Friday, 2 November 2018

অসমে বাঙালি নিধনে তীব্র প্রতিক্রিয়া জানালেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

ওয়েব ডেস্ক ২রা  নভেম্ভর ২০১৮: নাগরিকপঞ্জী নিয়ে বারুদে আগুনটা আগেই লাগিয়ে দিয়েছিল কেন্দ্র সরকার তার ভয়াভহ পরিণাম পাওয়া গেল যখন একই গ্রামের পাঁচজনকে খুন হতে হল আতঙ্কবাদীদের হাতে  ।উলফা জঙ্গি গোষ্ঠী একটি দল এই অপকর্মটি করেছে বলে জানা গিয়েছে ,প্রসঙ্গত বৃহস্পতিবার সন্ধে ৭  টা নাগাদ গ্রামবাসীদের ওপর এলোপাথাড়ি গুলি চালায় উলফা মদদ পুষ্ট     জঙ্গিরা ।এর পড়ি চারিদিক থেকে নিন্দার ঝড় বয়ে আসে ।

তীব্র নিন্দা করেছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। জঙ্গি হামলার খবর পেতেই টুইট করে নিন্দায় সরব হয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। শুক্রবার গোটা রাজ্যে বিক্ষোভ কর্মসূচীর ডাক দিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস।নাগরিকপঞ্জী নিয়ে অসমে যে সাম্প্রতিক উত্তেজনা তৈরি হয়েছে তার জেরেই এই হামলা কিনা সেই প্রশ্ন তুলেছেন  বাংলার মুখ্যমন্ত্রী। টুইট করে মুখ্যমন্ত্রী লিখেছেন, ‘‌অসম থেকে ভয়ঙ্কর খবর এসেছে। এই নারকীয় হত্যার তীব্র প্রতিবাদ করছি। শ্যামলাল বিশ্বাস, অনন্ত বিশ্বাস, অবিনাশ বিশ্বাস, সুবোধ দাসকে খুন করা হয়েছে। এটাই কী জাতীয় নাগরিকপঞ্জি করার সাম্প্রতিক উন্নয়ন?‌’‌ জানা গিয়েছে, অসমের তিনসুকিয়ায় পাঁচ জনকে লাইন দিয়ে দাঁড় করিয়ে গুলি করে হত্যা করে জঙ্গিরা। মৃতদের মধ্যে তিনজন একই পরিবারের সদস্য। নিহতদের প্রত্যেকেই বাঙালি। জঙ্গি হামলায় নিহত পাঁচ নম্বর ব্যক্তির ধনঞ্জয় নমশূদ্র। এদিনই উত্তরকন্যার প্রশাসনিক বৈঠক থেকে নমশূদ্রদের নিয়ে উন্নয়ন পর্ষদ গড়ার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। তারপরই অসমে এই হামলা তাৎপর্যপূর্ণ হিসাবেই দেখছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা। পুলিশ সূত্রে খবর আধুনিক আগ্নেয়াস্ত্রে সুসজ্জিত উলফা আতঙ্কবাদীরা গ্রামে ঢুকে  নাম ধরে ডাকে কয়েক জনকে সেই গ্রামবাসীরা বাড়ি থেকে বেরিয়ে আসতেই তাদের ব্রহ্মপুত্র নদীর ধারে নিয়ে গিয়ে নির্বিচারে গুলি চালানো হয় । বিদ্যজনেদের একাংশের আশঙ্কা এটা বাঙালি তাড়াবার প্রথম পদক্ষেপ নয় তো ? এ নিয়ে অসম তথা বিজেপি সরকার কি পদক্ষেপ নেয় সেই দিকেই পাখির চোখ করেছেন তারা  ।

No comments:

Post a Comment

loading...