Sunday, 19 August 2018

কেরলের বন্যা দুর্গত মানুষদের জন্য ১০ কোটি টাকা দিচ্ছেন মমতা

ওয়েব ডেস্ক ১৯ই অগাস্ট ২০১৮: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে কত বড় মনের মানুষ তা আরও একবার প্রমান পাওয়া গেল ৷ কয়েকদিন আগেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় টুইট করে বলেছিলেন ,কেরলের বন্যা দুর্গত মানুষদের পাশে তিনি আছেন ,তাদের কথাও তিনি ভাবছেন ৷ সেটা শুধুমাত্র মুখের কথা যে ছিলোনা সেটা আজ প্রমান হয়ে গেল ৷


রবিবার তিনি টুইটে কেরলের  বন্যা দুর্গত মানুষদের ১০ কোটি টাকা সাহায্যের কথা ঘোষণা করেন ৷ তিনি লেখেন ‘‘কেরলে বন্যায় বহু মানুষ জীবনযুদ্ধ চালাচ্ছেন৷ বিপদের সময়ে কেরলবাসীর পাশে আছি আমরা৷ এই পরিস্থিতিতে কেরলের বন্যাত্রাণে মুখ্যমন্ত্রী ত্রাণ তহবিল থেকে দশ কোটি টাকা সাহায্যের সিদ্ধান্ত নিয়েছি৷’’ মুখ্যমন্ত্রী টুইটে আরও জানান, ‘‘প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের হাত থেকে রক্ষা করতে আমরা কেরলবাসীকে সমস্ত সহযোগিতা করতে প্রস্তুত৷ আমরা চাই যত তাড়াতাড়ি সম্ভব স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসুন কেরলবাসী৷’’সপ্তাহখানেকের বৃষ্টিতে জলের তলায় চলে গিয়েছে কেরল৷ নাছোড়বান্দা বৃষ্টি থেকে এখনও মুক্তি পায়নি দক্ষিণের এই রাজ্য৷ আবহাওয়া দপ্তরের পূর্বাভাস অনুযায়ী ভারী বৃষ্টি আর না হলেও, আগামী ২৪ঘণ্টায় বিক্ষিপ্ত বৃষ্টিপাত চলবে রাজ্যের জেলাগুলিতে৷ বৃষ্টির দাপট কিছুটা কমায় কেরলের ১১টি জেলা উপর থেকে লাল সতর্কতা শিথিল করেছে আবহাওয়া দপ্তর৷ বন্যায় ইতিমধ্যেই প্রাণ হারিয়ে সাড়ে তিনশোরও বেশি মানুষ৷ জলের তলায় তলিয়ে গিয়েছে কৃষিজমি৷ সতর্কতা জারি থাকায় সমুদ্রে যেতে পারছেন না মৎস্যজীবীরা৷ যুদ্ধকালীন তৎপরতায় কেরলে চলছে উদ্ধারকাজ৷ উদ্ধারে নামে সেনা, ২৮ কোম্পানি উপকূলরক্ষী বাহিনী ও নৌবাহিনী হেলিকপ্টারের সাহায্যে দুর্গতদের উদ্ধার করে ত্রাণশিবিরে নিয়ে যাচ্ছেন৷
 কিন্তু কেরলে এরকম ভয়াবহ পরিস্তিতি যে আসতে পারে ‘ওয়েস্টার্ন ঘাট ইকোলজি এক্সপার্ট কমিটি’এই কমিটির নেতৃত্ব দিয়েছিলেন বেঙ্গালুরুর ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব সায়েন্সের গবেষক মাধব গ্যাডগিল। তাঁর করা সুপারিশগুলি মেনে নিলে আজ এই বিপর্যয়ের হাত থেকে পশ্চিমঘাট পর্বতমালা বা কেরলকে বাঁচানো সম্ভব হত বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।গ্যাডগিল কমিটির প্রস্তাব ছিল পশ্চিমঘাট পর্বতমালার এক লক্ষ চল্লিশ হাজার বর্গ কিলোমিটার এলাকাকে তিনটি ভাগে ভেঙে দেওয়া। সংবেদনশীলতার মাত্রা অনুযায়ী কোনও অঞ্চলে খনি ও খাদান নিষিদ্ধ, কোথাও বা আবার বহুতল তৈরিতে বিধিনিষেধের প্রস্তাব দিয়েছিলেন তিনি।, কিন্তু কেরল সরকার এই রিপোর্টে কোনোরকম কর্ণপাতই করেনি





তথ্য কৃতজ্ঞতা স্বীকার "সংবাদ প্রতিদিন"

No comments:

Post a Comment

loading...