Sunday, 9 September 2018

দলিত মহিলা রান্না করাতে অভিভাবকদের প্ররোচনায় মিড্ ডে মিল খেতে অসম্মতি জানালো পড়ুয়ারা,উত্তরপ্রদেশে

ওয়েব ডেস্ক ৯ই সেপ্টেম্বর ২০১৮ : যেই উচ্চ সম্প্রদায়ের লোক নারী জাতিকে সুরক্ষা দিতে পারেনা তাদের জাত পাত নিয়ে কথা বলার কোনো অধিকার আছে কি ? আর বর্ণ বিদ্বেষ হলো সব থেকে বড় অপরাধ এটা   মানব জাতির অপমান যার কোনো ক্ষমা হয়না , ঠিক এই ভাষাতেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোলড হয়েছে এই কথা গুলি যখন খবরের শিরোনামে এসেছে ,যে একজন নিচু জাতির মহিলা  রান্না করাতে ,সেই স্কুলের পড়ুয়ারা তাদের অভিভাবকদের প্ররোচনায় কেউ মিড্ ডে মিল খাইনি ।ঘটনাটি সীতাপুরের পালহারিয়া গ্রামের।
অধিকাংশ গ্রামবাসীই যাদব আর ব্রাহ্মণ সম্প্রদায়ের। মিড-ডে মিল রান্না করেছেন স্থানীয় এক নিম্নবর্ণের মহিলা, এই খবর ছড়িয়ে পড়া মাত্র অভিভাবকরা স্কুলে চড়াও হন।  স্কুল কর্তৃপক্ষ প্রথমে অভিভাবকদের বোঝানোর চেষ্টা করেন।  কিন্তু তাঁরা গোঁ ধরে থাকেন, দলিত মহিলার রান্না করা খাবার ছেলেমেয়েদের দেওয়া যাবে না। এর পর বাধ্য হয়েই খাবার ফেলে দেয় স্কুল কর্তৃপক্ষ।জানা গিয়েছে, স্কুলটিতে প্রতিদিন যিনি রান্না করেন, তিনি যাদব সম্প্রদায়ের। তাঁকে নিয়ে কোনও আপত্তি ছিল না অভিভাবক ও গ্রামবাসীদের। তিনি কোনও কারণে স্কুলে না আসায় স্থানীয় ‘আরাখ’ সম্প্রদায়ের একজন এ দিন রান্না করেন। নতুন রাঁধুনি দলিত সম্প্রদায়ের। অভিভাবকরা মেনে নিতে পারেননি নতুন রাঁধুনিকে। সেই রোষই এসে পড়ে স্কুলের মিড-ডে মিলের উপর।পুরো ঘটনায় তদন্তের দাবি করেছেন প্রাক্তন আইপিএস আধিকারিক ও সমাজকর্মী এস আর দারাপুরি। তাঁর দাবি, নিম্নবর্ণের রাঁধুনির খাবার ফেলে দেওয়া আসলে শীর্ষ আদালতের নির্দেশ অমান্য করা। কারণ, শিশুমন থেকে জাতপাতের বিভাজন দূর করতে উত্তরপ্রদেশের স্কুলগুলিতে রাঁধুনি পদে নিম্নবর্ণের মহিলাদের নিয়োগ করতে পরামর্শ দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। যদিও পুরো ঘটনায় মুখে কুলুপ এঁটেছেন উত্তরপ্রদেশ শিক্ষা দফতরের কর্তাব্যক্তিরা।বিদ্যজনেদের একাংশ বলেন যতই বিজেপি তাদের কর্ম সূচিতে দলিতদের ঘরের রান্না খাওয়ার পরিকল্পনা করুক না কেন ,ভোট পাওয়ার উদ্দেশে ,ভেতরে ভেতরে তাদের নেতারা তাদের মন থেকে জাত পাতের ব্যাপারটা কতটা মুছতে পেরেছে তা নিয়ে সন্দেহ আছে ।তাদের দাবি এ বিষয়ে খোঁজ খবর করে যোগী আদিত্যনাথের উচিত কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া ।


তথ্য কৃতজ্ঞতা স্বীকার "আনন্দবাজার পত্রিকা "

No comments:

Post a Comment

loading...