Friday, 7 September 2018

আমডাঙার থেকেই কার্যত লোকসভা নির্বাচনী প্রচার শুরু করলেন সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়

ওয়েব ডেস্ক ৬ই  সেপ্টেম্বর ২০১৮: তাহলে আমডাঙ্গা  থেকেই কি তৃণমূল লোকসভার প্রচার শুরু করল ? বিদ্যজনেদের একাংশ তো সেরকমই মনে করছে ।বৃহস্পতিবার বিকেলে আমডাঙার বহিষগাছিতে উত্তর ২৪ পরগনা জেলা তৃণমূল দলীয় কর্মীদের খুন এবং সিপিএমের সন্ত্রাসের প্রতিবাদে শান্তি মিছিল ও জনসভার ডাক দিয়েছিল। সভায় প্রধান বক্তা ছিলেন অভিষেক ব্যানার্জি।


                                                                                            প্রতীকী চিত্র

সেখানে তিনি বলেন, ‘‌সপ্তমী শুরু হল আমডা‌ঙায়। বিসর্জন হবে দিল্লিতে। ‌৯ দিন আগে বহিষগাছিতে দুই তৃণমূল কর্মী খুন হন। এই খুনে অভিযুক্ত জাকির বল্লুক যেখানেই লুকিয়ে থাকুক না কেন তাকে গ্রেপ্তার করবে প্রশাসন। মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি ইতিমধ্যেই এবিষয়ে প্রয়োজনীয় নির্দেশ দিয়েছেন।’
‌ একইসঙ্গে তিনি জানান বোমা–বন্দুকের কারবার করার জন্যই এখানকার পঞ্চায়েত গায়ের জোরে দখল করার চেষ্টা করে জাকির বল্লুকরা। কিন্তু তাদের সেই চেষ্টা কখনওই সফল হবে না। গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতেই বোদাই, মরিচা ও তাড়াবেরিয়া গ্রাম পঞ্চায়েত গঠন করবে তৃণমূল। এই কথার পর অভিষেক বলেন, ‘‌আজ থেকে আমডাঙার দায়িত্ব নিলাম। যতবার প্রয়োজন হবে আমডাঙায় ততবার আসব। ‌আমডাঙায় সন্ত্রাস করার চেষ্টা করলে কত ধানে কত চাল তা বুঝে নেব। তৃণমূলকে ধমকে–চমকে আটকানো যাবে না। আমডাঙায় বন্দুক বোমার কারবার করার চেষ্টা করলে প্রশাসন কড়া হাতে ব্যবস্থা নেবে। ‌গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে হার্মাদ ও জল্লাদের বরবাদ করতে হবে।’‌ আমডাঙার ঘটনায় দুই তৃণমূল কর্মী হামলার শিকার হন। তাঁদের দুটি হাত নষ্ট হয়েছে। সেই প্রসঙ্গে অভিষেক জানান, ‌তাঁদের সেই হাত কসমেটিক ট্রিটমেন্টের মাধ্যমে তৈরি করে দেওয়া হবে। সভা ও শান্তি মিছিলে সাধারণ মানুষ ভিড় দেখে অভিষেক বলেন, ‘‌আমি নিশ্চিত আমডাঙায় সিপিএম এবং বিজেপি–র আর কোনও ঠাঁই হবে না।’‌  মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মতো অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ও যে কোনো রকম অরাজগতা এ রাজ্যে সহ্য করবেননা ইটা তারই বহিঃপ্রকাশ বলে মনে করেন বিদ্যজনেদের একাংশ ।আগামী লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূল পশ্চিম বাংলায় বিরোধী শূন্য করতে পারে কিনা এখন এটাই দেখার ।



তথ্য কৃতজ্ঞতা স্বীকার "আজকাল "

No comments:

Post a Comment

loading...