Monday, 3 September 2018

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে বিদেশী কোচের ওপর নির্ভরতা দেখালেন রাহুল , এখন ইয়ো ইয়ো টেস্টটাই বাকি

ওয়েব ডেস্ক ৩রা সেপ্টেম্বর ২০১৮ : সৌরভ গাঙ্গুলির আমলে  প্রথম বিদেশী কোচের আবির্ভাব হয় ভারতীয় ক্রিকেটে , তিনি ছিলেন জন রাইট , প্রাক্তন কিউই অধিনায়ক । তার "ম্যাচ রিডিং " ক্ষমতা ছিল অসাধারণ ,সেরকমই ছিল স্ট্রাটেজি তৈরী করার মুন্সিয়ানা , সেই বুদ্ধির ওপর নির্ভর করে আর সৌরভ গাঙ্গুলির নেতৃত্ব দেওয়ার ক্ষমতা কে কাজে লাগিয়ে ভারতের ঝুলিতে বিদেশের মাঠে একের পর এক সাফল্য এসে পড়েছিল  ।কংগ্রেসের অন্দর মহল কি ভেবেছে সেটা এখনই বলা কঠিন ,তবে সব কিছু ঠিক থাকলে আগামী লোকসভা নির্বাচন ২০১৯ শের কথা মাথায় রেখে  হাভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় এক অধ্যাপককে কংগ্রেস তাঁদের রাজনৈতিক পরামর্শদাতা হিসেবে নিয়োগ করতে পারে বলে জোর জল্পনা ।কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী চাইছেন, হাভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক স্টিভ জার্ডিংকে ২০১৯-এর রণকৌশল তৈরির কাজে লাগাতে।


একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে সম্প্রতি এই খবর প্রকাশিত হয়েছে। খবরে প্রকাশ, সম্প্রতি কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী তাঁর লন্ডন সফর চলাকালীন স্টিভের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন।রাহুলের লন্ডন সফর থেকেই জল্পনা শুরু হয়েছে কংগ্রেসের রাজনৈতিক পরামর্শদাতা হিসেবে স্টিভ জার্ডিংকে আনতে পারে কংগ্রেস। এরপরই দু-পক্ষই প্রাথমিকভাবে সম্মতি প্রদান করেছেন বলেও জানা গিয়েছে। ফলে বিষয়টি চূড়ান্ত রূপ পেতে শুরু করেছে। স্টিভ জার্ডিং-এর প্রতিষ্ঠিত সংস্থা এসজেবি স্ট্র্যাটেজিস্ট ইন্টারন্যাশনালের সঙ্গে কংগ্রেস চুক্তি করতে পারে। এই চুক্তির পর ২০১৯-এর স্ট্র্যাটেজি ঠিক করতে ভারতে আসতে পারেন জার্ডিং।জার্ডিংয়ের নির্বাচনী বিশ্লেষক হিসেবে আন্তর্জাতিক খ্যাতি রয়েছে। মার্কিন রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী হিলারি ক্লিনটন, স্পেনের প্রধানমন্ত্রী মারিয়ানা রাজয়, মার্কিন উপরাষ্ট্রপতির রাজনৈতিক পরামর্শদাতা হিসেবে কাজ করঠচেনে স্টিভ জার্ডিং। এবার সেই তালিকায় সংযোজিত হতে চলেছে আরও একটি নাম- রাহুল গান্ধী।২০১৯-এ মহাযুদ্ধের কংগ্রেসের পরামর্শদাতা হিসেবে নির্দিষ্ট পরিকল্পনা রূপায়ণ করবেন স্টিভ। কংগ্রেস গতবার মাত্র ৪৪টি আসন জিতেছিল। এবার ক্ষমতায় আসতে হলে কংগ্রেসকে ২০০-র কাছাকাছি আসন পেতে হবে। তবেই কংগ্রেসের নেতৃত্বে ইউপিএ ক্ষমতায় আসতে পারে। সেই লক্ষ্যে গতবারের জেতা ৪৪টি আসন নিয়ে পৃথক পরিকল্পনা নেওয়া হবে। এরপর ভিন্ন পরিকল্পনা রচিত হবে ওই ৪৪টি বাদ দিয়ে যে সব আসনে ভালো ফল করার সম্ভাবনা রয়েছে কংগ্রেসের। এখানেই থেমে থাকবে না পরিকল্পনা। কংগ্রেস শুধু নিজেদের কথাই ভাববে না, ভাববে জোটের কথাও। রাজনৈতিক পরামর্শদাতা হিসেবে জার্ডিং কংগ্রেস-জোটের প্রার্থীদের নিয়েও নির্দিষ্ট পরিকল্পনা কষে দেবেন। কংগ্রেসের জোট-কৌশল কী হবে, তার রূপরেখাও তৈরি করে দেবেন এই নির্বাচনী বিশ্লেষক।এছাড়া কংগ্রেস উত্তরপ্রদেশ নিয়ে যে আলাদা করে ভাবছেন, তাও স্পষ্ট হয়েছে। নয়া রাজনৈতিক পরামর্শদাতা হিসেবে জার্ডিংয়ের কাছে উত্তরপ্রদেশের পরিস্থিতিও তুলে ধরা হবে। গো-বলয়ের এই গুরুত্বপূর্ণ রাজ্যে কংগ্রেস কীভাবে জাল বিস্তার করবে, কীভাবে মহাজোটের পথে হেঁটে বিজেপিকে ধরাশায়ী করবে, তাও স্থির করে দেবেন রাজনৈতিক পরামর্শদাতা জার্ডিং।
নরেন্দ্র মোদীর মতো শক্ত প্রতিপক্ষকে , বাগে আনতে চিন্তা ধারায় আধুনিকের ছোঁয়া যে লাগাতে হবে সেটা রাহুল গান্ধী ভালোই বুঝতে পেরেছেন ।আর বর্তমানে উন্নতির কোনো সীমা যে হয়না সেটাও অজানা হয় রাজীব পুত্রের ,তাই নতুন প্রযুক্তির সাথে অথ্যাধুনিক বিজ্ঞানসম্মত চিন্তা ধারা যে দরকার আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে ভালো ফল করার জন্য সেটা বাস্তবায়নে কতটা সময় লাগে এখন সেটাই দেখার ।আপাতত বিদ্যজনেদের এটাই মত ।









No comments:

Post a Comment

loading...