Monday, 27 August 2018

আরটিআই করার পরেও বিজেপি সরকার তথ্য জানাতে অস্বীকার করল ,চারিদিকে চাঞ্চল্য

ওয়েব ডেস্ক ২৭শে অগাস্ট ২০১৮ :তথ্য জানার অধিকার আইনের মারফত ভারতের যেকোনো ব্যক্তি তার প্রশ্নের উত্তর পেতে পারেন , যদি সে কিছু সরকারের থেকে জানতে চান । সেই আইনকে বুড়ো আঙ্গুল দেখিয়ে ,এবং  আইনেরই ফাঁকফোকর মধ্যে দিয়ে  কেন্দ্র সরকার দীপক জুনেজা নামক এক ব্যক্তিকে তার জানবার অধিকার থেকে বঞ্চিত করলেন ।হাই প্রোফাইল নেতার পিছনে সরকার কত খরচ করে তা জানতে চান দীপক জুনেজা ।


কেন্দ্রীয় তথ্য কমিশন জুনেজাকে জানিয়েছে, বিষয়টি ব্যক্তিগত। পাশাপাশি বিষয়টির সঙ্গে অমিত শাহের নিরাপত্তার বিষয়টি জড়িয়ে রয়েছে। ফলে তা জানানো ‌যাবে না। জুনেজা আরও জানতে চান, কোনও ব্যক্তিকে নিরাপত্তা দেওয়ার ক্ষেত্রে আইনটি আসলে কী। সেই আবেদনেও সাড়া দেয়নি কমিশন। ফলে গোটা বিষয়টি নিয়ে ধোঁয়াশা রয়েছে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা।
অমিত শাহ সম্পর্কে সরকারি খরচের কথা ‌যখন জানতে চাওয়া হয় তখন তিনি রাজ্যসভার সদস্যও ছিলেন না। তিনি ছিলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি। দীপক জুনেজা আরও জানতে চান, সরকার কাদের নিরাপত্তার ব্যবস্থা করে তার একটা তালিকা দেওয়া হোক। সেই আবেদনও সাড়ে দিতে অস্বীকার করেছে সরকার। তবে সাফাই হিসাবে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, তথ্য জানার অধিকার আইনের ৮(১) ও (জি) ধারা অনু‌যায়ী ‌নিরাপত্তা সংক্রান্ত ‌যেসব তথ্য দিলে কোনও ব্যক্তির জীবন বিপদসঙ্কুল হতে পারে বা তার ওপরে হামলা হতে পারে এমন তথ্য দেওয়া যাবে না। এখবরটি বিদ্যজনেদের গোচরে আসার সাথে সাথেই তারা  প্রতিক্রিয়ায় জানান আইনের ৮(১) ও (জি) ধারাকে হাতিয়ার করেই সু চতুর ভাবে কেন্দ্র  ব্যাপারটা এড়িয়ে গেলেন । ভগবান জানে আর কত কিছুইনা লুকোচ্ছে কেন্দ্র সরকার । 



তথ্য কৃতজ্ঞতা স্বীকার "আজকাল "

No comments:

Post a Comment

loading...