Tuesday, 8 January 2019

"খাল কেঁটে কুমির নিয়ে এসেছে " বুঝতে পেরেই বিজেপির সঙ্গে ত্যাগ করতে চাইছে উত্তর পূর্বের আঞ্চলিক দলগুলি

ওয়েব ডেস্ক ৮ই  জানুয়ারি ২০১৯:অনেক আশা আকাঙ্খা নিয়ে উত্তর পূর্বের আঞ্চলিক দলগুলো বিজেপির সাথে হাত মিলিয়েছিল ।আজ তাদের সেই মোহ কেটে গেছে তারা বুঝতে পেরেছে তারা খেয়াল কেটে কুমিরকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে , আর তাই এক এক করে তারা বিজেপির সঙ্গে ত্যাগ করতে শুরু করল । অসম গণ পরিষদ বিজেপির সঙ্গ ত্যাগ করার পরেই সেই প্রবণতা আরও জেগে উঠেছে। ২০১৬ নাগরিকত্ব সংশোধন বিলের প্রতিবাদে অসম যেন ফুটছে। দুই–তিন পুরুষ ধরে যাঁরা অসমে বসবাস করছেন তাঁদের আচমকা দেশান্তরি করার ছক কষতে শুরু করেছে বিজেপি। জাতীয় নাগরিক পঞ্জীর তালিকা থেকে প্রায় ২০ লাখ বাসিন্দার নাম বাদ দেওয়া হয়েছে। এটাকে মোটেই ভাল চোখে নেয়নি বিরোধীরা। যার প্রতিবাদের আগুন জ্বলছে অসমে।

ইতিমধ্যেই মেঘালয় এবং মিজোরাম এই বিলের প্রতিবাদে সরব হয়েছে। এই দুটি রাজ্যেই বিজেপি আঞ্চলিক দলগুলির সমর্থনে সরকার গড়েছে। মেঘালয়ের মুখ্যমন্ত্রী কনরাড সাংমা সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, এনআরসি বিরোধিতায় রাজ্য মন্ত্রিসভায় প্রস্তাব পাস করা হয়েছে। এমনকী বলা হয়েছে এনডিএ–র এনআরসি কার্যকর করলে তাঁরা বিজেপি জোট ছেড়ে দেবেন। নাগাল্যান্ডর জোট সরকারও এনআরসির বিরোধিতায় সরব হয়েছে। মিজো ন্যাশনাল ফ্রন্ট তো এনআরসির প্রতিবাদে এনডিএ জোট ছাড়ার হুমকি পর্যন্ত দিয়েছে। এই বিল কার্যকর করে  মিজোরামে বাংলাদেশ থেকে আসা বিপুল সংখ্যক বৌদ্ধ বাসিন্দাকে বিতাড়িত করার পরিকল্পনায় রয়েছে বিজেপি সরকার। যেটা কোনওভাবেই মেনে নেওয়া হবে না বলে জানিয়ে দিয়েছেন নাগাল্যান্ডের মুখ্যমন্ত্রী। সূত্রের খবর বিজেপি ভেতরে ভেতরে সম্পর্কটা স্বাভাবিক রাখার আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে এখন দেখার তারা কতটা সফল হয় । 

No comments:

Post a Comment

loading...