Sunday, 3 February 2019

গোরক্ষায় বাড়ানো হল ভাতা । তাহলে কি বিজেপির পথেই চলতে শুরু করল কংগ্রেস ?

ওয়েব ডেস্ক ৩রা  ফেব্রুয়ারী ২০১৯:বিজেপি শাসন ক্ষমতায় থাকার সময় গো-রক্ষায় একাধিক পদক্ষেপ করেছিল। রমরমা হয়েছিল গো-রক্ষকদের। রাজ্যে পট পরিবর্তন হয়েছে। ক্ষমতায় এসেছে নতুন কংগ্রেস সরকার। আশা করা হয়েছিল, এবার হয়তো গো রক্ষকদের দৌরাত্ম্য কমবে। কিন্তু, কার্যক্ষেত্রে দেখা গেল নতুন সরকার যে পথে হাঁটছে, তাতে উৎসাহিতই হবেন গো-রক্ষকরা। বর্তমান সরকারও গো-রক্ষার ব্যাপারে অত্যন্ত তৎপরতা দেখাচ্ছে। যা নিয়ে সমালোচকরা বলছেন, কংগ্রেস সরকারও হিন্দুত্বের পথে চলতে চাইছে।
শনিবার মধ্যপ্রদেশ সরকার পুরোহিতদের ভাতা বাড়ানোর কথা ঘোষণা করেছে।এছাড়াও যেসব মন্দিরে গরুদের আশ্রয় দেওয়া হবে, সেই মন্দির গুলিকে সরকারের পক্ষ থেকে আর্থিক অনুদান দেওয়া হবে। রাজনৈতিক মহলের মতে, বিজেপি রাজ্যে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে হিন্দুত্বকে সামনে রেখে লড়বে।তাই এরাজ্যের সরকারও সেই পথে হেঁটে জনগণের মন জয় করতে চাইছে।এদিকে শুক্রবারি বিজেপি সরকারের বাজেটে গোকুল মিশনে ৭৫০ কোটি বরাদ্দ করেছে কেন্দ্র।বিজেপির পথে হেঁটেই গো মাতার স্বার্থে এই উদ্যোগ নিল কংগ্রেস সরকার। আধ্যাত্মিক বিষয়ক মন্ত্রী পি সি শর্মা জানিয়েছেন, ২৫ হাজার সরকারি মন্দিরের পুরেহিতকে তিন হাজার টাকা করে ভাতা দেওয়া হবে। এতদিন তারা মাত্র এক হাজার টাকা করে ভাতা পেতেন। ১ লা জানুয়ারী থেকেই নয়া ভাতা কার্যকর হয়েছে। পাশাপাশি, মধ্যপ্রদেশের ওয়াকফ বোর্ডের সদস্যরাও এই একই ভাতা পাবেন বলে জানা গিয়েছে। মন্ত্রী বলেন, যে সব মন্দির গোরুদের জন্য গো-শালা তৈরি করবে, তাদের জন্য আলাদা করে সরকারি অনুদান দেওয়া হবে। মধ্যপ্রদেশে ১৫ বছরের ক্ষমতায় মুখে অনেক কিছু বললেও গোমাতাদের নিয়ে কিছু করেনি বিজেপি সরকার। কংগ্রেস সরকারের পক্ষ থেকে গোটা রাজ্য জুড়ে গোশালা তৈরিরও প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে। 

No comments:

Post a Comment

loading...