Monday, 27 August 2018

ইভিএমের জন্যেই কি তাহলে বিজেপির এতো বাড়বাড়ন্ত ?, নির্বাচন কমিশনার ব্যাকফুটে

ওয়েব ডেস্ক ২৭শে অগাস্ট ২০১৮ :ইভিএম কারচুপি নিয়ে অনেক দিনই বিরোধীরা সোচ্চার ছিলেন যা আজ বিস্ফোরণের আকার নেয় নির্বাচন কমিশনারের অফিসে   । এরকম একটা পরিস্তিতি যে তৈরী হতে পারে তার আঁচটিও পাননি নির্বাচন কমিশনার । বিদ্যজনেদের একাংশের মত , বিরোধীদের ধৈয্যের বাঁধ ভেঙে যাওয়াতেই এই বিপত্তি , না হলে এরকম ঘটনার সম্মুখীন হওয়ার কথাই  নয় নির্বাচন কমিশনারের ।কংগ্রেস সহ–সব বিরোধী রাজনৈতিক দল এদিন চেপে ধরে নির্বাচন কমিশনারকে।

তারা অভিযোগ করেন ইভিএম মেশিনে কারচুপির জন্যই বিজেপির পক্ষে ভোট পড়ছে । তাই এই ইভিএম মেশিন কোথায় মেরামত করা হয় তার নাম, ঠিকানা জানাবার দাবি তোলে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলি। এখানে শাসকদল বিজেপি ছাড়া উপস্থিত ছিল কংগ্রেস, তৃণমূল কংগ্রেস, বহুজন সমাজ পার্টি, সিপিআই, সিপিএম সহ–৫১টি আঞ্চলিক রাজনৈতিক দল। নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে এদিন কিছু নির্বাচনী সংস্কার নিয়ে রাজনৈতিক ঐক্যমত্যে পৌঁছতে বৈঠক ডাকা হয়েছিল। সেখানে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলির বক্তব্য একই হওয়ায় নির্বাচন কমিশন কার্যত কোণঠাসা হয়ে পড়ল বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। গতবছর উত্তরপ্রদেশে বিজেপি জয়লাভ নিয়ে ইভিএম মেশিনে কারচুপির অভিযোগ তোলে বহুজন সমাজবাদি পার্টি এবং আম আদমি পার্টি। পরিস্থিতি এমন জায়গায় পৌঁছয় যে নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে চ্যালেঞ্জ করে বলা হয়, পারলে কেউ ইভিএম মেশিন হ্যাক করে দেখান। এদিনও বৈঠক করে বেরিয়ে কংগ্রেস নেতা মুকুল ওয়াসনিক বলেন, ‘‌ইভিএম দিয়ে মানুষের যথার্থ রায় প্রতিফলিত হচ্ছে না। একাধিকবার ইভিএমে কারচুপি করা হয়েছে। যার জন্য একটি দলের পক্ষে বারবার রায় যাচ্ছে। আমরা জানতে চাই ইভিএম কারা মেরামত করে এবং কত পুরনো ইভিএম ব্যবহার করা হচ্ছে। আমরা ভিভিপ্যাট ও ইভিএম পরীক্ষা করতে চাই।’‌ তৃণমূল কংগ্রেসের সাংসদ কল্যাণ ব্যানার্জি বলেন, ‘‌আমাদের ইভিএমের ওপর কোনও বিশ্বাস নেই। তাই নির্বাচনে ব্যালট বাক্স ফিরিয়ে আনা হোক।’‌ বাকি বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলিরও একই বক্তব্য থাকায় বিশেষ কোনও রফাসূত্র বেরিয়ে আসেনি। বরং নির্বাচন কমিশনকেই কোণঠাসা হতে হয়। ‌‌বিদ্যজনেদের একাংশের মত এখনো পর্যন্ত অকাট্য কোন প্রমান মেলেনি যে ইভিএম মেশিনের জন্যই বিজেপির এই বার বাড়ন্ত , শুধু সন্দেহের বসে খুব একটা এগোনো যাবে বলে মনে করেননা তারা ।তবে এই সংঘবদ্ধ আক্রমণে নির্বাচন কমিশন যে একটু হলেও তলিয়ে দেওয়া গেছে সেটাই অনেক বলে মনে করেন বিদ্যজনেদের একাংশ ।





তথ্য কৃতজ্ঞতা স্বীকার "আজকাল "

No comments:

Post a Comment

loading...