Sunday, 19 August 2018

অটল বেহারী বাজপেয়িকে নিয়ে কোনো রকম নোংরামো তৃণমূল বরদাস্ত করবেনা ,পড়ুন.

ওয়েব ডেস্ক ১৯ই অগাস্ট ২০১৮: তৃণমূলের রাজনীতি ,রাজনৈতিক ফায়দা  তোলার জন্য নয় , সত্যের পথে চলার জন্য । এই কথাটি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের রাজনীতিতে বারং  বার উঠে এসেছে , এবং এর জন্যই আজ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে দেশের তাবড় তাবড় ব্যক্তিত্ব প্রধান মন্ত্রিত্বের পদে দেখতে চাইছেন   । তবে কিছু মানুষ যারা নিজেদের তৃণমূলী বলে নিজেদের দাবি করেন তারা প্রয়াত অটল বেহারী বাজপেয়ী সমন্ধে  কুরুচিকর মন্তব্য করেন সোশ্যাল মিডিয়ায়  ।


বিষয়টি একেবারে অভিপ্রেত ছিলোনা  শীর্ষ নেতৃত্বের কাছে , তাই তৃণমূলের রাজ্য যুব সম্পাদক সায়নদেব চট্টোপাধ্যায় সোজাসুজি বলেন, ‘‘অটলজি একজন মহান নেতা ছিলেন৷ আমাদের নেত্রীর সঙ্গে তাঁর ভালো সম্পর্ক ছিল৷ তৃণমূলের নামে তাঁকে নিয়ে কোনও নোরাংমো হলে তা বরদাস্ত করা হবে না৷’’শুক্রবার শেষকৃত্য সম্পন্ন হয় বাজপেয়ীজির৷ প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর শেষ যাত্রায় নরেন্দ্র মোদী ছাড়াও দলীয় এবং বিরোধী দলের নেতারাও পা মেলান৷ স্মৃতিস্থলে অটলজিকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে উপস্থিত ছিলেন দেশ বিদেশের রাজনৈতিক ব্যাক্তিত্বরা৷ স্মৃতিস্থলে উপস্থিত ছিলেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং এবং কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধিরাও৷ফেসবুকে নিজেদের তৃণমূলে বলে দাবি করা বেশ কয়েকজন অটলজিকে নিয়ে নানা রকমের কুরুচিকর মন্তব্য করেন, যাদের নিয়ে অসন্তুষ্ট ক্ষোদ তৃণমূল শিবির৷তৃণমূলের রাজ্য সম্পাদক সায়নদেবকে এই নিয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন ‘‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কী বলছেন সেটাই আমাদের পার্টির শেষ কথা৷ আমাদের সর্বোচ্চ নেত্রী পরিষ্কার বলেছেন অটলজির সরকার এই সরকারের মধ্যে পার্থক্য রয়েছে৷ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সহ আমাদের দলের প্রত্যেকে অটলজির প্রয়ানে শোকাহত৷ এরপর যদি কেউ নিজেকে তৃণমূল বলে কুরুচিকর মন্তব্য করে এবং সে যদি পার্টির স্বীকৃত সদস্য হয় তাহলে দল তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে৷’তিনি আরো বলেন  ‘‘ এ বিষয়ে কোনও সন্দেহ নেই অটলজি একজন লেজেন্ড৷ ভারতীয় রাজনীতির একজন মহীরূহ৷ উনি প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন গুজরাট দাঙ্গার প্রসঙ্গে বলেছিলেন, রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের রাজধর্ম পালন করা উচিৎ ৷ তাঁর মৃত্যুতে গোটা দেশের মতই তৃণমূল কংগ্রেসও শোকাহত৷’’ বিদ্যজনেদের একাংশের মত তৃণমূল কোনো মতেই পূর্বের বামফ্রন্ট সরকার নয় ,যারা শুধু মাত্র নিজেদের ফায়দার কথা ভেবে কোনো একটা ভালো জিনিস করেও মিথ্যে যুক্তি সাজিয়ে খারাপ বলে প্রমাণিত করতো  ।তাদের কাছে কাজ বা সত্যের পথে চলার থেকেও মানুষকে ভুল বোঝানোটা সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে হতো ।এবং বিজ্ঞানসম্মত ভাবে সেটাই করে গেছে, যার জন্য চিরকালের মতো চলেও যেতে হল ।



তথ্য কৃতজ্ঞতা স্বীকার "কলকাতা ২৪*৭ "

No comments:

Post a Comment

loading...