Tuesday, 12 June 2018

কৃষক আন্দোলনের জেরে মোদী সরকারের বুলেট ট্রেন অন্ধকারে

ওয়েব ডেস্ক ১২ই জুন ২০১৮ : প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সবচেয়ে উচ্চাভিলাষী প্রকল্প বলে চিহ্নিত,  জাপানের ১৭  বিলিয়ন ডলারের বুলেট ট্রেন যেটা গুজরাটের সঙ্গে মুম্বাইয়ের যোগাযোগ করবে, সেটা   ফলের উৎপাদনকারী কৃষকদের  বিক্ষোভের জন্য ,  ডিসেম্বরের মধ্যে জমি অধিগ্রহণের সময়সীমা ফস্কাবে বলে জানাচ্ছে সরকারি আধিকারিকরা ।


মোদীর কার্যালয় এখন সপ্তাহে সপ্তাহে প্রকল্পটি পর্যবেক্ষণ করছে, কারণ ভারতীয় আধিকারিকরা  টোকিওকে আশ্বস্ত করার চেষ্টা করছেন এই বলে , মহারাষ্ট্রের  কৃষকদের  সঙ্গে তীব্র আলোচনার মাধ্যমে বাধা দূর করা হবে । স্থানীয় নেতাদের উস্কানিতে ১০৮ কিমি দীর্ঘ রেল পথের একটা অংশ অধিগ্রহণ করতে কেন্দ্রীয় সরকার হিমশিমকে খাচ্ছে ।পরিস্তিতি খুবিই উত্তপ্ত , কৃষকরা এককাট্টা ,কিছুতেই তারা তাদের কষ্টের ফলের জমি দেবেননা । কৃষকদের একাংশের দাবি , তাদের পরিবারের দুজন বা তিন জন যদি সরকার চাকরি দেওয়ার প্রতিস্তুতি দেয় ,সে ক্ষেত্রে তারা ভেবে দেখতে পারে জমি দেওয়ায় ব্যাপারে ।
মজার ব্যাপার হচ্ছে , নির্ধারিত সময়ের মধ্যে কেন্দ্রীয় সরকার জমির যোগান দিতে না পারলে, জাপান আন্তর্জাতিক সহযোগিতা সংস্থার (জাইকা) লোন দেওয়া বন্ধ করে দেবে ।প্রসঙ্গত সামনের মাসেই তারা আসছে , পর্যবেক্ষণ করতে ।নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দু জন রেল আধিকারিক এ কথা বলেন । জাপানের উদ্বেগকে প্রশমিত করার জন্য এমাসেই  ভারতীয় আধিকারিকরা জাপানের আধিকারিকদের সঙ্গে কথা বলে ,প্রকল্প একবছর আগেই কি করে শেষ করা যায় তাই নিয়ে কথা বার্তা চলবে । কেন্দ্রীয় সরকার চাইছে ,৭৫ তম স্বাধীনতা দিবসেই যেন বুলেট ট্রেন উদ্বোধন করা যায় । মহারাষ্ট্রের পালঘরে কৃষকরা এর বিরোধিতা করে বলছে ,এই প্রকল্প শুধুমাত্র টাকা নষ্ট ছাড়া আর কিছুই নয় ।তারা জম দেবেননা বলে বদ্ধপরিকর । 

No comments:

Post a Comment

loading...