Sunday, 12 August 2018

যানবাহনের মতো কি "পার্মিট" নিতে হবে উত্তর পূর্ব রাজ্যগুলিতে থাকতে গেলে ?

ওয়েব ডেস্ক ১২ই অগাস্ট ২০১৮ :  নাগরিক পঞ্জির  চূড়ান্ত প্রকাশন আসার সাথে সাথেই প্রমাণিত হয়ে গেল ,উত্তর পূর্ব রাজ্যগুলিতে অবৈধ বসবাসকারীর  ব্যাপারটা কতটা সংবেদনশীল  ।এই প্রকাশনের জন্য ,যারা দীর্ঘ দিন এখানকার প্রবাসী হয়ে রয়েছেন এবং ভোট অধিকার প্রয়োগ করে আসছেন তাদের কাছেও নিজেদের পরিচয় পত্র নিয়ে নতুন করে সংশয়ের ডানা মেলেছে  , দীর্ঘ  দিনের  সে রাজ্যে বসবাসকারী  হওয়ার পরেও ।অসমের ৩ কোটি ২৯ লক্ষ্য লোকের মধ্যে ৪০ লক্ষ্য লোকের নাম চূড়ান্ত প্রকাশিত তালিকায় নেই ।

এর জন্য অসম এখন অগ্নিগর্ভ অবস্থায় , মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রুখে না দাঁড়ালে সেখানে দীর্ঘদিন ধরে বসবাসকারী অন্য রাজ্যের লোকেরা আরও বিপদে পড়তেন বলে মনে করেন বিদ্যজনেদের একাংশ । ঠিক এই জায়গাতেই , উত্তরপূর্ব রাজ্যের স্থানীয় রাজনৈতিক দল গুলি মাথা চারা দিয়ে উঠেছে , তারা বিপদাশঙ্কার দোহাই দিয়ে রাজনীতি করতে আরম্ভ করে দিয়েছে এই বলে যে বিতাড়িত প্রবাসী বাঙালিরা মেঘালয় , অরুণাচল প্রদেশ , কিংবা নাগাল্যান্ড মনিপুরের মতো রাজ্যে আশ্রয় নিতে  পারে ।
একধাপ এগিয়ে মেঘালয়ের  কে.এস.ইউ  এবং হ্যাঁনিউট্রেপ ইয়ুথ কাউন্সিল নামক স্থানীয় পার্টি তারা "ইনার লাইন পার্মিট" চালু করার জন্য তাদের দাবি জোরালো করতে শুরু করে দিয়েছে ।তার মানে একরাজ্য থেকে অন্য রাজ্যে যেতে গেলে পারমিট লাগবে যেটা যান বাহনের ক্ষেত্রে হয় । এই দুটো পার্টির সাথে আবার হাত মিলিয়েছে মেঘালয়ের সবথেকে শক্তিশালী রাজনৈতিক দল  "ইউনাইটেড ডেমোক্রেটিক পার্টি " । ঘটনাটা সঙ্গিন বললেও কম বলা হবে ,কারণ অরুণাচল প্রদেশের স্টুডেন্টস ইউনিয়ন (আপ্সু) তারা হুংকার ছেড়েছে , ঘরে ঘরে গিয়ে তারা পরীক্ষা করবেন ,কোনো প্রবাসী মানুষজন "ইনার লাইন পার্মিট" ব্যাতিত রয়েছেন কিনা ।
নাগাল্যান্ডের আদিবাসী কাউন্সিল যাকে বলা হয় নাগাল্যান্ড ট্রাইবাল কাউন্সিল (এন .টি সি ) তারাও মুখ্যমন্ত্রী নেইফিউ রিও কে আর্জি জানিয়েছে অসম থেকে তাদের রাজ্যে কোনো ভাবেই যেন অবৈধ্য অনুব্রবেশ তাদের রাজ্যে না হয় , এবং তার জন্য মুখ্যমন্ত্রী যেন যথাযথ ব্যবস্থা নেন । বিদ্যজনেদের একাংশের প্রশ্ন , কাদের এন .টি সি অবৈধ্য বলছে ? যারা ভারতীয় ?যারা দীর্ঘ দিন ধরে ভোটাধিকার প্রয়োগ করে এসেছে ,তারা ? শুধুকি তাদের অপরাধ পেটের দায়ে তারা অন্য রাজ্যে কাজ করছিলেন বা দু তিন পুরুষ ধরে বসবাস করে আসছেন ? স্বভাবতই এই প্রশ্নের কোনো উত্তর পাওয়া যায়নি ।

No comments:

Post a Comment

loading...