Monday, 3 September 2018

কোনো অপরাধ ছাড়াই জেলে দিন কাটাচ্ছেন লখনউয়ের কিছু বাসিন্দা

ওয়েব ডেস্ক ৩রা সেপ্টেম্বর ২০১৮ :  যোগী আদিত্যনাথ উত্তর প্রদেশের মসনদে বসার আগে অঙ্গীকার করেছিলেন , উত্তর প্রদেশের চেহেরাটাই পাল্টে দেবেন ।সে চেহারা হবে উন্নতির চেহেরা , আদর্শের চেহেরা ।কিন্তু বাস্তবে দেখা যাচ্ছে উত্তরপ্রদেশ আছে উত্তর প্রদেশেই । সেখানকার মানুষ এখনো কুসংস্কারে ডুবে রয়েছে , তারা জ্যোতিষ শাশ্রকেই তাদের জীবনের মাগ প্রদর্শনের পথ হিসেবে মনে করেন । উস্কে দিচ্ছে , এই জল্পনা যে উত্তর প্রদেশের শিক্ষার অবস্থা ভীষণ খারাপ ।


প্রসঙ্গত ,অপরাধ না করলে কেউ কোনওদিন জেলমুখো হয় না। জেলে একরাত কাটানো মানে তা তাঁর জীবনের বিভীষিকাময় রাত। কিন্তু লখনউতে এরকম অনেকেই রয়েছেন, যাঁরা কোনও অপরাধ না করেই জেলে রাত কাটাচ্ছেন এবং তা সম্পূর্ণ স্ব–ইচ্ছায়। আসল কথা হল, তাঁদের কোষ্ঠীতে ‘‌জেল যোগ’‌ থাকায় তাঁরা নিজেরাই জেলে যাচ্ছেন। এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক স্ব–ইচ্ছায় জেলে যেতে চান এমন সকলকেই সাহায্য করছেন।
জানা গিয়েছে, গোমিতনগরের ৩৮ বছরের ব্যবসায়ী রমেশ সিং এ বছরের মে মাসে ২৪ ঘণ্টার জন্য জেলে রাত কাটান। তিনি বলেন, ‘‌আমার কোষ্ঠী বিচার করে আমার পারিবারিক জ্যোতিষি জানান যে আমার জেল যোগ রয়েছে। যা ভবিষ্যতে আমাকে এবং আমার পরিবারকে সমস্যায় ফেলতে পারে। পরিবারের সকলে তা শুনে ভয় পেয়ে যায়। এরপর জ্যোতিষি পরামর্শ দেন যে আমি যদি কোনও অপরাধ ছাড়াই জেলে রিছু সময় কাটাই তবে এই জেল যোগ কেটে যাবে।’‌ রমেশ এরপর এপ্রিল মাসে নিজের কোষ্ঠীর প্রতিলিপি দিয়ে জেলে থাকার আবেদন জানান জেলা প্রশাসনকে। রমেশকে এরপর স্থানীয় থানার লক–আপে ২৪ ঘণ্টার জন্য জেলে থাকার অনুমতি দেওয়া হয়।বিদ্যজনেদের  একাংশের মত , যোগী আদিত্যনাথ আসার পর উত্তর প্রদেশের বিশেষ কিছু উন্নতি হয়েছে বলে তো চোখে পড়েনা বরং উল্টোটাই হয়েছে ,মানুষ এখনো কুসংস্কারে বিশ্বাসী , এখনো শিক্ষা দীক্ষার থেকে বহু দূরে , এখনো শিক্ষার প্রসার যে হয়নি সেটাই প্রমান করে ওপরের এই কর্মকান্ড ।


তথ্য কৃতজ্ঞতা স্বীকার "আজকাল "

No comments:

Post a Comment

loading...