Monday, 13 August 2018

ব্যক্তি কুৎসার প্রতিবাদে অমিত শাহকে আইনি নোটিশ অভিষেক ব্যানার্জীর

ওয়েব ডেস্ক,১৩ই অগাস্ট :-  গত ১১ ই অগাস্ট কলকাতার মেয়ো রোডে বিজেপি যুব মোর্চার সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় উপস্থিত ছিলেন বিজেপির রাজ্য নেতৃত্ব সহ বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। সেই সভা থেকে বেনজির ভাবে অমিত শাহ আক্রমণ করেন সর্বভারতীয় তৃণমূল যুব কংগ্রেস সভাপতি অভিষেক ব্যানার্জীকে। বলা বাহুল্য সেই আক্রমণ রাজনৈতিক তো ছিলই না, বরং অমিত শাহ ব্যস্ত ছিলেন অভিষেক ব্যানার্জীকে ব্যক্তিগত আক্রমণ ও কুৎসায়। এরপরই অভিষেক ব্যানার্জী অমিত শাহকে মন্তব্য প্রত্যাহার করে নেবার জন্য ৭২ ঘন্টা সময় দিয়েছিলেন। অমিত শাহ সেই মন্তব্য প্রত্যাহার না করায় আজ অভিষেক ব্যানার্জী অমিত শাহকে মানহানির উকিল নোটিশ ধরালেন।



গত ১১ তারিখের সভায় অমিত শাহ নজির বিহীন ভাবে একের পর এক অভিযোগ তোলেন। যেমন সেদিন নাকি তৃণমূলের চাপে বাংলা চ্যানেল গুলি অমিত শাহের সভার সম্প্রচার করেনি। পরে যা সর্বৈব মিথ্যা বলে প্রমাণিত হয়। তবে তার অন্য বক্তব্য গুলির  মধ্যে সবথেকে আশ্চর্য্য জনক ছিল অভিষেক ব্যানার্জীর বিরুদ্ধে করা ব্যক্তিগত "ভিত্তিহীন অভিযোগ" ও কুৎসা যা বাংলার রাজনীতিতে সচরাচর দেখা যায় না। এরপর তৃণমূলের তরফ থেকে তার ওই সব অভিযোগকে খণ্ডন করা হয় এবং তাঁকে ক্ষমা চাইতে বলা হয়। অনেকেই সেদিন এই ক্ষমা চাওয়ার বিষয়টিকে নিছক রাজনৈতিক যুদ্ধ বলেছিলেন। কিন্তু অমিত শাহ  ক্ষমা না চাওয়ায় আজ অভিষেক ব্যানার্জীর উকিলের তরফ থেকে তাঁকে নোটিশ পাঠানোয় একটা জিনিস পরিষ্কার হয়ে গেলো যে রাজনীতি বা আদালত কোনো ময়দানেই তৃণমূল পশ্চিমবাংলায় বিজেপিকে একইঞ্চি জমি ছাড়বে না।

বাংলার রাজনীতিতে অভিষেক ব্যানার্জীর প্রভাব ক্রমাগত বেড়ে চলেছে। সেই প্রভাবে বিচলিত হয়ে বারংবার বিজেপির নেতা মন্ত্রীরা রাজনৈতিক অভিধান ভুলে অভিষেক ব্যানার্জীকে ব্যক্তিগত আক্রমণে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। এর আগে বিজেপি নেতা মুকুল রায় "বিশ্ব বাংলা" লোগো নিয়ে অভিষেক ব্যানার্জীর নামে একাধিক অভিযোগ তোলেন। সেই অভিযোগও ছিল ব্যক্তি আক্রমণ ও কুৎসায় ভরা। সেই বারও অভিষেক ব্যানার্জী আদালতে মামলা করেন এবং সেই মামলায় মুকুল বাবু অভিযোগ মিথ্যা প্রমাণিত হয়; আদালত তাঁকে অভিষেক ব্যানার্জীর কাছে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে বলেন। আইন অভিজ্ঞমহলের থেকে বলা হচ্ছে অমিত বাবু যে ভাবে অভিষেক ব্যানার্জীর নামে প্রকাশ্য জনসভায় ভিত্তিহীন অভিযোগ তুলেছেন তাতে তার হালও মুকুল রায়ের মত হওয়া শুধুমাত্র সময়ের অপেক্ষা। 

No comments:

Post a Comment

loading...