Monday, 6 August 2018

প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী দেবেগৌড়া, একমাত্র মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই প্রধানমন্ত্রী দেখতে চাইছেন

ওয়েব ডেস্ক ৬ই অগাস্ট ২০১৮ : প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী এচ.ডি .দেবেগৌড়া , দিল্লিতে সংবাদ সংস্থা পিটিআই–কে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে বলেন প্রধানমন্ত্রী পদে তিনি একমাত্র মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই দেখতে চান । আগামী বছর লোকসভা নির্বাচন , সেখানে  বিজেপিকে হটাতে  অ-বিজেপি শক্তিদের একজোট থাকতে হবে , গতকাল এ নিয়েই জোরদার সওয়াল করেন এই দক্ষিণী নেতা ।
রাহুল গান্ধী থেকে বিশিষ্ট আইনজীবী রাম জেঠমালানি সবাই ঘনিষ্ট মহলে সবাই এক যোগে ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রধানমন্ত্রীত্ত্ব নিয়ে কিন্তু প্রকাশ্যে কেউ বলেননি জোটে খারাপ প্রভাব পড়ার আশঙ্কায় ।কিন্তু এই দক্ষিণী নেতা রাখঢাক না করেই গতকাল সেটা বলে ফেললেন ।


কেন্দ্রে বিজেপি–বিরোধী দলগুলির ঐক্য গড়তে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী যে উদ্যোগ নিয়েছেন, সাক্ষাৎকারে তার ভূয়সী প্রশংসা করেছেন দেবগৌড়া। মমতা যেভাবে অ–বিজেপি দলগুলিকে একজোট করার কাজে ব্রতী হয়েছেন, তাতে অদূর ভবিষ্যতে বিজেপি–বিরোধী সার্বিক ঐক্য বাস্তবের মুখ দেখবে বলে আশাবাদী তিনি। দেবগৌড়া মনে করেন, ২০১৯–এ বিরোধী ঐক্যের কাছে বিজেপি ও তাদের শরিকরা ধরাশায়ী হবে। এমনটা হলে মমতাকে প্রধানমন্ত্রী  হিসেবে দেখতে তঁার কোনও আপত্তি নেই। দেশের এই প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য, মমতার ঐকান্তিক প্রচেষ্টার ফলেই এখন গোটা দেশের সমস্ত আঞ্চলিক দল জোটবদ্ধভাবে বিজেপি–কে হারানোর দিকে এগোচ্ছে। তাঁর আশা, আগামী দু–তিন মাসের মধ্যে মমতার চেষ্টা বাস্তব রূপ নেবে।
মমতার রাজনৈতিক ও প্রশাসনিক দক্ষতার কথা স্মরণে রেখে দেবগৌড়ার বরং প্রশ্ন, কেন শুধু পুরুষরাই প্রধানমন্ত্রী হবেন?‌ ইন্দিরা গান্ধী অত্যন্ত সফলভাবে ১৭ বছর দেশ শাসন করেছেন। এখন মমতা বা মায়াবতী প্রধানমন্ত্রী হলে আপত্তি কীসের?‌ এই প্রসঙ্গে তিনি মনে করিয়েছেন, তিনি প্রধানমন্ত্রী থাকার সময়েই (‌১৯৯৬)‌ সংসদে মহিলা সংরক্ষণ বিল পেশ করা হয়েছিল। দেবগৌড়া স্পষ্ট জানিয়েছেন, আগামী লোকসভা নির্বাচনে কর্ণাটকে কংগ্রেসের সঙ্গে জোট রেখেই লড়বে তাঁর দল। রাজ্যে ২৮টি আসনের বেশির ভাগই দখল করা সম্ভব বলে তাঁর দাবি। কর্ণাটকে নির্বাচন–পরবর্তী কংগ্রেস–জেডি (‌এস)‌ রাজনৈতিক জোটের সাফল্য গোটা দেশকে নতুন রাজনৈতিক সমীকরণের পথ দেখিয়েছে।‌‌
বিদ্যজনেদের একাংশের মত , মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে ভাবে বিরোধী দল গুলোকে একজোট করার চেষ্টাই নেমেছে , এবং এক জায়গার থেকে অন্য জায়গায় যে ভাবে ছুটে বেড়াচ্ছেন ,অক্লান্ত পরিশ্রম করছেন সাম্প্রদায়িক শক্তিকে উৎখাত করতে ,আজ প্রজন্ত কেউ করেছেন কিনা সন্দেহ ।‌‌

No comments:

Post a Comment

loading...