Thursday, 27 December 2018

মোদীর দলের নেত্রীই ব্যাপক অভিযোগ করলেন ট্রেনের ক্ষুদ্রতম সুযোগ সুবিধে নিয়ে,কটাক্ষ করলেন বুলেট নিয়েও

ওয়েব ডেস্ক ২৭শে ডিসেম্বর ২০১৮: মানুষকে যেখানে সাধারণ ট্রেনের নূন্যতম সুযোগ সুবিধে দিতে পারছেনা কেন্দ্রীয় সরকার , সেখানে বুলেট ট্রেন চালিয়ে লাভ কি ? এখন এই কথাটাই মানুষের মুখে মুখে ।  সৌজন্যে এক বিজেপিরই নেত্রী, ঘটনাটি গত ২২ ডিসেম্বরের। সরযু-যমুনা এক্সপ্রেসের এসি থ্রি কামরায় বসে একটি ভিডিও করেন বিজেপি নেত্রী লক্ষ্মী কান্তা চাওলা। ট্রেনটি সবমিলিয়ে ১০ ঘন্টা লেট ছিল। জানা গিয়েছে, অমৃতসর থেকে অযোধ্যা যাওয়ার পথে বহু ঘন্টা লাইনে স্তব্ধ হয়ে দাঁড়িয়েছিল ওই ট্রেন।

আর এই প্রেক্ষিতেই তিনি ভিডিওটি করেন।ভিডিওটি বিপুলভাবে প্রচারিত হতে আরম্ভ হতে শুরু করেছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং রেলমন্ত্রী পীযুষ গোয়েলের উদ্দেশে দীর্ঘ ভিডিওটি তৈরি করেছেন বিজেপি নেত্রী। ভিডিওতে তাঁকে বলতে শোনা যায় — “ঈশ্বরের দোহাই, বুলেট ট্রেনের কথা ভুলে গিয়ে আগে সাধারণ ট্রেনগুলোর ব্যবস্থাপনার দিকে নজর দিন।কেন্দ্রীয় সরকার এবং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর উদ্দেশে আমার যে কথাটি বলার, তা হল, দয়া করে আমাদের মতো সাধারণ মানুষের কষ্টের দিকেও একটু নজর দিন। গত ২৪ ঘন্টায় আমরা যে কী নরকযন্ত্রণা ভোগ করেছি তা বলে বোঝানো যাবে না। ট্রেন তার রাস্তা পাল্টেছে। দেরি করেছে অনেকটা সময়। অথচ, আমরা কিছু জানতে চাইলে, এই সম্বন্ধে যথাযথ তথ্যও পাইনি। ১০ ঘন্টা অতিরিক্ত সময় যে যে যাত্রীরা ট্রেনের মধ্যে কাটালেন, তাঁদের জন্য কোনও খাবারের ব্যবস্থাও ছিল না। ঘন্টায় ১২০ কিমি বা ২০০ কিমি বেগে চলা ট্রেনের কথা ভুলে যান। মানুষ ফুটপাথে নেমে পড়েছে। কোনও ওয়েটিং রুম নেই। এত ঠাণ্ডায় অসহায় মানুষ শুয়ে পড়তে বাধ্য হয়েছে খোলা জায়গায়, মোদীজি ও গোয়েলজি, দয়া করে শুনুন। " প্রসঙ্গত লক্ষী কাঁটা চাওলা একজন অধ্যাপিকা ছিলেন রাজনীতিতে আসার আগে । তখন হয়তো বিজেপির অবাস্তব কাজকর্মের কথা জানতেননা , জানলে কখনোই বিজেপিতে আসতেন কি ? এখন এটাই লাখ টাকার প্রশ্ন  । 

No comments:

Post a Comment

loading...