Thursday, 16 August 2018

"আছে দিনের " জন্য ২০২২ পর্যন্ত অপেখ্যা করতে বললেন মোদীজি । মানুষ বিশ্বাস করছে তো ?


ওয়েব ডেস্ক ১৬ই অগাস্ট ২০১৮ : নরেন্দ্র মোদী প্রধানমন্ত্রিত্বের কুর্সিতে বসেই "আছে দিনেরস্বপ্ন দেখিয়েছিলেন ভারতবাসীকে ।সেই "আছে দিন" তো আসেইনি বিগত চার বছরে , উল্টে গত কাল একগুচ্ছ আসার আলো দেখিয়ে ,সেই "আচ্ছে দিন " আরো চার বছরের জন্য ঠেলে সরিয়ে দিলেন মানুষের আশা ,উৎকণ্ঠা ,আরও চার বছরের জন্য পেছনে ঠেলে দিলেন তাতে কতটা লাভ হবে এখনই বলা মুশকিল  ।অভিধান ঘেঁটে বাছাই করা কয়েকটি  বিশেষণ নিজের উপরেই প্রয়োগ করলেন প্রধানমন্ত্রী। বুলেট প্রুফ ঘেরাটোপে স্বাধীনতা দিবসে চলতি মেয়াদের শেষ বার লালকেল্লার বক্তৃতায় গরিব-দলিত-ওবিসি-আদিবাসী-মহিলা মন জয়ে ভোটের মন্ত্র আওড়ালেন।
বোঝালেন, ভবিষ্যতে বাদ পড়বেন না মধ্যবিত্তরাও। যে মধ্যবিত্তরা এখন কর দিয়ে গরিবদের জন্যপূণ্য অর্জনকরছেন। কিন্তু আগের মতো আজও অধিকাংশ লক্ষ্যপূরণের সময়সীমা ঠেলে দিলেন ২০২২ সালে, ২০১৯ সালে ভোটের আরও তিন বছর পর।কংগ্রেসের আহমেদ পটেল, রণদীপ সিংহ সুরজেওয়ালাদের বক্তব্যআর ফিরছেন না জেনেই প্রধানমন্ত্রী তাঁর তথাকথিতঅচ্ছে দিনআনার দায়িত্ব পরের সরকারকে দিয়ে গেলেন। গত লোকসভা ভোটের আগে লালকেল্লার মডেল বানিয়ে মনমোহন সিংহকে চ্যালেঞ্জ ছুড়েছিলেন। বারে কি রাহুল গাঁধীর খোলা চ্যালেঞ্জ স্বীকার করবেন মোদী? দেশে ঘৃণা, হিংসার রাজনীতি, বেকারি, টাকা, অর্থনীতির বেহাল দশা, রাফাল-ব্যপম দুর্নীতি, ডোকলাম, ধর্ম-জাতির উন্মাদনা মোকাবিলা নিয়ে একটি কথাও নেই প্রধানমন্ত্রীর মুখে। শুধু ভোটের কথা। তাঁর কথায়২০১৯-এর ভোট হল দ্বিতীয় স্বাধীনতার লড়াই।অতীতের বিতর্ক এড়াতে আজ লালকেল্লায় অমিত শাহের পাশেই রাহুল গাঁধীকে বসতে দেওয়া হয়। মোদী নতুন আশার গল্প শোনাচ্ছেন, মিটিমিটি হাসছেন রাহুল। ৮২ মিনিটের বক্তৃতায় নতুন ঘোষণা তিনটি। দীনদয়াল উপাধ্যায়ের জন্মদিন থেকেমোদী কেয়ারশুরু করা। দুই, মহাকাশে পুরুষ বা মহিলাকে পাঠানো। সেটিও ২০২২ সালের মধ্যে। আর তিন, সেনায় মহিলাদেরও পুরুষদের সমান সুযোগ দেওয়া।
ভিডিও জনেদের একাংশের বক্তব্য , মোদীজি তার কথা রাখতে পারেননি ,বিগত চার বছরে ।তিনি যেইসব প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন তা একটাও পূরণ করতে পারেননি , তা সত্ত্বেও তিনি ভারতবাসীকে স্বপ্ন দেখিয়ে যাচ্ছেন ।মানুষ একবার বোকা বনেছেন ,বার বার বোকা হবেন কি ?



তথ্য কৃতজ্ঞতা স্বীকার "আনন্দবাজার পত্রিকা "        

No comments:

Post a Comment

loading...