Monday, 2 July 2018

মান্দসৌরের বলাত্কারীর মৃতদেহকে কবর না দেওয়ার সিদ্ধান্ত মুসলিম নেতাদের

ওয়েবডেস্ক  ২রা জুলাই ২০১৮ :মান্দসৌরের সাত বছর বয়সী মেয়ের  ধর্ষণের ঘটনাকে কেন্দ্রকরে শোকস্তব্ধ এবং নিন্দায় সরব  মুসলিম সম্প্রদায়ের নেতারা বৃহস্পতিবার বলাত্কারীর   মৃত্যুদণ্ড দাবি জানিয়েছেন ।তারা ঘোষণা করে বলাত্কারীর  মৃতদেহ জেলার কোনও কমিউনিটি কবরস্থানে সমাহিত করার অনুমতি দেওয়া হবেনা ।"মুসলিম সম্প্রদায়ে এরকম  দৈত্যের জন্য কোন জায়গা নেই। তাকে ফাঁসিতে ঝোলানো  উচিত ", ওয়াক্ফ আঞ্জুমান ইসলামের কমিটি সভাপতি  মোহাম্মদ ইউনুস শেখ একটি প্রতিনিধিদল নিয়ে মান্দসৌরের এসপি মনোজ সিংকে একটি স্মারকলিপি জমা দেওয়ার পর সাংবাদিকদের এ কথা  জানান।


mandsaur2-ed

ফৌজদারি মামলায় দ্রুত এই মামলার নিষ্পত্তি এবং মৃত্যুদণ্ডের দাবিতে  বেশ কিছু মুসলিম সংগঠন এগিয়ে এসেছে । এই ভয়াভহ ধর্ষণের জন্য পুলিশ ইরফান মেভ ওরফে ভাইয়ুকে গ্রেফতার করেছে । শেখ বলেন ""এই ধরনের একটি জঘন্য অপরাধ ক্ষমার অযোগ্য । তাই আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি এই  অপরাধীর মৃতদেহ, জেলার কোনও কমিউনিটি কবরস্থানে সমাহিত করার অনুমতি দেবনা  "।
মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান পুলিশ প্রশাসনকে পুঙ্খানুপুঙ্খ তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন এবং দ্রুত বিচার শেষ  করার নির্দেশ দিয়েছেন, মান্দসৌরের বিধায়ক  যশপাল সিংহ সিসোদিয়া  এ কথা বলেন।
বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ইনডোরে   অস্ত্রোপচারের পর মেয়েটির জীবন এখনও বিপদ মুক্ত নয় । ডাক্তাররা জানিয়েছেন একটি তীক্ষ্ণ বস্তু দিতে মেয়েটির গোপনাঙ্গে আঘাতের ফলে ব্যাপক ক্ষয় ক্ষতি হয়েছে।যদিও পুলিশ ইরফানকে  গ্রেফতার করেছে, তবে  অন্য দুষ্কর্মীদের জড়িত থাকার কথাও একেবারে উড়িয়ে দিচ্ছে না ।
পুলিশ সিসিটিভি  ফুটেজ দেখেই   ইরফানকে  গ্রেফতার করেছে। শিশুটির রক্তপাতিত ইউনিফর্মটি পুলিশ উদ্ধার করেছে বলে জানা গিয়েছে । ইরফানকে  পোকোসোর অধীনে, বার বার  যৌন নিগ্রহ  এবং আইপিসি ধারা অনুসারে  অপহরণ, ধর্ষণ ও হত্যার চেষ্টা করার অভিযোগে মামলা রুজু করা হয়েছে । এখন অভিযুক্তকে  পাঁচ দিনের জন্য  পুলিশ রিমান্ডে রাখা হয়েছে ।বার এসোসিয়েশনের তরফ থেকে ইরফানের স্বপক্ষে আইনি লড়াই না লড়ার সিদ্ধান্তও  নেওয়া হয়েছে ।



চিত্র ও তথ্য সংগ্রহে কৃতজ্ঞতা স্বীকার "টাইমস অফ ইন্ডিয়া "

No comments:

Post a Comment

loading...