Sunday, 3 March 2019

পুলিশের অনুমতি ছাড়াই বিজেপির বাইক বাহিনী , বিভিন্ন জায়গায় অশান্তি

ওয়েব ডেস্ক ৩রা মার্চ  ২০১৯:অনুমতি ছাড়া বিজেপি কি করে বাইক ৱ্যালি করে ? অভিজ্ঞ মুকুল রায় কি এটা জানতেননা ? না ইচ্ছে কৃতি একটা গোলমাল পাকাবার ধান্দায় তিনি তার বিজেপি সাঙ্গপাঙ্গদের নিয়ে বাইক ৱ্যালি করলেন ? সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড় ।প্রসঙ্গত বিজেপির বিজয় সংকল্প যাত্রা ঘিরে রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় অশান্তি। এদিন সকালে বিজেপি কর্মী সমর্থকরা বিভিন্ন জায়গায় বাইক র‍্যালি বের করেন। অনুমতি না থাকার অভিযোগে সব জায়গাতেই বাইক র‍্যালিতে বাধা দেয় পুলিশ। বিজেপির তরফে দাবি, তারা ইমেলে অনুমতির জন্য আবেদন করেছিলেন।
বাইক র‍্যালি ঘিরে ধুন্ধুমার। সকাল সাড়ে নটা নাগাদ দুর্গাপুরে বাইক র‍্যালির সূচনায় ছিলেন দলের সভাপতি দিলীপ ঘোষ। যদিও পরে সেখানে উত্তেজনা দেখা দেয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে র‍্যাফ নামানো হয়। বীরভূমের ময়ূরেশ্বরে পুলিশের সঙ্গে বচসা বিজেপি কর্মীদের। পশ্চিম মেদিনীপুরের বিভিন্ন জায়গাও সকল্প যাত্রা তথা বাইক র‍্যালিকে ঘিরে উত্তপ্ত। আহত হন ডিএসপি অপারেশন। রণক্ষেত্র হয়ে ওঠে গোয়ালতোড়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ লাঠি চার্জ করে। বাইকে র‍্যালিতে বাধা দানের অভিযোগে খড়দহ থানা ঘেরাও করেন বিজেপির কর্মী সমর্থকরা। কলকাতাতেই বাইক র‍্যালি বের করেন বিজেপির কর্মী সমর্থকরা। জোড়াবাগান, কাঁকুড়গাছিতে বাইক র‍্যালি আটকে দেয় পুলিশ। জোড়াবাগান থেকে মায়ের ঘাট যাওয়ার কথা ছিল বাইক র‍্যালির। বাগবাজারে বাইক র‍্যালি আটকায় পুলিশ। উল্টোডাঙায় বাইক র‍্যালিকে তাড়া করে পুলিশ।বিজেপি কর্মীরা যদিও বলছেন জাতীয় পতাকা নিয়েই তারা বাইক ৱ্যালি করেছে কিন্তু প্রতক্ষ দর্শীদের কথায় বিজেপির পতাকা ছাড়া অন্য কোনো পতাকা ছিলনা তাদের হাতে ।পুলিশকে কি এতো বোকা মনে হয় ?  কলকাতার পুলিশ সব সময় আইন মেনেই কাজ করে ।

No comments:

Post a Comment

loading...