Sunday, 23 September 2018

ইসলামপুরের ঘটনা পূর্ব পরিকল্পিত বলেই মনে করেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়

ওয়েব ডেস্ক  ২৩ শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ :সন্দেহটা অনেক আগেই ছিল , এবার রাজ্যের মন্ত্রীর মুখ থেকেই সেই একই কথা বেরোল। বিদ্যজনেদের একাংশ অনেক আগে থেকেই বলে আসছিলেন ইসলামপুরের ঘটনা পূর্ব পরিকল্পিত ছাড়া হতেই পারেনা , এবার সেই কথায় পার্থ চট্টোপাধ্যায় বললেন । সঙ্গে তিনি এও যোগ করেছেন  ‘‌পুলিসের কেউ দোষী প্রমাণিত হলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এই ঘটনায় ডিআইয়ের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন আছে। তাঁকে ইতিমধ্যেই সাসপেন্ড করা হয়েছে। বিভাগীয় তদন্ত চলছে। সেখানে তিনি দোষী প্রমাণিত হলে সর্বোচ্চ শাস্তি পেতে হবে তাঁকে।’‌নদিয়ার কৃষ্ণনগরে একটি দলীয় অনুষ্ঠানে গিয়েছিলেন শিক্ষামন্ত্রী।


সেখানে তিনি বলেন, ‌‘‌যে ছাত্ররা শিক্ষক চাইছে তারা কি এভাবে বিদ্যালয় ধ্বংস করতে পারে?‌ ক্লাসরুম, টেবিল, চেয়ার, কম্পিউটার সব কিছু ভেঙে দেওয়া হয়েছে। সব কিছু দেখে মনে হচ্ছে এই ঘটনাটি পূর্বপরিকল্পিত। এর পেছনে গভীর পরিকল্পনা আছে।’‌ এদিন রাতে কলকাতায় ফিরে নাকতলায় নিজের বাড়িতে রাত সাড়ে ৮টা নাগাদ পার্থ সাংবাদিক বৈঠক করেন। তিনি বলেন, ‘‌রবিবার দুপুর দেড়টায় তৃণমূল ভবনে জরুরি বৈঠক ডাকা হয়েছে। মন্ত্রীরা থাকবেন। এছাড়া পর্যবেক্ষকদেরও ডাকা হয়েছে। ইসলামপুর নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হবে।’‌ মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির সঙ্গে পার্থর কথা হয়েছে। তিনি বলেন, ‘‌ছাত্ররা কখনই নিজেদের স্কুল ভাঙচুর করতে পারে না। বন্‌ধ নিয়ে বিজেপি দিবাস্বপ্ন দেখছে। বাংলাকে ওরা মৃত্যুপুরী করতে চায়। আরএসএস ও বিজেপি সুপরিকল্পিতভাবে ইসলামপুরে এ ঘটনা ঘটিয়েছে।’‌ দুই ছাত্রের মৃত্যুর ঘটনা সম্পর্কে পার্থ বলেন, ‘‌এদের অকালে চলে যাওয়ার দায়িত্ব নিতে হবে আরএসএস ও বিজেপি–কে। পুলিসের গাফিলতি থাকলে ব্যবস্থা নেবে প্রশাসন।’‌ তিনি বলেন, ‘‌আরএসএস বিজেপি–কে বাঁচানোর চেষ্টা করছে। অন্যদিকে, আরএসএসের নামও পাওয়া গেছে। বিদ্যজনেদের একাংশের মন্তব্য খুব পাকা মাথার বুদ্ধি না হলে এরকম কাজ করা যায়না ।আর যারা ওখানে গোলমাল পাকাতে এসেছিল , তারা যদি সত্যি তারা স্কুল ছাত্র হতো তাহলে মুখে গামছা দিয়ে আসতোনা ।



তথ্য কৃতজ্ঞতা স্বীকার "আজকাল"

No comments:

Post a Comment

loading...