Tuesday, 7 August 2018

কি ভাবে লাইসেন্সহীন ,কুখ্যাত , মা বিদ্যাভাষিনী হোম, সামাজিক কাজে নিযুক্ত হতে পারে ?

ওয়েব ডেস্ক ৭ই অগাস্ট ,২০১৮ :  কুখ্যাত মা বিদ্যাভ্যাসিনী শেল্টার হোম , যেখানে আশ্রিত  মেয়েদের রাতে কুকর্মের জন্য   নিয়ে যাওয়া হত আবার সকাল বেলায় হোমে ফিরিয়ে আনা হত ,সেই মা বিদ্যাভাষিনী শেল্টার হোম একটি গণ বিবাহে স্বেচ্ছা সেবী সংস্থা হিসেবে শরিক হয়েছিল ।যেই হোমে আশ্রিত অল্প বয়সী মেয়েদের যৌনতায় বাধ্য করা হত তারা কি করে গণ বিবাহের মতো একটা সামাজিক কাজে যুক্ত হতে পারে ? আর কেই বা তাদের যুক্ত করল ? বিদ্যজনেদের একাংশের এই প্রশ্ন এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় ছেয়ে গেছে ।


 চলতি বছরের ৯ই ফেব্রুয়ারী দেওরিয়ায় একটি গণ বিবাহ আয়োজন করা হয় যেখানে ১০১ জনকে বিয়ে দেওয়া হয় । প্রসঙ্গত  ২০০৭ এর জুন মাসে  সারা দেশ জুড়ে সিবিআই,  আশ্রিত নারী এবং শিশুদের হোমে একটা তদন্ত চালাচ্ছিল , ঠিক এই সময়  মা বিদ্যাভাষিনী শেল্টার হোম তাদের লাইসেন্স হারায় , তা সত্ত্বেও মা বিদ্যাভাষিনী শেল্টার হোম দেওরিয়ার প্রশাসনিক কার্যালয় দফতর থেকে আমন্ত্রণ পায় গণ বিবাহের মতো একটা সামাজিক কাজে  স্বেচ্ছা সেবী সংস্থা পরিচালনা করার  ।
জেলার সামাজিক কল্যাণ কর্মকর্তা দিনোনাথ শুক্লা দাবি করেছেন দু জন অভিযুক্ত গিরিজা ত্রিপাঠি এবং তার স্বামী মোহন ত্রিপাঠি সেই অনুষ্টানটি পরিচালনা করেন ।"এই গণ বিবাহের আসল সংগঠক ছিল নগর পঞ্চায়েত , কিন্তু সরকারের নির্দেশ ছিল স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাকে এর মধ্যে যুক্ত করার ,আর সেই জন্য জেলার শাসক মা বিদ্যাভাষিনী কে একজন সংগঠক হিসেবে নিযুক্ত করে " দিনোনাথ শুক্লা সংবাদ মাধ্যমকে বলেন ।
সূত্রের খবর নারী কল্যাণ দফতরের তারিফ থেকে তাদের লাইসেন্স বাতিল করা হয়েছিল , তার পরেও কি করে জেলা শাসকের তরফ থেকে এরোকোন একটা মনোনয়ন পাঠানো হল ,সেটা কারোরই বোধগোম্ম হচ্ছেনা ।

No comments:

Post a Comment

loading...