Saturday, 1 December 2018

বিশিষ্ট অধ্যাপক ও পুরাণবিদ নৃসিংহপ্রসাদ ভাদুড়ি যোগীকে অশিক্ষিত বলে কটাক্ষ করলেন

ওয়েব ডেস্ক ১লা  ডিসেম্বর , ২০১৮: ২০১৯ যোগী আদিত্যনাথ  রাজনৌতিক ফায়দা তুলতে গিয়ে হনুমান সমন্ধে যে সব উক্তি করেছিলেন  সেগুলো এক লহমায় নস্যাৎ করে দিলেন বিশিষ্ট অধ্যাপক ও পুরাণবিদ নৃসিংহপ্রসাদ ভাদুড়ি।প্রসঙ্গত ভগবান হনুমান সমন্ধে বলতে গিয়ে যোগী কখনো ভগবান হনুমানকে "লোকদেবতা " বলেন , কখনো  ‘‌বঞ্চিত’‌, কখনো বা "দলিত" বলে দলিত সম্প্রদায়ের মন জয় করতে চেয়েছেন ।যোগীর এই বক্তব্যের সমালোচনা করে নৃসিংহপ্রসাদ ভাদুড়ি বলেন, ‘‌এখন ওঁরা সবাই নিজেদের রামচন্দ্র ভাবতে শুরু করেছেন।’‌


তিনি বলেছেন, ‘‌একজন মুখ্যমন্ত্রী কীভাবে এ সমস্ত কথা বলেন?‌ বোঝাই যায় উনি যোগী নন, কিছুই জানেন না। অশিক্ষিত।’‌নৃসিংহপ্রসাদ ভাদুড়ির ব্যাখ্যা, ‘‌হনুমান অত্যন্ত পণ্ডিত ব্যক্তি। রামায়ণে তাঁকে বলা হচ্ছে ‘‌সর্বশাস্ত্রবিশারদ’‌। তাঁর সম্পর্কে বলা হয়, নয়ানয়–‌ অর্থাৎ তিনি রাজনৈতিক ক্ষেত্রে পলিসি এবং ইমপলিসি দুটোই অত্যন্ত ভাল জানেন। তাঁর ভাষাজ্ঞান সম্পর্কে উচ্চ ধারণা। আমরা দেখতে পাই ব্যাকরণ শাস্ত্রে কঠিন সিদ্ধান্ত জানার জন্য মাথায় বই নিয়ে সূর্যদেবের সঙ্গে দেখা করতে যাচ্ছেন।’‌রামায়ণে সুগ্রীবের সঙ্গে যখন পরিচয় করাচ্ছেন রামচন্দ্রের, তখনই সেখানে যে শ্লোক বলেছেন, তা কি কোনও শূদ্র বা দলিতরা বলতে পারেন?‌ তাঁরা কী সেসময় বেদ পড়তেন?‌ হনুমান সম্পর্কে রামচন্দ্র লক্ষ্মণকে বলছেন, ‘‌নানৃগ্‌বেদবিনিতস্য/‌নাযজুরবেদধারিনীঃ/‌নাসামবেদবিদূষঃ/‌শক্যমেববিভাষিতম’‌ অর্থাৎ যিনি ঋকবেদ, যজুর্বেদ ধারণ করতে পারেননি, সামবেদ জানেন না তাঁর পক্ষে কি এ ধরনের কথা বলা সম্ভব?‌ অর্থাৎ আমরা দেখতে পাই, স্বয়ং রামচন্দ্র তাঁকে এই পর্যায়ে শ্রদ্ধা করতেন।এখন বিজেপি–‌র কাছে রামচন্দ্র বা হনুমান সম্পর্কে কোনও ধারণাই নেই। আশ্চর্যের ঘটনা, রামভক্তরা নিজেদেরই এখন ভগবান ভাবতে শুরু করেছেন। তাঁদের মিছিলও করতে হচ্ছে, অস্ত্র ধারণও করতে হচ্ছে।হনুমান বহু ভাষাবিদ একজন পণ্ডিত। মূল রামায়ণ পড়লেই তা বোঝা যাবে। সেখানে একটি বিষয় রয়েছে। সীতার অন্বেষণে গিয়েছেন তিনি। রাবণের চেড়িরা ঘিরে রেখেছে সীতাকে। গাছের আড়াল থেকে তা দেখে সংশয়ে পড়েছেন স্বয়ং হনুমান। তিনি ভাবছেন, আমি যদি সংস্কৃত ভাষায় কথা বলি, তা হলে কি ওরা কিছু বুঝতে পারবে?‌ যদি প্রাকৃত ভাষায় কথা বলি, তা হলে তো সবই বুঝে ফেলবে!‌আসলে হনুমান এক মহাজ্ঞানী। তাঁর সম্পর্কে আলগা কথাবার্তা বলার অর্থ, নিজেদের মূর্খামিই প্রকাশ করা।‌ বিদ্যজনেদের একাংশের অভিমত অধ্যাপক ও পুরাণবিদ নৃসিংহপ্রসাদ ভাদুড়ি যেই সব কথা গুলো বলেছেন তার কোনো ভুল বলে কিছুই নেই , তার সব কথাগুলোই সত্যি , হিন্দুরা যাকে ভগবান বলে মনে করে তার সমন্ধে এরকম কথা বলবার আগে যোগী আদিত্যনাথের আর একটু জেনে নেওয়ার দরকার ছিল ।‌

No comments:

Post a Comment

loading...