Wednesday, 31 October 2018

মেয়াদের আগেই আর.বি.আই গভর্নররা ইস্তফা দিতে পারে , চলছে জল্পনা , কিন্তু কেন ? পড়ুন

ওয়েব ডেস্ক ৩১শে অক্টোবর ২০১৮ :বিজেপির স্বেচ্ছাচারিতা এমন একটা জায়গায় গিয়ে পৌঁছিয়েছে যে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের গভর্নর, ডেপুটি গভর্নর সহ তাঁদের গোটা টিম মেয়াদ পূরণের আগেই ইস্তফা দিতে পারে বলে আশঙ্কা করছে ওয়াকিবহাল মহল।সারা বিশ্বে মোদীজিকে প্রায়ই দেখা যায় বিভিন্ন দেশের সাথে দ্বিপাক্ষিক আলোচনায় , এতে ভারতের অর্থনীতির উন্নতি যে ঘটছেনা তা রিজার্ভ ব্যাঙ্কের উঁচুতলার লোকেদের বিদ্রোহেই স্পষ্ট । তারা আশঙ্কা আগেই করেছিল ভারতের অর্থনীতির এই বেহাল দশায় . কিন্তু কর্ণপাত করেনি শাসক দল , এবার এক সাথে গভর্নর,ডেপুটি গভর্নর সহ সবাই যদি ইস্তফার পথে হাটে সেটা একটা নজির বিহীন ঘটনায় পরিণত হবে ।



প্রসঙ্গত , লাগাতার পাঁচ বছর ধরে অর্থনীতির দুরবস্থার পর অবশেষে কিছু আশাব্যঞ্জক সিদ্ধান্ত তথা প্রকল্প ঘোষণা করতে উদগ্রীব সরকার। কিন্তু বাজেট তৈরির সময় সরকার এবং যে সংস্থার মধ্যে সবথেকে বেশি সমন্বয়ের প্রয়োজন সেই রিজার্ভ ব্যাঙ্ক ও অর্থমন্ত্রকের মধ্যে কার্যত বাক্যালাপ বন্ধ হওয়ার মতোই পরিস্থিতি।সুদের হার পরিবর্তন নিয়ে অর্থমন্ত্রক ও রিজার্ভ ব্যাঙ্কের মতান্তরও চরম আকার নিয়েছে মাঝেমধ্যেই। নন ব্যাঙ্কিং আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলিকে আরও বেশি ছাড় দিয়ে তাঁদের সুবিধা করে দেওয়া নিয়ে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক ও সরকারের মধ্যে বিরোধ এখনও চলছে। নীরব মোদি কাণ্ডের পর সরকারের পক্ষ থেকে প্রায় গোটা দায় রিজার্ভ ব্যাঙ্কের উপর চাপিয়ে দেওয়ার একটি চেষ্টা হয়। সেটি রিজার্ভ ব্যাঙ্ককে ক্ষুব্ধ করে। এর পাশাপাশি আবার রিজার্ভ ব্যাঙ্কের পরিচালন বোর্ডে বাইরে থেকে কয়েকজন ডিরেক্টরকে চাপিয়ে দেওয়া হয়েছে। সেটা নিয়েও আপত্তি তুলেছেন গভর্নর ও ডেপুটি গভর্নর। সব মিলিয়ে সরকার ও রিজার্ভ ব্যাঙ্কের এই দ্বন্দ্ব নিয়ে চরম অচলাবস্থা চলছে। অথচ সামনেই বাজেট।বিদ্যজনেদের একাংশের জিজ্ঞাস্য , কেন সরকারের সাথে বার বার সংঘাত লাগছে আর.বি.আই এর গভর্নরদের  সাথে সেটা একবার ভেবে দেখা উচিত , যেই গভর্নরের পদে আসছে তার সাথেই সংঘাত লেগে যাচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকারের ।তাহলে তারা কি এমন কিছু করতে চাইছেন যেটা নিয়মের পরিপন্থী কাজ ? কেন্দ্রিয় সরকারের মুখে কুলুপ , তবে লক্ষণটা ভালো নয় ।সূত্রের খবর কেন্দ্রীয় সরকার ও বিজেপির অভিমত উর্যট প্যাটেল নাকি গোবিন্দ রাজনের থেকেও খারাপ ।

No comments:

Post a Comment

loading...