Friday, 27 July 2018

মোদির আমদানি নীতির জন্য দু লক্ষেরও বেশি লোক চাকরি খুইয়েছেন বিজেপি জামানায়

ওয়েব ডেস্ক ২৭শে জুলাই ২০১৮ :  নরেন্দ্র মোদী ভারতের মসনদে বসার পরই দাবি করেছিলেন "আচ্ছে দিন আনেওয়ালে  হ্যায় " । এটাই কি আছে দিন ? যেখানে মোদির আমদানি নীতির জন্য এখনো পর্যন্ত  দু লক্ষেরও বেশি লোক চাকরি খুইয়েছেন । সংসদে স্ট্যান্ডিং কমিটির রিপোর্ট অনুসারে বহুদিন ধরেই ভারত চীনের তৈরী সোলার প্যানেল আমদানি করছিলো যার জন্য এই অবস্থা ।
শুধু সোলার প্যানেল নয়, চীনা জিনিসপত্র আমদানিতে ক্ষতি হয়েছে অন্যান্য শিল্পেরও।

Image result for pics of xi jinping + narendra modi

এর মধ্যে রয়েছে খেলনা, সাইকেল, ওষুধ এবং বয়নশিল্পও। খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির রাজ্য গুজরাটের সুরাট এবং ভিওয়ান্ডিতে বন্ধ হয়ে গিয়েছে ৩৫ শতাংশ পাওয়ারলুম। কিন্তু সব জেনে শুনেও নরেন্দ্র মোদী সরকার চুপ করে আছে । ২০০৬ থেকে ২০১ ১  ভারতে তৈরী সোলার প্যানেল ফ্রান্স ,ইতালিতে রপ্তানি হত, কিন্তু আস্তে আস্তে ভারতের এই বাজার ধরে নেয় চীন ,শুধু তাই নয় ,ভারতের বাজার তাদের আওতায় চলে যায় । এদিকে, বয়নশিল্পও মারাত্মক ক্ষতির মুখে পড়েছে। ফেব্রিক, সুতির কাপড়ে জিএসটি বসানোয় সেগুলি দিয়ে তৈরি বস্ত্রের দাম বেড়ে গিয়েছে। আর তাই সেই জায়গা নিয়েছে চীনের সস্তা পলিয়েস্টার। বন্ধ হয়ে গিয়েছে সুরাট–ভিওয়ান্ডির ৩৫ শতাংশ পাওয়ারলুম ইউনিট। এছাড়া খেলনা, ওষুধপত্র ও সাইকেল বিক্রেতারাও চীনা জিনিসপত্রের জেরে লোকসানে পড়েছেন। বিদ্যজনেদের একাংশ প্রশ্ন তুলেছেন কেন তাহলে সব জেনে শুনে মোদী সরকার  কেন ফ্যাব্রিক ,সুতির কাপড়ে জি এস.টি বসাতে গেল ? ইটা কি উদেশ্য প্রনোদিত নয় ? শুধু চীন কে খুশি করার জন্যই কি এরকম পদক্ষেপ ? রিপোর্টে আরো উল্লেখ করা হয়েছে সোলার প্যানেলে ক্ষতিকারক অ্যান্টিমনি ব্যাবর করা হচ্ছে । শুধু সোলার প্যানেলের নয় ,এল ই ডি বাল্বে এমন ক্ষতিকারক রাসায়নিক ব্যবহার করা হচ্ছে , সেটি চোখের পক্ষে খুবই খারাপ । এর বিরুদ্ধেও কড়া অবস্থান নিতে বলা হয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার ।  

No comments:

Post a Comment

loading...