Friday, 3 August 2018

বাংলার গড় অভ্যন্তরীণ উৎপাদন বা জিডিপি ৯.১৫% আর গোটা ভারতে মাত্র ৬.‌৭০ শতাংশ

ওয়েব ডেস্ক ৩রা অগাস্ট ,২০১৮ : রাজ্যের জিডিপি যে সত্যি বেড়েছে এবার কেন্দ্র সেটা মেনে নিতে বাধ্য হল ।জিডিপি অর্থাৎ গড় অভ্যন্তরীণ উৎপাদন যেই সব সূচকের ওপর নির্ভর করে নির্ধারণ করা হয়েছিল সেটি কেন্দ্র তরফে অনেক টালবাহানার পর সিলমোহর দিতে বাধ্য হল ,যে সত্যি রাজ্যের গড় অভ্যন্তরীণ উৎপাদন বেড়েছে ।গতকাল এই সুখবরটি দেন রাজ্যের অর্থ মন্ত্রী অমিত মিত্র ,তিনি জানান এই জিডিপি বৃদ্ধিতে পঞ্চদশ অর্থ কমিশনে রাজ্যের বরাদ্দ বাড়বে বলেই মনে হয় । ২০১৭–১৮ আর্থিক বছরে সারা দেশে জিডিপি যেখানে বেড়ে হয়েছে ৬.‌৭০ শতাংশ, সেখানে রাজ্যের জিডিপি বৃদ্ধি পেয়েছে ৯.‌১৫ শতাংশ। এই জিডিপি অর্থমূল্য হিসেবে ১০ লক্ষ ২০ হাজার কোটি টাকা ছাড়িয়েছে,যদিও মুখ্যমন্ত্রী লক্ষ্য মাত্রা ঠিক করেছিলেন ১০০০০  ।তার মানে এটাই বোঝা যাচ্ছে যে মুখ্য মন্ত্রীর যে টার্গেট ঠিক করেছিলেন ,তা "ওভার এচিভ" হয়েছে  ।

প্রসঙ্গত, রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী জিডিপি নির্ধারিত হত। কিন্তু হঠাৎই তা বদলে গিয়ে কর্পোরেট অ্যাফেয়ার্স মন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান নিতে শুরু করল সিএসও,মানে সেন্ট্রাল স্ট্যাটিস্টিক্স অফিস তখনই সমস্যা সূত্রপাত । রাজ্যের নির্ধারিত জিডিপি মানতে চাইছিল না কেন্দ্র। এবার এই সমস্যা মিটে গেছে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী।অর্থমন্ত্রীর কথায়, মূলত শিল্প সূচকের ওঠানামা নির্ভর করে ৪টি বিষয়ের ওপর। সেগুলি হল— ১)‌ খনি ও খাদান, ২)‌ উৎপাদন, ৩)‌ বিদ্যুৎ, জল ও গ্যাস সরবরাহ এবং ৪)‌ নির্মাণ। শিল্পক্ষেত্রে ২০১৭–১৮ আর্থিক বছরে রাজ্যের বৃদ্ধির গড় হার যেখানে ১৬.‌২৯ শতাংশ, গোটা দেশে সেখানে ৫.‌৫৪ শতাংশ। উৎপাদনে যেখানে দেশের বৃদ্ধির গড় হার ৫.‌৭৪ শতাংশ, সেখানে পশ্চিমবঙ্গের ১০.‌২০ শতাংশ। বিদ্যুৎ, জল এবং গ্যাসের ক্ষেত্রে সারা দেশের বৃদ্ধির গড় হার ৭.‌৭ শতাংশ, সেখানে রাজ্যের ১৮.‌২৭ শতাংশ। খনি ও খাদানের ক্ষেত্রে সারা দেশে গড় বৃদ্ধির হার ২.‌৯৪ শতাংশ, রাজ্যের সেখানে ৪.‌৪ শতাংশ। নির্মাণ শিল্পে সারা দেশে গড় বৃদ্ধির হার ৫.‌৭৪ শতাংশ। রাজ্যের ২৭.‌৬৩ শতাংশ।অমিত মিত্র পরিষ্কার করে দেন , মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জেলায় জেলায় গিয়ে কোন কাজ কতদূর এগিয়েছে খোঁজ খবর করাতে এরকম অভাবনীয় সাফল্য এসেছে  ।এটা আমাদের মনে রাখা দরকার  গড় অভ্যন্তরীণ উৎপাদন বাড়লে পরে চাকরির বাজার খুলতে বাধ্য ।



তথ্য কৃতজ্ঞতা স্বীকার "আজকাল "

No comments:

Post a Comment

loading...