Friday, 3 August 2018

অসমের নাগরিক পঞ্জিতে প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি ফকরুদ্দিন আলীর নাম নেই ,সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড়

ওয়েব ডেস্ক ৩রা অগাস্ট ,২০১৮ :এন.আর.সি নিয়ে স্বচ্ছতার প্রশ্ন দিকে দিকে ঘনীভূত হতে লাগল । এন.আর .সি কিভাবে কাজ করছে ? তাদের কত গুলো ইউনিট খোলা হয়েছে ? সেগুলো জনগণের নিরিক্ষে পর্যাপ্ত কিনা ? এই প্রশ্ন গুলোই এখন  ঘোড়া ফেরা করছে মানুষের মনে । এর কারণ হিসেবে উঠে আসছে এক চাঞ্চল্যকর তথ্য, দেশের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি ফকরুদ্দিন আহমেদ আলী , তার পরিবারের লোকেদের নাম এন.আর .সি তালিকায় নেই ।এই ঘটনার কথা ছড়িয়ে পড়ার পর সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড় উঠেছে । প্রশ্ন উঠছে তাহলে কি প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি ভারতের নাগরিক ছিলেননা ? এর ব্যাখ্যা প্রশাসনের তরফ থেকে পাওয়া যায়নি ।


বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই বিষয়টি রাজনাথ সিংহের কাছে উত্থাপন করেছেন । তাহলে কেন্দ্র সরকার যে বলছিলো সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশেই এন আর সি করা হচ্ছে , সেখানে ফাঁক ফোকর থাকে কি করে ? বিদ্যজনেদের একাংশের মত,  গাফিলতি আছে ।
অসমে জাতীয় নাগরিক পঞ্জি থেকে ৪০ লক্ষ নাম বাদ পড়ায় এখন আতঙ্কের প্রহর গুণছেন মানুষ। রাতারাতি দেশের নাগরিকত্ব থেকে বাদ পড়ার তালিকায় রয়েছে এমন কিছু নাম, যা শুনলে চমকে উঠতে হয়। যেমন রয়েছে প্রয়াত প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি ফকরুদ্দিন আলি আহমেদের পরিবার, তেমনই রয়েছে ডেপুটি স্পিকার, প্রাক্তন মন্ত্রী থেকে শুরু করে দেশের সামরিক বাহিনীতে কাজ করা অনেক নাম।
আর এই মুহূর্তে সবথেকে আলোচিত নাম হল ভারতের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি ফকরুদ্দিনের পরিবার। তাঁর ভাইয়ের একরামুদ্দিন আলি আহমেদের পরিবারের কারও নাম আসেনি নাগরিক পঞ্জি তালিকায়। এই ঘটনায় তীব্র অসন্তোষ তৈরি হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরেই তাঁরা বাস করছেন অসমের কামরূপ জেলার রঙ্গিয়াতে। কী করে তাঁদের নাম এল না নাগরিক পঞ্জিতে, তা-ই বিস্ময়ের। এই ঘটনায় তাজ্জব গোটা পরিবার, তাজ্জব সাধারণ মানুষও।
সারা দেশের মধ্যে একমাত্র মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই নাগরিক পঞ্জী নিয়ে সোচ্চার , আর কোন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব এই ঘটনা নিয়ে সামনে আসেননি ।জনাব ফকরুদ্দিন আহমেদ আলীর ভাইপো জিয়াউদ্দিন আলী আহমেদ অভিযোগ করেন তাদের বাড়ির কারোর নামই নাগরিক পঞ্জিতে নেই ।মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই বিষয়গুলো তুলে ধরেছেন রাজনাথ সিংহের কাছে ।এতেই বোঝা যাচ্ছে নাগরিক পঞ্জীর গোটা প্রক্রিয়াটা অপেশাদারিত্বের সঙ্গে করা হচ্ছে । আগাম পরিকল্পনা বলতে কিছুই নেই । 

No comments:

Post a Comment

loading...