Thursday, 23 August 2018

ময়না তদন্ত না করেই উন্নাও ধর্ষণ কাণ্ডের প্রধান সাক্ষীকে কবর দেওয়া হল , চাঞ্চল্য সর্বত্রই

ওয়েব ডেস্ক ২৩শে অগাস্ট ২০১৮ :  ‌প্রত্যাশামতোই উন্নাও ধর্ষণ কাণ্ডের প্রধান সাক্ষীর অপমৃত্যু হয়েছিল গত সপ্তাহে , তারপর তড়িঘড়ি কবরও দেওয়া হয়েছিল , তবুও শেষ রক্ষা হল না ।আজ ধর্ষিতার বাড়ি লোক দাবি জানিয়েছে যে করেই হোক, কবর থেকে তুলে দেহটি ময়না তদন্তের জন্য পাঠানো হয় । 

গতসপ্তাহেই মৃত্যু হয় ইউনুসের। উন্নাও ধর্ষণকাণ্ডের প্রধান সাক্ষী এই ইউনুস। গত এপ্রিল মাসে এই মামলায় ধর্ষিতার বাবার পুলিস হেফাজতে মৃত্যু হয়। উন্নাও ধর্ষণ মামলায় অন্যতম প্রধান অভিযুক্ত বিজেপির বিধায়ক কুলদীপ সেঙ্গারকে গ্রেপ্তার করেছে সিবিআই। আক্রান্তের কাকার অভিযোগ, ইউনুসকে বিষ খাইয়ে মেরে ফেলা হয়েছে। তাঁর পরিবারের কাছে ইউনুসের দেহের ময়নাতদন্তের অনুমতি চেয়েছেন ধর্ষিতার কাকা। তিনি বলেন, ‘‌আমি উন্নাওয়ের এসপি হরিশ কুমারের সঙ্গে দেখা করে আমার এই আবেদন তাঁর কাছে জমা দিয়েছি। আমি তাঁকে অনুরোধ করেছি ইউনুসের দেহ কবর থেকে তুলে এনে ময়নাতদন্ত করা হোক। ইউনুস এই মামলার অন্যতম সাক্ষী ছিলেন। আচমকা তাঁর মৃত্যু হল তা কোনওভাবেই মানতে পারছি না।’‌
উন্নাওয়ের ১৬ বছরের কিশোরীকে ৪ জন মিলে ধর্ষণ করে এবং সেই ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে দেয়। এই ঘটনায় পুলিস ৪ জনকেই গ্রেপ্তার করেছে। ইউনুসের প্রতিবেশীরা জানান, পুলিসকে কিছু না জানিয়েই ইউনুসের দেহ কবর দিয়ে দেওয়া হয়। ধর্ষিতার কাকা আবেদনে আরও জানান, কুলদীপ সেঙ্গার এবং তার দলের লোকেরা সাক্ষীদেরকে কিনে নিতে চাইত। তিনি বলেন, ‘‌আমি এফআইআরে মাখি পুলিসকে জানিয়েছে যে এদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হোক।’‌ এ বছরের এপ্রিলেই উন্নাওয়ের এক কিশোরী অভিযোগ করেন যে বিধায়ক কুলদীপ সিং সেঙ্গার সহ চারজন তাকে ধর্ষণ করেছে। দোষীদের শাস্তির দাবিতে ওই কিশোরী এবং তার পরিবার উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের বাড়িতেও প্রতিবাদ জানাতে আসে। এরপরই পুলিস কিশোরীর বাবাকে গ্রেপ্তার করে নিয়ে যায়। পুলিস হেফাজতেই মৃত্যু হয় কিশোরীর বাবার।  বিদ্যজনেদের একাংশের দাবি , উত্তরপ্রদেশে যে নৈরাজ্য চলছে , এটাই তার সব থেকে বড় নিদর্শন , যেখানে গরিবের কথা শোনার কেউ নেই ।
তাদের দাবি ইতিমধ্যেই প্রধানমন্ত্রীর উচিত হস্তক্ষেপ করে প্রেস বিবৃতি দেওয়া ।



তথ্য কৃতজ্ঞতা স্বীকার "আজকাল "

No comments:

Post a Comment

loading...