Monday, 24 September 2018

তৃণমূল-ময় মুর্শিদাবাদ , উন্নয়নের জোয়ারেই নিশ্চিন্ন বাম-কংগ্রেস

সেই স্বাধীনতা উত্তরীয় যুগ থেকে মুর্শিদাবাদ ছিল বঙ্গ কংগ্রেসের গড়। পরবর্তীতে বাম- কংগ্রেসের রাজনৈতিক দাপটের উত্তপ্ত  'লু' ঝলসে দিয়েছে মুর্শিদাবাদকে।  মাঝে কোথাও কেমন বিজেপির গুঞ্জন শোনা গেলেও ,তা হালে পানি পায়নি।  শেষ পর্যন্ত দীর্ঘ অন্ধকার যুগের ইতিহাসকে মুছে দিয়ে, তৃণমূল কংগ্রেসের জয়ে মুর্শিদাবাদে এক স্বর্ণালী যুগের সূচনা হলো।    
                            
মুর্শিদাবাদ জেলায় ২৫০ টি গ্রাম পঞ্চায়েতের মধ্যে , তৃণমূল কংগ্রেস একক ভাবে বিপুল জনসমর্থনের মধ্যে দিয়ে ২৪৫ টি আসনে জয়লাভ করেছে।  কেন্দ্রের দুই বিপরীত মেরুর শক্তি বিজেপি কংগ্রেস - রাজ্যে জোটবদ্ধ ভাবে লড়াই করে, কংগ্রেস ফারাক্কায় টি পঞ্চায়েত বিজেপি টি তে যায় লাভ করেছে। আর সিপিএম এই পঞ্চায়েত ভোটে লুপ্ত প্রায় প্রাণীতে পরিণত হয়েছে।  একই ভাবে পঞ্চায়েত সমিতিতেও মোট ২৬ টি আসনের মধ্যে ২৫ টি আসনে তৃণমূল জয়লাভ করে এক নাজির সৃষ্টি করেছে।  এছাড়া জেলা পরিষদেও ৭০ টি আসনের মধ্যে ৬৯ টি আসনই  তৃণমূলেরই দখলে। তবে টি গ্রামপঞ্চায়েত দখল করে বিজেপি উঁকি দিলেও , কংগ্রেসের সঙ্গে তাদের আঁতাত জনসমক্ষে প্রমাণিত হয়েছে।কার্যত বাম-কংগ্রেসের উপর জনগনের ক্রমশ আস্থা হারিয়ে পড়ায় , ২০১৬ সালের বিধানসভা ভোটের আগে থেকেই তৃণমূলের সংগঠন ক্রমশ শক্তশালী মজবুত হতে থাকে।  এছাড়া তৃণমূল স্তরের সাধারণ মানুষের সাথে সুসম্পর্ক  স্থাপন সুখ দুঃখের সাথী হয়ে সর্বদা পাশে থেকে, ক্রমশ আস্থা ভাজন হয়ে উঠেছে  তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মীরা।  তবে মুর্শিদাবাদ জেলায় তৃণমূল কংগ্রেসের সাফল্যের মূল চাবি কাঠি হলো 'উন্নয়ন' 

তৃণমূল যুব কংগ্রেসের রাজ্য সম্পাদক সৌমিক হোসেন বলেন - মমতা ব্যানার্জীর উন্নয়নে সামিল হতে মানুষ একজোট হয়ে ধীরে ধীরে সংগঠন কে বাড়িয়ে ক্রমশ শক্তিশালী করে তুলেছেন।  আর মাননীয় মুখ্যমন্ত্রীর উন্নয়নের কর্ম যজ্ঞে- 'অবহেলিত মুর্শিদাবাদ' জেলা তৃণমূল কংগ্রেসকে আজ একনম্বর দলে পরিণত করেছে।

No comments:

Post a Comment

loading...