Tuesday, 4 December 2018

দাদরি কাণ্ডের তদন্ত করছিলেন বলেই কি ইন্সপেক্টর সুবোধ কুমারের এই পরিণতি ?উস্কে দিল জল্পনা

ওয়েব ডেস্ক ৪ঠা ডিসেম্বর, ২০১৮: ধর্ষণ, অপহরণ , সব কিছুই রমরমিয়ে চলছিল যোগী আদিত্যনাথের উত্তরপ্রদেশে ,সাম্প্রতিককালে শুধু বাকি ছিল কোনো পুলিশ আধিকারিকের মর্মান্তিক মৃত্যু গতকাল  সেটাও সম্পূর্ণ হয়ে গেল ।প্রসঙ্গত উত্তরপ্রদেশের বুলন্দশহরে ইন্সপেক্টর সুবোধ কুমার সিংয়ের হত্যায় এপর্যন্ত মোট চারজন গ্রেপ্তার হয়েছে।মঙ্গলবার দুপুরে সাংবাদিক সম্মেলনে একথা জানালেন এডিজি আইনশৃঙ্খলা আনন্দকুমার।



তিনি জানিয়েছেন, ধৃতদের মধ্যে মূল অভিযুক্ত যোগেশরাজকে এখনও গ্রেপ্তার করা যায়নি। তবে সে কোনও সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত কিনা তা স্পষ্ট করেননি এডিজি। সুবোধ কুমারের অটোপসি রিপোর্টে ০.‌৩২ মিলিমিটার বোরের বুলেটের ক্ষত রয়েছে। এডিজি জানালেন, বিক্ষোভে মৃত যুবক সুমিতের শরীর থেকেও বুলেট মিলেছে। তবে চূড়ান্ত ময়নাতদন্তের রিপোর্টের পরই সেই বুলেট কত বোরের তা জানা যাবে।সুবোধ কুমারের বোন মঙ্গলবার অভিযোগ করেন, যেহেতু তাঁর দাদা মহম্মদ আখলাক খান হত্যার তদন্ত করছিলেন, সেজন্য পুলিসই ষড়যন্ত্র করে তাঁকে মেরে দিয়েছে।কিন্তু পুলিস আধিকারিকের মৃত্যু ঘিরে রহস্য দাঁনা বেঁধেছে। প্রশ্ন উঠছে ঘটনাস্থলে থাকা অন্যান্য পুলিস কর্তাদের ভূমিকা নিয়ে।চিঙ্গারওয়াতি এলাকায় গোহত্যার সন্দেহে কয়েকশো জনতা যখন মারমুখী হয়ে ওঠে, ততক্ষণে এলাকা ঘিরে ফেলে অদূরেই পুলিস ফাঁড়ির থেকে আসা নিরাপত্তারক্ষীরা। জনতার ইটবৃষ্টির পাল্টা কাঁদানে গ্যাস, রাবার বুলেট জবাব দিতে থাকে পুলিস। ইটের আঘাতে গুরুতর জখম হন সুবোধ কুমার। তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়াও হয়। কিন্তু কেন মাঝপথেই পুলিসের গাড়ি আটকে ফের হামলা চালালো বিক্ষোভকারীরা। এমন প্রশ্ন উঠেছে বিভিন্ন মহলে। পুলিস সূত্রে খবর, যোগী রাজ্যের এই ইন্সপেক্টর সুবোধ কুমার দাদরির মহম্মদ আখলাখের খুনের ঘটনার তদন্তে যুক্ত ছিলেন। তার কারণেই কি গোরক্ষকদের গোটা রোষ এসে পড়ে সুবোধ কুমারের উপর। এই জল্পনা আরও উস্কে দেন সুবোধ সিংয়ের বোন। তিনি আবার পুলিসের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ তুলেছেন। তিনি অভিযোগ করেন, সুবোধ সিং দাদরি কাণ্ডের তদন্ত করছিল বলেই তাঁকে খুন করা হয়েছে। পুলিসেরও ষড়যন্ত্র রয়েছে। সুবোধ কুমারের বোনের আরও দাবি, “আমাদের কোনও টাকা দরকার নেই। আমার ভাইকে শহীদ ঘোষণা করা হোক। মুখ্যমন্ত্রী শুধুমাত্র গরু-গরু করে যাচ্ছেন।”

No comments:

Post a Comment

loading...