Sunday, 26 August 2018

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারকে প্রশংসার পাশাপাশি ,কমিউনিস্টদের একহাত নিলেন অমর্ত্য সেন

ওয়েব ডেস্ক ২৬শে অগাস্ট ২০১৮ :অমর্ত্য সেনকে সারা দুনিয়া বামপন্থী ধারায় বিশ্বাসী বলে জানেন  ।তিনি আজকের আলিমুদ্দিন বা প্রকাশ কারাতের বামপন্থার ওপর কালো মেঘ দেখতে পেরেছেন সেটা অনেকেরই হয়তো জানা ছিলোনা ।গতকাল কমিউনিস্টদের একহাত নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তৃণমূলকে যে প্রশংসা করেছেন , কমিউনিস্টদের খারাপ লাগাটা স্বাভাবিক , হয়তো এটাই তাদের প্রাপ্য ছিল ।

 শনিবার শিশির মঞ্চে প্রতীচি ইনস্টিটিউট আয়োজিত ‘‌ভারত কোন পথে’‌ শীর্ষক আলোচনায় অংশ নিয়ে অমর্ত্য জানান এনআরসি ইস্যুতে তৃণমূল আগে আসামে পৌঁছে প্রতিবাদ জানিয়েছে। এটা বামদের পক্ষে গর্বের বিষয় নয়। তাঁর কথায়, ‘‌বামপন্থীদের উচিত ধর্মনিরপেক্ষ অন্য দলগুলির সঙ্গে সাম্প্রদায়িক বিভাজনের বিরুদ্ধে কাজ করা।’‌ সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে বামপন্থীরাই একমাত্র বিকল্প— এই দাবির প্রেক্ষিতে নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ বলেন, ‘‌আমি নিজেও বামপন্থী। কিন্তু সমস্ত সমস্যার ডানপন্থী–বামপন্থী হয় না। ধর্মনিরপেক্ষতার বিষয়ে শুধুমাত্র বামপন্থায় জোর দেওয়া ভুল পন্থা। প্রচুর মানুষের সঙ্গে হাত মেলাতে হবে। হাত মেলানো মানেই সব বিষয়ে এক হতে হবে তা নয়। বামপন্থী নেতৃত্বের প্রয়োজনীয়তা আছে। তবে এর মধ্য দিয়ে শুধু ধর্মনিরপেক্ষতার কথা ভাবলে চলবে না। এটা রাজনৈতিক সূক্ষ্মতা নয়। রাষ্ট্রের সঙ্গে ধর্মের কোনও যোগ থাকা উচিত নয়। তবে চট করে এটা বাদ দেওয়াও যাবে না।’‌ নারী নির্যাতন ও নারীপাচারে ভারতের স্থান নিয়ে অমর্ত্য বলেন, ‘‌এটা অত্যন্ত লজ্জাকর। আমাদের দেশের একাধিক সমস্যার মধ্যে এটা একটা।’‌ তাঁর বক্তব্য, ‘দেশে যে পরিস্থিতি চলছে, তাতে গণতন্ত্র কিছুটা বিপন্ন বলা যেতেই পারে। কিন্তু এই বিপন্নতাকে বেশি প্রশ্রয় দিলে চলবে না। গণতন্ত্রের প্রচুর খামতি দেখা যাচ্ছে। নির্বাচন ও বিচারের ক্ষেত্রে এই বিপন্নতা বেশি করে ফুটে উঠছে। তবে নৌকাডুবির মতো পরিস্থিতি এখনও হয়নি। মৌলিক কাঠামো না বদলেও অনেক কিছু করা যায়।’ ২০১৯–এ লোকসভা নির্বাচন সম্পর্কে তাঁর বক্তব্য, ‘আমার ধারণা, আগের নির্বাচনে রাজনীতির কুচিন্তায় গুরু একটা দল ক্ষমতায় এসেছে। গণতান্ত্রিক নির্বাচনে এমন হওয়ার কথা নয়।’‌ অমর্ত্য সেনের কথাতেই স্পষ্ট ,আজকের কমিউনিস্টদের ---মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের  দেওয়া বিশেষণ অনুযায়ী "পিকুলিয়ার"--ভেবে দেখা উচিত তারা কোথায় কোথায় ভুল করেছে , আর শুধু ক্ষমা না চেয়ে প্রায়শ্চিত্ত কি ভাবে করা যাই তার বিষয়ে চিন্তা করা ।অন্তত বিদ্যজনেদের এটাই মত ।



তথ্য কৃতজ্ঞতা স্বীকার "আজকাল "

No comments:

Post a Comment

loading...