Monday, 27 August 2018

পঞ্চায়েত বোর্ড গঠনকে কেন্দ্র করে ,কংগ্রেসের আক্রান্তে তৃণমূলের দুই কর্মী নিহত মানিকচকে

ওয়েব ডেস্ক ২৭শে অগাস্ট ২০১৮ :পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে বিরোধীদের হাতে খুন হতে হয়েছিল তৃণমূলের একাধিক কর্মীকে ,এবার বোর্ড গঠনের সময়েও চিত্রটা একেবারেই পাল্টালনা । কিন্তু প্রশ্ন উঠছে এরকম আর কতদিন চলবে ? আর কতদিন বিরোধীদের আশ্রিত দুষ্কৃতীদের হাতে তৃণমূলের কর্মীদের বেঘোরে প্রাণ যাবে ?পঞ্চায়েত প্রধান নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কংগ্রেস-তৃণমূল সংঘর্ষে রণক্ষেত্রের চেহারা নিল মালদহের মানিকচক ও উত্তর দিনাজপুরের চোপড়া৷ মানিকচকে কংগ্রেস কর্মীদের ছোঁড়া গুলিতে মৃত দুই তৃণমূল কর্মী৷

বোমার আঘাতে জখম চার বছরের এক শিশু৷ মাথায় গুরুতর আঘাত নিয়ে কিষাণ শেখ নামের ওই শিশু ভরতি মালদহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে৷ গোলাগুলি ও বোমাবাজির ঘটনায় জখম হয়েছেন আরও তিন রাজনৈতিক কর্মী৷ সোমবার সকালে গ্রাম পঞ্চায়েতের বোর্ড গঠনকে কেন্দ্র করেও উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে চোপড়ার লক্ষ্মীপুরে৷ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে কংগ্রেস কর্মীদের উপর মৃদু লাঠিচার্জ করে পুলিশ৷ মানিকচক ও চোপড়ায় বোর্ড গঠনকে কেন্দ্র কংগ্রেস-তৃণমূল সংঘর্ষের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় বিশাল পুলিশ বাহিনী৷ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে মানিকচক ও চোপড়া থানার পুলিশ৷মানিকচক থানার গোলপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের মোট আসন ১০টি৷ পাঁচটি তৃণমূল ও বাকি পাঁচটি আসন দখলে রেখেছে কংগ্রেস৷ অভিযোগ, বোর্ড গঠন করাকে কেন্দ্র করে উভয় পক্ষের সংঘর্ষ বাঁধে৷ কংগ্রেস ও তৃণমূলের তরফে পৃথক ভাবে বোর্ড দাবি জানানো হয়৷ কংগ্রেসের প্রস্তাব খারিজ করে দেন তৃণমূলের পঞ্চায়েত প্রধান পদের অন্যতম দাবিদার সরিউদ্দিন৷ বোর্ড গঠনের বিরোধিতা করায়  তৃণমূলের উপর হামলা হয় বলে অভিযোগ৷ চলে বোমা ও গুলি৷ বোমার আঘাতে সালাম শেখ (২৬) ও আজাহার শেখ নামের দুই তৃণমূল কর্মীর মৃত্যু হয়৷ কংগ্রেস আশ্রিত দুষ্কৃতীদের হাত থেকে রেহাই মেলেনি চার বছরের শিশুও৷ বোমার আঘাতে মাথায় গুরুতর চোট  নিয়ে শিশুটি  মালদহ মেডিক্যাল হাসপাতালে৷ পরে ঘটনাস্থলে গিয়ে  পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে পুলিশ৷ বিদ্যজনেদের একাংশের বক্তব্য  , মানুষের রায় মেনে নেয়াটাই বুদ্ধিমানের কাজ , এর বিরোধিতা করা মানেই নিজেদের ভাবমূর্তি নষ্ট করা । এই বার্তাটা যত তারাতারই বিরোধীরা বুঝবে ততই মঙ্গল ।বিদ্যজনেরা আরো বলেন , কেন তৃণমূলকে মানুষ মেনে নিচ্ছে কিন্তু বিরোধীদল গুলোকে নয় ,সেটা বিরোধীদেরই কারণ খুঁজে বার করতে হবে ।




তথ্য ও চিত্র  কৃতজ্ঞতা স্বীকার "সংবাদ প্রতিদিন  "

No comments:

Post a Comment

loading...