Wednesday, 18 July 2018

হিন্দু ধর্মে তালিবান প্রথা আমদানি করেছে বিজেপি :শশী থারুর

ওয়েব ডেস্ক ১৮ই জুলাই ২০১৮ : একই সারা ভারত উত্তাল হয়েছিলো শশী থারুরের হিন্দু পাকিস্তান মন্তব্যের জেরে , সেই আগুন নিভতে না নিভতে আবার একটি মন্তব্য করলেন ,যা নিস্বন্দেহে বিজেপির রক্তচাপ বৃদ্ধি করবে ।তিরুবন্তপুরমের এক সমাবেশে শশী থারুর বলেন "হিন্দুধর্মে তালিবান প্রথা’‌ শুরু করে দিয়েছে বিজেপি। তিনি বলেন, ‘‌আপনারা কি আমায় পাকিস্তানে চলে যেতে বলছেন। আমি আপনাদের মত হিন্দু নই এবং আমার এ দেশে থাকার অধিকার নেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়ার অধিকার আপনাদের কে দিয়েছে? হিন্দুধর্মে তালিবান প্রথা শুরু করে দিয়েছেন আপনারা।" এ কথা বলার সঙ্গে সঙ্গেই বিজেপি সমথকেরা ক্ষিপ্র হয়ে ওঠেন ।তারা শশী থারুরের কার্যালয়ের দরজা জানলা থেকে শুরু করে সব জায়গায় ইঞ্জিনের কালো কি দিয়ে লেপে দেন ।


Image result for pics of shashi tharoor

এখানেই শেষ নয় তারা শশী থারুরকে পাকিস্তান চলে যেতেও বলেন । বিজেপির এরকম কাজকর্মে বিচলিত থারুর টুইট জানান "‘‌আজ @‌যুবমোর্চাবিজেপি তিরুবন্তপুরমে আমার সংসদীয় দপ্তরে ভাঙচুর চালায়। তারা আমার দপ্তরের সাইন বোর্ড, দরজা, জানলা, দেওয়ালে কালো ইঞ্জিন তেল দিয়ে লেপে দেয়। সেইসময় সাধারণ মানুষ তাঁদের আবেদন নিয়ে আমার দপ্তরে এসেছিলেন। তারা কিছু আক্রমণাত্মক পোস্টার দপ্তরের দেওয়ালে লাগান এবং আমায় পাকিস্তানে চলে যাওয়ার স্লোগান দেন। বিজেপি আমার কিছু সহজ প্রশ্নের উত্তর দিক। আপনারা কী হিন্দু রাষ্ট্রের স্বপ্ন দেখছেন?‌ এভাবে ভাঙচুর এবং হিংসাত্মক ঘটনা ঘটিয়ে সেই স্বপ্ন পূরণ হবে না। তিরুবন্তপুরম আজ দেখল বিজেপির আসল চেহারা। হিন্দুদের মধ্যে অনেকেই জানিয়েছেন এ ধরনের সংঘ গুণ্ডা আমাদের প্রতিনিধি হতে পারে না।"
বিক্ষোভকারীদের উদেশ্য করে শশী বলেন " ‘‌সাধারণ মানুষ উদ্বেগ নিয়ে আমার দপ্তরে এসেছিলেন। কিন্তু আপনারা তাঁদের ভয় দেখিয়ে এখান থেকে চলে যেতে বাধ্য করেছেন। দেশে এটাই কী আমরা চাই?‌ আমি সাংসদ হিসাবে নয়, সাধারণ মানুষ হয়ে জিজ্ঞাসা করছি। আমি যতদূর জানি এটা হিন্দু ধর্ম হতে পারে না।’‌ তিরুবন্তপুরমের জেলা বিজেপি সভাপতি এস সুরেশ জানান, ভুল মন্তব্যের কারণেই এ ধরনের বিক্ষোভের মুখে পড়তে হয়েছে শশী থারুরকে। এটা হওয়াটা খুব স্বাভাবিক। গত সপ্তাহেই শশী থারুর তাঁর এক মন্তব্যে বলেন, ‘‌২০১৯–এর লোকসভা নির্বাচনের পর বিজেপি যদি পুনরায় ক্ষমতায় আসে ভারত ধীরে ধীরে হিন্দু–পাকিস্তানে পরিণত হবে।’‌"
বিদ্যজনেদের একাংশের মত শশী থারুর চিরকালই স্পষ্টবাদী হিসেবে পরিচিত , এবং সত্যি কথা বলতে ভয়পান না , তবে অপ্রিয় সত্যি কথাটা না বললেও পারতেন ।









তথ্য কৃতজ্ঞতা স্বীকার "আজকাল "

No comments:

Post a Comment

loading...