Friday, 3 August 2018

অসম নিয়ে স্বাভাবিক থাকার চেষ্টা করেও উদ্বিগ্নর বাতাবরণ বাংলাদেশে

ওয়েব ডেস্ক ৩রা অগাস্ট ,২০১৮ :  অসমের নাগরিক পঞ্জী বাংলাদেশকেও চিন্তায় ফেলে দিল , অন্তত সেরকমটাই মনে হচ্ছে বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খানের কথায় , তিনি বলেন ‘‌আশা করব, এমনটা হবে না! কারণ, ‘‌অনুপ্রবেশকারী’‌ হিসেবে যাঁদের তুলে ধরা হচ্ছে, তঁারা যে সবাই বাংলাদেশি, তেমনটা মোটেই নয়। আমি মনে করি না তালিকা থেকে নাম বাদ পড়া প্রত্যেকে বাংলাদেশি। কারণ, এর সপক্ষে কোনও যুক্তিযুক্ত প্রমাণ নেই।’‌ আসাদুজ্জামান বলেন, ‘‌এটা ঠিক ১৯৭১–এ বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার সময় বেশ কিছু বাংলাদেশি এদেশ ছেড়ে চলে গেছেন।
পরে তাঁরা বিশ্বের বিভিন্ন দেশে স্থায়ী হয়ে গেছেন। ফলে ভারতের ওই বিশাল সংখ্যক মানুষকে বাংলাদেশের বলে চালানো এক কথায় অর্থহীন। তবে যদি ওই দাবিকে প্রতিষ্ঠা করতে কোনও দৃঢ় তথ্যপ্রমাণ হাজির করা হয় এবং তা যথার্থ হিসেবে প্রমাণিত হয়, তাহলে তাঁদের দেশে ফিরিয়ে নিতে অসুবিধা নেই। কিন্তু এর জন্য দরকার কথোপথনের এবং তথ্যপ্রমাণের।’‌ বাংলাদেশের সম্প্রচার মন্ত্রী আবার মনে করেন এটা ভারতের অভ্যন্তরীণ ব্যাপার এখানে বাংলাদেশের কোন যোগ নেই ।সম্প্রচার মন্ত্রী হাসান উল হল ইনুকে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি  বিবৃতি দেন "‘‌সবাই জানে অসমে এটা নতুন কিছু নয়। গত একশো বছর ধরে এই জাতিদ্বন্দ্ব চলছে। গত ৪৮ বছরে ভারতের কোনও সরকার আমাদের সঙ্গে অনুপ্রবেশকারী নিয়ে কোনও তথ্য ভাগ করেনি। আমার মনে হয়, এটা ভারত সরকার নিজেরাই মিটিয়ে নিতে পারবে। আমি জানি নরেন্দ্র মোদি সরকার এই সমস্যা নিজের থেকেই মিটিয়ে নেবে। আমাদের সঙ্গে এর কোনও সম্পর্ক নেই।’‌এখন কথা হচ্ছে অনুপ্রবেশকারী বাংলাদেশ ফিরিয়ে নেবে কি না ? এই প্রশ্নের উত্তরে সম্প্রচার মন্ত্রী বলেন ‘‌এখনও পর্যন্ত এ ব্যাপারে কোনও তথ্য ভারত আমাদের দেয়নি। ভারত যতক্ষণ এ ব্যাপারে কিছু না বলবে, আমরাও বলব না। তবে অসমের সব বাংলাভাষী মানুষ বাংলাদেশি হতে পারে না!‌’‌‌তাহলে কয়েক দিন আগেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যেই দুশ্চিন্তা করেছিলেন যে অসমের নাগরিক পঞ্জী বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের সম্পর্কের একটা প্রভাব ফেলবে ,সেটা অমুলূক নয়।




তথ্য কৃতজ্ঞতা স্বীকার "আজকাল "

No comments:

Post a Comment

loading...