Wednesday, 21 November 2018

মুখ্যমন্ত্রীর স্বপ্নের 'কন্যাশ্রী' আজ হয়ে উঠেছে বাংলার 'বীরাঙ্গনা'

ওয়েব ডেস্ক ২১  নভেম্বর ২০১৮: নিজের বিয়ে যখন রুখে ছিল তখন সে অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী। পারিবারিক দারিদ্রতার কারণে মুর্শিদাবাদের সুমি থাকে সোম পাড়ার মামাবাড়িতে। ৪  কিলোমিটার দূরের শক্তিপুর বালিকা বিদ্যালয়ের ছাত্রী। দারিদ্রতার কারণে মামা বাড়ি থেকে বিয়ে ঠিক করলেও প্রতিবাদ করে রুখে দাঁড়িয়ে বলেছিলো- বিয়ে নয় পড়তে চাই!


কন্যাশ্রীর যোদ্ধা এরপর বালিকা বিয়ের খবর শুনলেই সেই বাড়িতে হাজির হয়। বাড়ির বাবা মাকে বুঝিয়ে দিয়ে বন্ধ করেছে ৭টি  নাবালিকা বিয়ে।শুধু তাই নয়, পালস পোলিও টিকা খাওয়ানো নির্মল বাংলার জন্য ভোরে উঠে গ্রামবাসী দের সচেতন করা স্কুল ছুটদের স্কুলে আনা এমন সব কাজ করে যাচ্ছে মেয়েটি। ১৫ টি স্কুল ছাত্রীকে স্কুলে এনেছে একাদশ শ্রেণির কন্যাশ্রীর ছাত্রী। মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির আদর্শ মুর্শিদাবাদ জেলা প্রশাসনের পুরস্কার পেয়েছে, এবার পেলো রাজ্যের পুরস্কার।
উচ্ছাসিত সুমি বলে- 'বীরঙ্গনা' পুরস্কার পাব ভাবিনি। আমাদের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির জন্য আমরা সাইকেল পেয়েছি। ওই সাইকেলে স্কুলে যাই। কন্যাশ্রীর টাকাও পাচ্ছি। দিদি যা করেছেন এমনটি কেউ করেনি। দিদি আমাদের অতি আপনজন তাই ভয় করি না কাউকেই , আমিও নিজের পায়ে দাঁড়াতে চাই!

No comments:

Post a Comment

loading...