Monday, 3 December 2018

শ্লীলতাহানি করতে দিতে হবে না হলে আগুন পুড়িয়ে মারব , এটাই কি যোগীর উত্তরপ্রদেশ ?পড়ুন

ওয়েব ডেস্ক ১লা ডিসেম্বর, ২০১৮: ইচ্ছামতো শ্লীলতাহানি করতে পারবনা, তো মেরেই ফেলব । এখন এটাই কি নতুন প্রবণতা বিজেপি শাসিত উত্তরপ্রদেশে ? যেদিকে ঘটনা বাঁক নিচ্ছে ব্যাপারটা তো সেরকমই মনে হচ্ছে । ক্রমাগত ধর্ষণের ঘটনা আগেই ছিল  উত্তরপ্রদেশে ,এবার কুকীর্তিতে না করতে পেরে এক মহিলাকে পুড়িয়ে মারার চেষ্টা সামনে এলো যা সোশ্যাল মিডিয়ায় নিন্দার ঝড় বয়ে দিচ্ছে ।প্রসঙ্গত দীর্ঘদিন ধরে দু’‌জন ব্যক্তি এক মহিলাকে শ্লীলতাহানি করছিল  বলে খবর । অথচ মহিলার অভিযোগ নিতে চাইছিলনা  পুলিস। পুলিসের গাফিলতিতে উৎসাহ পেয়ে ওই দুই ব্যক্তি আগুনে পুড়িয়ে মেরে দেওয়ার চেষ্টা করল ২৮ বছরের ওই মহিলাকে।


ঘটনাটি ঘটেছে রবিবার উত্তরপ্রদেশের সীতাপুরে। ওই মহিলার দেহের ৬০ শতাংশ পুড়ে গিয়েছে এবং তাঁকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। জানা গিয়েছে, অভিযুক্তদের সনাক্ত করা গিয়েছে। রাজেশ এবং রামু নামে দুই ব্যক্তির মধ্যে একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিস। অপরদিকে ওই মহিলা অভিযুক্তদের বিষয়ে তিনবার পুলিসের কাছে অভিযোগ জানানোর জন্য গিয়েছিলেন কিন্তু পুলিস তাঁর অভিযোগ না নিয়ে তাঁকে বুঝিয়ে পাঠিয়ে দিয়েছিল। এই ঘটনায় স্টেশন হাউস অফিসার সহ তিনজনকে সাসপেন্ড করা হয়েছে। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থা ও খুনের চেষ্টার মামলা আনা হয়েছে। লখনউয়ের শীর্ষ পুলিস আধিকারিক সুজিত পাণ্ডে বলেন, ‘ওই মহিলা যখন শৌচালয়ে যাওয়ার জন্য বাড়ির বাইরে যান তখন দুই অভিযুক্ত তাঁর গায়ে আগুন ধরিয়ে দেয়। মহিলার মুখ এবং দেহের ওপরের অংশ পুড়ে গিয়েছে। ২৯ নভেম্বর অভিযুক্তরা ওই মহিলার শ্লীলতাহানি করার চেষ্টা করে বলে জানিয়েছেন মহিলা। তিনি দু’‌বার পুলিসের কাছে গিয়েছিলেন কিন্তু পুলিস অভিযোগ নিতে অস্বীকার করে। ওই মহিলার অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিসের বিরুদ্ধে যথাযথ পদক্ষেপ করা হবে।’‌ ‌বিদ্যজনেদের একাংশের অভিমত ,কেন  থানা তে অভিযোগ জানানো সত্ত্বেও অভিযুক্তদের গ্রেফতার করা হয়নি , সেটা যোগী সরকারের জবাব দেওয়া উচিত , উত্তরপ্রদেশের কোন আমলা বা কেষ্ট বিষ্টুদের সাথে দুর্বৃত্তদের যোগা  যোগ ছিল যে , যার ভয়ে থানা কতৃপক্ষ অভিযুক্তদের আটক করার সাহস দেখাতে পারেনি । 

No comments:

Post a Comment

loading...