Tuesday, 13 November 2018

সি পি এমে ফের হানা দিল যৌন কেলেঙ্কারি ,এবার কাঠগড়ায় কৌস্তব ও সম্যজিৎ

ওয়েব ডেস্ক ১৩ই  নভেম্বর ২০১৮ :সরকারে থাকাকালীন সিপিএম দলটার কোনো বিসৃঙ্খলা , বা দুর্নীতি জনসমক্ষে আসতনা , কিন্তু  বাংলা থেকে বিতাড়িত হওয়ার পর একের পর এক কুকীর্তি মানুষের সামনে বেরিয়ে আসছে , যেটা আলিমুদ্দিনের পক্ষে অস্বস্তিকর বৈকি  । প্রথমে ঋতব্রত ,কমিউনিস্ট সুলভ জীবন যাপন না থাকার জন্য এবং তার  ঘনিষ্ট মুহূর্তের ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় আসার পর আলিমুদ্দিনের বিরাগভাজন হয়েছেন , অবশেষে বিতাড়িত ।
 এবার শৃঙ্খলাভঙ্গের ও নৈতিক অবক্ষয়ের জালে জড়িয়ে পড়লেন  জেলা কমিটির সম্পাদক মণ্ডলীর সদস্য কৌস্তভ চ্যাটার্জি এবং সদস্য সৌম্যজিৎ রজককে তিন মাসের জন্য সাসপেন্ড করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দল। আগামী ১৫ নভেম্বর এই সিদ্ধান্ত সিপিএমের জেলা কমিটিতে পাশ হলে এই দুই নেতার বিরুদ্ধে তদন্তে কমিশন গঠন করা হবে বলে আলিমুদ্দিন সূত্রের খবর।দলীয় সূত্রে খবর, দলীয় শৃঙ্খলাভঙ্গ এবং ব্যাভিচারী জীবনযাপনের অভিযোগে সাংসদ ঋতব্রত ব্যানার্জিকে বহিষ্কার করেছিল সিপিএম। আয়ের সঙ্গে সঙ্গতিহীন সম্পত্তি, যৌন কেলেঙ্কারি সহ–দলীয় শৃঙ্খলাভঙ্গের একাধিক অভিযোগ উঠেছিল প্রাক্তন ছাত্রনেতার বিরুদ্ধে। এবার সেই একই অভিযোগে অভিযুক্ত হলেন দলের আরও দুই তরুণ নেতা। কলকাতা জেলার প্রাক্তন ছাত্রনেতা কৌস্তভ চ্যাটার্জি এবং সৌমজিৎ রজকের বিরুদ্ধে যৌন কেলেঙ্কারির অভিযোগে ফের সরগরম আলিমুদ্দিন। যদিও অভিযোগ স্বীকার করে নিয়েছেন দুই নেতাই।মাস কয়েক আগে কৌস্তভ এবং সৌম্যজিতের ঘনিষ্ঠ মুহূর্তের ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছিল। তাঁদের বিরুদ্ধে যে একাধিক লিখিত অভিযোগ আলিমুদ্দিনে জমা পড়েছে।বিদ্যজনেদের একাংশের অভিমত , যদি সিপিএম সরকারে থাকতো তাহলে আলিমুদ্দিন কি তাদের এই ভাবে জনসমক্ষে শাস্তি দিতো  ? যেকোনো বাচ্চা ছেলে পর্যন্ত বলে দিতে পারে উত্তরটা , কখনোই না । সরকারে থাকাকালীন আলিমুদ্দিন সবসময় নিজেদের দোষ ঢাকা দিয়ে এসেছে , এখন সরকার থেকে বিতাড়িত হওয়ার পর মানুষকে দেখাচ্ছে আমাদের পার্টি কতটা স্বচ্ছ ।বিদ্যজনেদের আরও অভিমত , এই ভাবে কিছুতেই সিপিএম তাদের ভাবমূর্তি ঠিক করতে পারবেনা কারণ যুব সমাজ বুঝতে পেরেছে ভালো পরীক্ষা দিয়েও ফেল করানো হত এই সিপিএম জমানাতেই , তারাই কি আর আলিমুদ্দিনকে ক্ষমতায় আনবেন ?

No comments:

Post a Comment

loading...