Monday, 29 October 2018

খাস দিল্লিতে ফরাসি নাবালিকার শীলতাহানি , কেন্দ্রের মুখে কুলুপ

ওয়েব ডেস্ক ২৯শে অক্টোবর, ২০১৮: যারা নিজেরাই দেশের মহিলাদের সুরক্ষা দিতে পারেনা তারা বিদেশিদের কি সুরক্ষা দেবে ? এখন এই কথাটাই উঠছে মোদীসরকারের বিরুদ্ধে । চোখ ঘোরালেই বুঝতে পারা যাবে দিল্লির অনেক নামি ইংরেজি  মাধ্যম স্কুল বিদেশী স্কুলের সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধছে এক এক জন স্কুল পড়ুয়াকে বিশ্বায়নের যুগে প্রথিবীর সাথে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার স্বার্থে । সেরকম, বিদেশী পড়ুয়ারাও ভারতে আসছে ভারতের ঐতিহ্য চিনে নিতে, কিন্তু সুরক্ষাটা তো কেন্দ্রীয় সরকারের অধীনে পড়ে, তাহলে সেখানে রাজধানীর ইংরেজি  মাধ্যম স্কুল গুলি কি পদক্ষেপ নিয়েছে , বা নিচ্ছে , বা সরকারের সাথে কোনো আলোচনায় বসেছিল কিনা সেগুলোর সমন্ধে কেন্দ্রীয় সরকারের উদাসীনতাই আজ সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড় তুলেছে এক ফরাসি নাবালিকার যৌন্য হেনস্তাকে কেন্দ্র করে ।

প্রসঙ্গত ভারত–ফ্রান্স শিক্ষা আদানপ্রদান ক্ষেত্রে দেশের একটি স্কুলের সঙ্গে ফ্রান্সের একটি স্কুলের সমঝোতা হয়েছিল। সেই প্রেক্ষিতে গত জুনে ভারত থেকে ফ্রান্সে শিক্ষামূলক ভ্রমণে গিয়েছিল ওই স্কুলের ছাত্রছাত্রীরা। সেভাবেই গত ১৩ তারিখ ভারতে এসেছে ফ্রান্সের স্কুলটির ছাত্রছাত্রীরা। ওই কিশোরী পুলিসকে জানিয়েছে, ফ্রান্সে তাদের বাড়িতে যে ভারতীয় ছাত্রীটি ছিল, ভারতে এসে সেই বান্ধবীর বাড়িতেই উঠেছিল সে। গত ১৮ তারিখ দিল্লি থেকে জয়পুরের উদ্দেশ্যে রওনা দেওয়ার কথা ছিল তাদের। সেই মতো নিজের ঘরে ব্যাগ গোছাচ্ছিল ছাত্রী। তখনই ঘরে ঢোকেন তার ভারতীয় বান্ধবীর বাবা এবং তাকে প্রথমে পিতৃসুলভ পরামর্শ দিত থাকেন। ঘরে সেসময় একাই ছিল ওই ছাত্রী। তার অভিযোগ, আচমকা ওই ব্যক্তি অশালীনভাবে তাকে জড়িয়ে ধরে যৌন নিগ্রহের চেষ্টা করে।  কোনওরকমে নিজেকে মুক্ত করে ছাত্রী। ঘটনার পর রীতিমতো আতঙ্কিত হয়ে পড়ে সে। জয়পুরের পথে প্রথমে বন্ধুবান্ধবদের পুরো ঘটনা জানায় কিশোরী। তারাই শিক্ষকশিক্ষিকাদের তা জানায়। এরপর শিক্ষকশিক্ষিকারা ওই ছাত্রীর অভিভাবকদের এবং ফরাসি দূতাবাসে বিষয়টি জানান। সেখান থেকেই খবর দেওয়া হয় পুলিস। ওই ছাত্রীকে অবিলম্বে অভিযুক্তের বাড়ি থেকে অন্য একটি ভারতীয় পরিবারের আতিথেয়তায় পাঠানো হয়েছে। বিদ্যজনেদের একাংশের মত, প্রধানমন্ত্রীর অফিস যেই শহরে সেখানে এরকম ঘটনা ঘটে কি করে ? কোথায় কি হচ্ছে সে ব্যাপারে নরেন্দ্র মোদী বা তার মন্ত্রিসভার লোকজনের কি কোনো তথ্য থাকেনা ? যদি থাকত তাহলে এরকম ঘটনা কখনোই ঘটতোনা ।  কেন্দ্রীয় সরকারের গাফিলতিতেই  বিদেশের কাছে ভারতের ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে বলে মনে করেন তারা ।

No comments:

Post a Comment

loading...