখি এসে থমকে দাঁড়ালো কারণ  প্রতিরক্ষা বাহিনীর গুরুত্বপূর্ণ চাহিদার জন্য সরকারের কাছে যথেষ্ট অর্থ নেই। ভারতীয় সেনাবাহিনী, রাষ্ট্রায়ত্ত  অস্ত্র  কারখানার কাছ থেকে সরবরাহের পরিমাণ ৯৪ % থেকে ৫০% পর্যন্ত কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে ,এবং সরকারী খাতের ইউনিট ব্যর্থ হওয়ার দরুন  সংক্ষিপ্ত তীব্র যুদ্ধের জন্য গুরুত্ব পূর্ণ অস্ত্র পুনরায় ভরাট করার জন্য সেই সঞ্চয়ের অর্থ বিনিয়োগ করা হবে বলে জানিয়েছে ।

সূত্রের খবর ,কেন্দ্রের তরফ থেকে সামরিক খাতে অতিরিক্ত অর্থ বরাদ্দ বন্ধ করা হয়েছে , যদিও আর্থিক বিকাশের ব্যাপারে কেন্দ্র সরকার মার্কেটিং চালিয়েই যাচ্ছে ।আর এরই জন্য আগামী দিনে সৈন্যদের ,যুদ্ধের পোশাক ,জামা কাপড় এবং জুতো সরবরাহে টান পরবে । তার মানে এটাই হচ্ছে , সৈনিকদের সাধারণ বাজার থেকে এই জিনিসগুলো নিজেদের পয়সায় কিনতে হবে ।

সামরিক বাহিনী তিনটে প্রজেক্টএ কাজ করছে সামরিক অস্ত্র ভান্ডার মজুত রাখার লক্ষ্যে  , কিন্তু কেন্দ্র সরকার পর্যাপ্ত পরিমানের টাকা সরবরাহ না করার জন্য  ,সামরিক বাহিনী অস্ত্র ভান্ডার মজুত করার জন্য অন্যান্য বাজেট  কমাতে বাধ্য হয়েছে ।
একজন সামরিক আধিকারিকের কথায়, অস্ত্র ভান্ডার মজুত করার জন্য  প্রায় ৫  হাজার কোটি টাকা খরচ  করা হয়েছে এবং এখনও ৬ ,৭৩৯ .৮৩  কোটি টাকার  জিনিস আনা জরুরি ।
একজন আধিকারিকের কথায় অর্ডিন্যান্স কারখানা পর্যাপ্ত পরিমানের  যুদ্ধের সরন্জাম উৎপাদন করতে পারেনি বলেই তাদের ১১০০০ হাজার কোটি টাকার থেকে ৮০০০ কোটি টাকায় তাদের বরাদ্দ নামিয়ে নিয়ে এসেছে  ।কেন্দ্রের এই বরাদ্দ কমানোর জন্য সৈনিকদের যুদ্ধের পোশাক, বেল্ট, জুতোর ওপর কোপ পড়ছে ,যেটা একান্ত কাম্য নয় ।

No comments:

Post a Comment

loading...