Sunday, 30 September 2018

বিপ্লবের গড়ে দাঁড়িয়েই নেতাজির নিখোঁজ হওয়ার রহস্য উদ্ঘাটন করলেন বিজেপির সুব্রামানিয়াম স্বামী

ওয়েব ডেস্ক ৩০শে সেপ্টেম্বর ২০১৮: নেতাজির মৃত্যু নিয়ে নানা মুনির নানা মত রয়েছে , এবার সাম্প্রতিক সংযোজন করলেন বিজেপির সুব্রামানিয়াম স্বামী , কোথায় করলেন ? আগরতলায়  ৷ বিপ্লব দেবের  গড়ে দাঁড়িয়ে সুব্রামানিয়াম স্বামী বলেন ‘নেতাজি ১৯৪৫ সালে মোটেই মারা যাননি৷ তাঁকে খুনের ষড়যন্ত্র করেন জওহরলাল নেহরু এবং জাপানীরা৷ সেই সময় সুভাষ চন্দ্র বসু রাশিয়াতে থাকতে চেয়েছিলেন৷ তাঁকে থাকার অনুমতিও দেয় রাশিয়া৷ জওহরলাল নেহরু সব জানতেন৷ পরে তাঁকে সাইবেরিয়াতে গোপনে খুন করা হয়৷ সেই নির্দেশ দিয়েছিলেন স্তালিন৷’’ যদিও স্তালিন কেন সেই নির্দেশ দিয়েছিলেন তা পরিস্কার জানাননি তিনি৷

                        
দেশ স্বাধীন হওয়ার পর ১৯৪৮ সালে ভারতে আসেন তৎকালীন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ক্লেমেন্ট অ্যাটলিস৷ তাঁর একটি বক্তব্যকে উদ্ধৃত করে স্বামী জানান, নেতাজির কারণে ব্রিটিশরা দেশ ছাড়তে বাধ্য হয়৷ তিনি বলেন, ‘‘ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী স্বীকার করে নিয়েছিলেন সেই সময় ভারত শাসন করা খুবই কঠিন হয়ে পড়েছিল৷ ব্রিটিশ সেনাবাহিনীতে নিযুক্ত ভারতীয়রা ব্রিটিশদের বিরুদ্ধে অস্ত্র তুলে নিচ্ছিল৷ অপরদিকে সিঙ্গাপুরে আজাদ হিন্দ সরকার গঠনের পর ব্রিটিশরা আরও ভয় পেয়ে যায়৷ নেতাজির কারণেই ব্রিটিশরা দেশ ছাড়তে বাধ্য হয়৷ পরাধীনতার বেড়াজাল থেকে মুক্ত হয় ভারত৷’’এর আগেও নেতাজি খুনে জোসেফ স্তালিনকে কাঠগড়ায় তুলেছিলেন বিজেপির এই বির্তকিত নেতা৷ শনিবার আরও একবার সেই কথাই বলেন তিনি৷ আগরতলার সংস্কৃতিক গৌরব সংস্থার আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে এসে বিজেপি সাংসদ দাবি করেন, নেতাজি কমিউনিস্ট রাশিয়াতে আশ্রয় চেয়েছিলেন৷ পরবর্তীকালে সেখানেই তাঁকে খুন করা হয়৷ বিদ্যজনেদের একাংশের দাবি , এই রকম একটা স্পর্শকাতর ব্যাপার সুব্রানিয়াম স্বামী যে এতো অনায়াসেই বলে দিতে পারেন ,সেটা স্বামীর অতি বিরোধীরাও হয়তো আঁচ করতে  পারেনি ৷তবে সুব্রামানিয়াম স্বামী কি করে এই খবর গুলো পেলেন সেটা ওনার খোলসা করে জানানো উচিত বলেই মনে করেন বিদ্যজনেদের একাংশ ৷


তথ্য কৃতজ্ঞতা স্বীকার "কলকাতা ২৪*৭ 

No comments:

Post a Comment

loading...