Thursday, 22 November 2018

নাগরিকপঞ্জির হয়রানি সহ্য করতে না পেরে আত্মহত্যা করলেন এক বাঙালি , অসমে

ওয়েব ডেস্ক ২২শে নভেম্বর,২০১৮ :  নাগরিক পঞ্জী নিয়ে মানুষের যেরকম হয়রানি শুরু হয়েছে অসমে , সে আর বলার নয় ।আসল লোকেরা এখন হেনস্তার শিকার হচ্ছেন , যারা দীর্ঘদিন , কয়েক পুরুষ ধরে অসমে বাস করছেন । এমনকি এমন কিছু বাঙালি আছে যারা পৌর , তারাও খাওয়া পড়া ছেড়ে দিয়ে নাগরিকপঞ্জিতে ছুটে বেড়াচ্ছেন নাম তোলার জন্য । এর জন্য এক পৌর , চাপ সহ্য করতে না পেরে আত্মহত্যার পথ বেছে নিলেন । শোণিতপুর জেলার কামারচুবুরির বাসিন্দা মান্নাস আলি। বয়স ৬৫। মঙ্গলবার নিজের ঘরেই ঝুলন্ত অবস্থায় তাঁর দেহ উদ্ধার করেন পরিবারের সদস্যরা। মর্মান্তিক ঘটনার খরব রাষ্ট্র হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে।


শুরু হয় রাজনৈতিক তোলপাড়, প্রশাসনিক মহলেও ফুটে ওঠে উদ্বেগের চিহ্ন। মান্নাস আলির পারিবারিক সূত্র বলেছে, ৩০ জুলাই প্রকাশিত দ্বিতীয় খসড়ায় নাম না দেখে নিজেকে তালিকাভুক্ত করার জন্য বারবার ছোটাছুটি করতে থাকেন তিনি। কিন্তু কোথাও সন্তোষজনক আশ্বাস মেলেনি। চূড়ান্ত হতাশায় ভুগছিলেন। শেষ পর্যন্ত গলায় দড়ি দিয়ে তিনি আত্মহত্যা করলেন। পরিবারটি বংশানুক্রমে শোণিতপুরের ঠেলামারা অঞ্চলের কামারচুবুরিতে বসবাস করছে। দেশের প্রথম নাগরিকপঞ্জিতে মান্নাসের পূর্বপুরুষদের নাম রয়েছে, রয়েছে জমিজমার দলিল। এ–‌সব লেগ্যাসির ভিত্তিতে নিজেকে তালিকাভুক্ত করার জন্য আবেদন করেন মান্নাস। খসড়া থেকে পরিবারের অন্য কোনও সদস্যই বাদ পড়েননি, ডি ভোটার বলেও কেউ চিহ্নিত নন। এনআরসি–র নৈরাজ্যের শিকার হলেন কেবল মান্নাস। বিদেশি অভিযোগের তকমা মুছতে প্রতিদিন ছুটতে থাকেন প্রশাসনের নানা স্তরে। সেবাকেন্দ্রেরও দ্বারস্থ হলেন। কিন্তু সমস্যার সমাধান কোথায়?‌ মানসিক যন্ত্রণা আর অবসাদে বেছে নিলেন মৃত্যু।বিদ্যজনেদের একাংশের অভিমত কোনো রকম পরিকাঠামো  ছাড়াই নাগরিকপঞ্জী নিয়ে নেমে পড়েছে বিজেপি সরকার , যার জন্য জীবন দিয়ে মূল্য চোকাতে হচ্ছে ওখানকার বাঙালিদের ।তারা নিজেদের অসহায় মনে করছেন , তারা মনে প্রাণে তৃণমূলকে চায় ।

No comments:

Post a Comment

loading...