Friday, 14 September 2018

বিজয় মালিয়ার ব্যাপারে সিবিআই তাদের ত্রূটি স্বীকার করে নিল, জন্ম দিলো অনেক প্রশ্নের

ওয়েব ডেস্ক ১৪ই সেপ্টেম্বর ২০১৮: দীর্ঘ দিন ধরে একটি অভিযোগ সামনে আসছিলো , সিবিআই ক্ষমতাসীন দলের কথায় ওঠা বসা করে । ক্ষমতায় থাকা রাজনৈতিক দল তাদের যেভাবে চালায় তারা অনেক সময়ই সেই ভাবে চলে, এবার কিছুটা হলে বিজয় মালিয়ার ব্যাপারে নিজেদের দোষ স্বীকার করে  নিয়ে সেই আশঙ্কাকেই সিলমোহর দিলো বলে মনে করছেন বিদ্যজনেদের একাংশ । সিবিআই সূত্রে জানা গিয়েছে, ২০১৫ সালে বিজয় মালিয়ার বিরুদ্ধে থাকা লুক আউট নোটিস–এ আটক শব্দ থেকে তার যাতায়াতের ওপর নজরদারি, শুধুমাত্র এটাই উল্লেখ ছিল।


তবে নিজেদের পিঠ বাঁচাতে এর পিছনে ব্যাখা দিয়েছে সিবিআই। তারা জানিয়েছে, বিজয় মালিয়া সেই সময় তদন্তে সাহায্য করছিলেন, সেই জন্যই লুক–আউট নোটিসে পরিবর্তন করা হয়েছিল। সেই সময় বিজয় মালিয়ার বিরুদ্ধে কোনও পরোয়ানাও জারি ছিল না বলেও জানা গিয়েছে। সিবিআই সূত্রে আরও জানা যায়, বিজয় মালিয়ার বিরুদ্ধে প্রথম লুক আউট নোটিস জারি করা হয়েছিল ২০১৫ সালের ১২ অক্টোবর। সেই সময় মালিয়া বিদেশে ছিলেন। সূত্রের খবর অনুযায়ী, তাঁর ফিরে আসার পর সিবিআই জানায়, বিজয় মালিয়াকে গ্রেপ্তার বা আটক করার দরকার নেই। কেননা সেই সময় তিনি সাংসদ ছিলেন। তার গতিবিধির ওপর নজরদারি চালালেই হবে। তৎকালীন সময়ে সিবিআইয়ের তদন্ত প্রক্রিয়া ছিল একেবারে প্রাথমিক পর্যায়ে। সেইসময় সিবিআই আইডিবিআই–এর কাছ থেকে ৯০০ কোটি টাকা ঋণের বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ করেছিল। সিবিআই–এর তরফে ২০১৫ সালের নভেম্বরের শেষ সপ্তাহে নতুন করে লুক–আউট নোটিশ জারি করা হয়। দেশের সব বিমানবন্দরকে বিজয় মালিয়ার গতিবিধি সম্পর্কে জানাতে বলা হয়। যদি তিনি দেশান্তরিত হওয়ার চেষ্টা করেন, তাহলে তাকে আটক করারও নির্দেশ দেওয়া হয়। সূত্রের খবর অনুযায়ী, মালিয়া ২০১৫ সালের অক্টোবরে বিদেশ গিয়ে নভেম্বরে ফিরে আসেন। পরে ডিসেম্বরের প্রথম ও শেষ সপ্তাহে এবং ২০১৬ সালের জানুয়ারিতে বিদেশ সফর করেছিলেন। এর মধ্যে লুক–আউট নোটিসের প্রেক্ষিতে, ২০১৫ সালের ৯ থেকে ১২ ডিসেম্বরের মধ্যে একবার দিল্লি এবং দু’‌বার মুম্বইয়ে তদন্তকারী সংস্থার সামনে হাজিরা দিয়েছিলেন। সিবিআই-এর তরফে নিজেদের ভুল স্বীকার করে জানানো হয়েছে, তাদের নোটিসে পরিবর্তন নিজেদের বিচারের ত্রুটির কারণেই হয়েছে। তাই বিজয় মালিয়াকে হাতের কাছে পেয়েও গ্রেপ্তার করা যায়নি। ২০১৬ সালের ২ মার্চ বিজয় মালিয়া দেশ ছেড়ে পালিয়ে যান।বিদ্যজনেদের একাংশের দাবি কার কথা মতো বা কার অঙ্গুলি হিলনে , সিবিআই লঘু করে সব দেখতে শুরু করেছিল বিজয় মালিয়ার ব্যাপারে সেটা সামনে আসা উচিত ।সত্যি সামনে আসবে তো ?



তথ্য কৃতজ্ঞতা স্বীকার "আজকাল "

No comments:

Post a Comment

loading...