Sunday, 23 December 2018

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় থেকে কলকাতার কলাকুশলীরা সবাই নাসিরুদ্দিন শাহের পাশেই

ওয়েব ডেস্ক ২৩শে ডিসেম্বর ২০১৮: বর্তমান পরিস্তিতির ওপর বিচার করেই হয়তো নাসিরুদ্দিন শাহ তার সন্তানদের নিয়ে উদ্বেগের কথা প্রকাশ করেছিলেন । শব্দ ব্যবহারে কতটা পটু এনিয়ে সংশয় আছে , অনেকেরই ।সেই অনেকের মধ্যে বিজেপির কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মুখতার আব্বার নাকভি  যেমন বলেই বসলেন ‘নাসিরের ভাবাবেগ প্রকাশে দোষ নেই। শব্দচয়নে ত্রুটি হওয়ায় ওঁকে ভুল বোঝা হচ্ছে। সন্তানদের ভবিষ্যৎ নিয়ে ওঁর উদ্বেগের কোনও কারণ নেই। ভারতের ডিএনএ–তে সহিষ্ণুতা ও সম্প্রীতি আছে। পরিস্থিতি যা–ই হোক, কেউ সেই ঐতিহ্য ধ্বংস করতে পারেনি।’ তেমনি  নাসিরুদ্দিন শাহপাশে পেয়ে গেলেন "সিটি অফ জয়ের" কলাকুশলীদের ।

‘নেটিজেন’–দের একাংশ বলছেন, সেই সাধারণ মানুষ সেলুলয়েড থেকে নেমে এসেছেন বাস্তবে। কোন সাধারণ মানুষ? না, যাকে ‘নির্বোধ’ বানিয়েছেন নরেন্দ্র মোদি। ভূরি ভূরি প্রতিশ্রুতি দিয়ে আমজনতাকে বোকা বানিয়েছেন মোদি। নাসির তাদেরই প্রতিভূ হয়ে দেখা দিয়েছেন। নাসিরকে সমর্থন করেছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। পাশে দাঁড়িয়েছেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়–সহ কলকাতার নাট্যব্যক্তিত্বরা। শনিবার এক বিবৃতিতে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, পরান বন্দ্যোপাধ্যায়, সব্যসাচী চক্রবর্তী, চন্দন ঘোষ, মেঘনাদ ভট্টাচার্য, অভিনেতা চন্দন ঘোষ, শমীক বন্দ্যোপাধ্যায়, অশোক মুখোপাধ্যায়, দিলীপ চক্রবর্তী, কৌশিক সেন প্রমুখ বলেছেন, ‘বিভেদ ও অশান্তির বিরুদ্ধে নাসিরুদ্দিনের বলিষ্ঠ কণ্ঠ বারবার দেশের মানুষকে উজ্জীবিত করেছে। আজ যারা তাঁর বিরুদ্ধে কুৎসিত ব্যক্তি আক্রমণ করছে, তাদের লক্ষ্য ধর্মের নামে রাজনীতি করে নিজেদের স্বার্থসিদ্ধি। দেশকে বিভেদ আর দাঙ্গার অশান্তিতে জ্বালিয়েপুড়িয়ে এরা দেশের শত্রুদের হাত শক্ত করতে চায়। দ্ব্যর্থহীন ভাষায় আমাদের প্রিয় সুহৃদের অবমাননার ধিক্কার জানাচ্ছি।’ ঘটনা যাইহোক নাসিরুদ্দিনের পাশে দাঁড়ানোর লোক দিন কে দিন বাড়ছেই কিন্তু ।দেশ এসবের থেকেও  বেশি উদগ্রীব মোদীজি তার কথা কবে রাখবেন ।সাধারণ মানুষের উন্নতিতে তিনি যখন হাত লাগাবেন তখন এবং যে চাপা পরে যাবে সেটা এক সময়ের চা ওয়ালা  ছাড়া আর কে ভালো বুঝতে পারবেন ?

No comments:

Post a Comment

loading...