Monday, 14 January 2019

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে জাতি ধর্ম নির্বিশেষে কাজ , একমাত্র বাংলাতেই সম্ভব ।পড়ুন

ওয়েব ডেস্ক ১৪ই  জানুয়ারি ২০১৯: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ক্যারিশমা কিভাবে একজন মানুষকে প্রভাবিত করতে পারে তার জলজ্যান্ত উদাহরণ আহমদ হাসান ইমরান।ছোটবেলার থেকে আমরা একটা কথা জেনেএসেছি , সৎ সঙ্গে স্বর্গ লাভ আর অসৎ সঙ্গে নরক  লাভ । মমতা  বন্দ্যোপাধ্যায়ের মতো ব্যক্তিত্ব , যিনি সারাটা জীবন মানুষের জন্য কাজ করে এসেছেন জাতি ধর্ম নির্বিশেষে , তার দেখানো পথকে  পাথেয় করে, মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন রাজ্যসভার সংসদ আহমদ হাসান ইমরান।রবিবার উত্তর ২৪ পরগনা জেলার বুনোরআটি ইউসুফ ইসমাইল মেমোরিয়াল হাই স্কুল প্রাঙ্গণে এক অনুষ্ঠানে তিনি প্রায় একশ’ পঞ্চাশ জনের মধ্যে ব্যাটারিচালিত যান্ত্রিক ট্রাই সাইকেল বিলি করেন।

ওই অনুষ্ঠানে ভাষণ দেয়ার সময় আহমদ হাসান ইমরান বলেন, ‘আর্ত মানুষের সেবায় আমরা হিন্দু, মুসলিম দেখি না, আমরা দেখি মানুষ। কে কোন দল করেন আমরা সেটাও দেখি না। আমরা চাই মানুষকে সেবা করতে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরণায় উদ্বুদ্ধ হয়ে আমরা এগিয়ে যাচ্ছি।’উপস্থিত প্রতিবন্ধী মানুষদের উদ্দেশ্যে আহমদ হাসান ইমরান বলেন, ‘আপনারা যারা ব্যাটারি চালিত ট্রাই সাইকেল পাবেন, তাঁদের জীবনে যদি এটি একটু সহায়ক হয়, আপনারা হাটে-বাজারে যেয়ে ব্যবসা করতে পারেন, কেনাকাটা করতে পারেন, আপনারা যদি একটু আত্মীয় বাড়িতে যেতে পারেন সেজন্য আমরা সত্যিই খুব খুশি হবো।’
তিনি উপস্থিত সকলের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘আসুন আমরা সকলে মিলে ‘সোনার বাংলা’ গড়ে তুলি। উন্নত দেশ গঠনে এগিয়ে যাই।’প্রসঙ্গত, এর আগেও আহমদ হাসান ইমরানের উদ্যোগে শারীরিক প্রতিবন্ধকতা সম্পন্ন মানুষদের ক্র্যাচ, কানে শোনার যন্ত্র ও অন্যান্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।এদিন হাড়োয়া থানা এলাকার বাসিন্দা গোলাম রসুল মোল্লা ব্যাটারি চালিত ট্রাই সাইকেল পেয়ে সন্তোষ প্রকাশ বলেন, ‘আমরা ওই ট্রাই সাইকেল পেয়ে বেঁচে গেছি। এতদিন হাত দিয়ে ট্রাই সাইকেল চালিয়ে অত্যন্ত কষ্ট করে চলাফেরা করতে হতো। আজ ব্যাটারি চালিত ট্রাই সাইকেল পেয়ে খুব উপকৃত হলাম।’ তৃণমূল সরকারে আসার পর বাংলার মানুষ যে অসহায় আর নিজেদের মনে করছেননা এটা তারই প্রমান ।আগে এই সাধারণ মানুষের কাছেই সরকার অনেক দূরের বস্তু ছিল ,এখন সেটা অনেক  কাছের ।

No comments:

Post a Comment

loading...