Thursday, 16 August 2018

আবার মুখ পুড়ল দিলীপ ঘোষের

ওয়েব ডেস্ক ১৬ই অগাস্ট ২০১৮ :পুলিশ পেটানোর হুমকির থেকে প্রকাশ্যে শাসক দলকে হুমকি ,এসব তো আগেই ছিল বাংলায় বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষের বিরুদ্ধে , যার জন্য নিন্দুকের অনেক নিন্দাও তাকে সহ্য করতে হয়েছে , এবার তার ওপর অভিযোগ একটা স্বেচ্ছাসেবী সন্থার অ্যাম্বুলেন্স নির্লজ্জের মতো আটকে রাখার  ।

                                   

শেষ পর্যম্ত আদালতকেই হস্তক্ষেপ করতে হল । ঘটনাটি এই রকম ,উদ্বোধনের নামে অ্যাম্বুল্যান্স আটকে রাখার মামলা দায়ের হয়েছিল বিজেপি–র রাজ্য সভাপতি ও খড়্গপুরের বিধায়ক দিলীপ ঘোষের বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার বিধায়কের খড়্গপুরের রেলের বাংলো থেকে পুলিস আদালতের নির্দেশে সেই অ্যাম্বুল্যান্স উদ্ধার করে। স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের অ্যাম্বুল্যান্স আটকে রেখে ব্যবহার করেছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ— এমনটাই অভিযোগ উঠেছিল তাঁর বিরুদ্ধে৷ সেই নিয়েই বিজেপির রাজ্য সভাপতির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়৷ সেই মামলার শুনানিতে আদালতের নির্দেশে খড়্গপুরে দিলীপের বাংলোয় হানা দেয় পুলিস৷ দিলীপ ঘোষের বাড়ি থেকেই ওই অ্যাম্বুল্যান্স বাজেয়াপ্ত করা হয়৷
উদ্বোধনের নামে অ্যাম্বুল্যান্স আটকে রাখার অভিযোগে আসানসোল আদালতে মামলা দায়ের করেছিল পূর্ব বর্ধমানের একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা৷ ওই সংগঠনের আধিকারিকরা দাবি করেছিলেন, দু’বছর আগে উদ্বোধনের নামে খড়্গপুরে ওই অ্যাম্বুল্যান্স পাঠাতে বলেছিলেন দিলীপ ঘোষ৷ কিন্তু তারপর আর সেটি ফেরত দেননি। ২০১৬ সালের জুলাই মাসে এই অ্যাম্বুল্যান্সটি মুর্শিদাবাদের একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার থেকে অনুদান হিসেবে পায় পূর্ব বর্ধমানের বার্নপুরের একটি সেচ্ছাসেবী সংস্থা। ওয়াকিবহাল মহলের মতে, সেই সময় এই সংস্থাটি বিজেপি–ঘনিষ্ঠ ছিল। তাই সদ্য বিধায়ক হওয়া দিলীপ ঘোষকে দিয়ে তারা এই অ্যাম্বুল্যান্সের উদ্বোধন করাতে চেয়েছিল। রাজ্য বিজেপির সভাপতির ব্যস্ততার জেরে বারে বারে তা ভেস্তে যায়। ঠিক হয়, খড়্গপুরে তাঁর বিধানসভা কেন্দ্রে অ্যাম্বুল্যান্স পাঠিয়ে দিলে তিনি উদ্বোধন করে দেবেন। সেইমতো অ্যাম্বুল্যান্স পাঠিয়ে দেওয়া হয়৷ কিন্তু তারপর আর সেই অ্যাম্বুল্যান্স ফেরত দেননি দিলীপ ঘোষ৷ এমনটাই অভিযোগ করেন ওই স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার এক উচ্চপদস্থ আধিকারিক৷ বিদ্যজনেদের অনেকেই দিলীপ বাবুর এই কাজে অবাক নয় , তারা মন্তব্য করেন দিলীপ বাবু যখন আছেন তখন কখন কি হবে কেউ বলতে পারেনা ।ভালোর থেকে নিন্দনীয় কাজটাই বেশি হবে ।



তথ্য কৃতজ্ঞতা স্বীকার "আজকাল "

No comments:

Post a Comment

loading...