Friday, 13 July 2018

আমিরশাহির সাথে ভালো সম্পর্ক থাকা সত্ত্বেও কেন্দ্রের কূটনৈতিক ব্যর্থতার জন্য দুষ্কৃতী পাকিস্তানের হাতে চলে গেল

ওয়েব ডেস্ক ১৩ই জুলাই ২০১৮ : মালয়েশিয়ার সরকার জাকির নায়েককে ভারতের হাতে তুলে দিতে অস্বীকার করার পর আরও একবার মুখ পুড়ল ভারতের  , যখন সুসম্পর্ক থাকা সত্ত্বেও আরব আমিরশাহী কুখ্যাত অপরাধী ফারুক দেবদিওয়ালাকে পাকিস্তানের হাতে তুলে দিল আরব আমিরশাহির পুলিশ । 

Image result for pics of farooq devdiwala




কে এই ফারুক দেবদিওয়ালা? তিনি উন্দের্বর্ল্ড ডন ,দাউদ ইব্রাহিমের ভাই ছোট শাকিলের রাইট হ্যান্ড হিসেবে । দেবদীর একটি গুরুত্বপূর্ণ লিংক কারণ তিনি আইএসআই সদস্যদের সাথে যোগাযোগের পাশাপাশি পাকিস্তানে সন্ত্রাসী কক্ষ হিসেবে পরিচিত। এর আগে গুজরাটের ডি-গ্যাং অপারেশনে জড়িত থাকাকালেও দাউদ ও ছোট শিকেলের সাথে তার অনেক তথ্য রয়েছে।
ভারতীয় সংস্থাগুলির মতে, ২০০২  সালে গোধরায়ের দাঙ্গার পর  গুজরাটে ২ কেজি আরডিএক্স চোরাচালানের  ব্যাপারেও সক্রিয় ভূমিকা পালন করে এই কুখ্যাত ফারুক , যদিও গুজরাট পুলিশের তৎপরতায় সেই আরডিএক্স মাঝপথেই উদ্ধার করা হয়  ।এখানেই শেষ নয় , ফারুকের আত্মীয় বলে পরিচিত ফৈজাল মির্জা , এবং আর এক ব্যক্তি নাম আল্লারাখা মুনসুরিকে পাকিস্তানে অস্ত্র প্রশিক্ষণের জন্য নিয়ে গিয়েছিলেন এই ফারুক , যদিও মির্জা এবং মুনসুরি দুজনেই এখন এ.টি.এস এর হেফাজতে ।তবে আরব আমিরশাহী ফারুককে পাকিস্তানের হাতে তুলে দিয়ে ভারতের মুখ পুড়িয়েছে বলেই মনে করছে , বিদ্যজনের মহল ।
যদিও পাকিস্তানের দাবি, ফারুক দেবদিওয়ালা ভারতীয় নয়, তাদের দেশের নাগরিক। তাই দুবাই পুলিস তাদের কথামতো ফারুককে ইসলামাবাদেই পাঠাবে আর সেটাই আতঙ্কের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে এ দেশের গোয়েন্দাদের কাছে। যদিও গুজরাটের জঙ্গি–দমন শাখার দাবি, ফারুকের আত্মীয়রা এ দেশেই থাকে এবং সে গুজরাট এবং মুম্বইয়ের বাসিন্দা ছিল। এ সংক্রান্ত প্রমাণ নিয়ে দুবাইতে জঙ্গি–দমন শাখা তাদের দল পাঠিয়েছিল, কিন্তু খালি হাতেই ফিরতে হয়েছে তাদের। অন্যদিকে ফারুকের পাকিস্তানি পাসপোর্ট অনুযায়ী, সে দুবাইয়ের বাসিন্দা বলে জানা যাচ্ছে। তাই এ ক্ষেত্রে ভারত কূটনৈতিক ভাবে পরাজয়ের স্বীকার
হোবলে মনে করা হচ্ছে ।

No comments:

Post a Comment

loading...