Saturday, 2 March 2019

এফ-১৬ বিমান পাকিস্তানকে দেওয়া যে কতটা ভুল সিদ্ধান্ত ছিল সেটা হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছে আমেরিকা , চাইল জবাবদিহি

ওয়েব ডেস্ক ২রা মার্চ  ২০১৯:পাকিস্তানকে এক সময়ে বিশ্বাস করার খেসারত এবার সুদে আসলে দিতে হচ্ছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে । তারা যেই উদ্দেশ্যে এফ- ১৬ বিমান পাকিস্তানের হাতে তুলে দিয়েছিল , সেই উদ্দেশ্যে কোনোদিনও এফ-১৬ ব্যবহারই হয়নি বরঞ্চ ভারতের সামরিক ঘাঁটিকে ধ্বংস করার উদ্দেশ্যে সেটা ব্যবহার করেছে পাকিস্তান নিয়ম বহির্ভূত কাজ । প্রসঙ্গত ২৭ ফেব্রুয়ারি সকালে প্রায় ২০টি পাকিস্তানি যুদ্ধবিমান ভারতের আকাশসীমায় ঢুকে পড়েছিল। তার মধ্যে তিনটি এফ-১৬ ছিল।
ভারতীয় বায়ুসেনার তাড়া খেয়ে অবশ্য সঙ্গে সঙ্গে পালিয়ে যায় পাকিস্তানি বায়ুসেনা।সেই তাড়ায় ভারতের একটি মি-২১ থেকে মিসাইল ছোড়েন বায়ুসেনার উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমান। সেই হামলায় একটি এফ-১৬ ভেঙে পড়ে। বুড়ো মিগ কীভাবে একটি এফ-১৬ ভেঙে দিল, সেই প্রশ্নই উঠতে শুরু করেছে বারবার।আর এই পরিস্থিতি মার্কিন জবাবদিহি তলব স্বাভাবিকভাবেই আরও বিপাকে ফেলল পাকিস্তানকে। কিন্তু প্রশ্ন উঠছে, কেন ট্রাম্প প্রশাসনের তরফে জবাবদিহি চাওয়া হল?জানা গিয়েছে, শুধুমাত্র সন্ত্রাসবাদ নিমূর্লকরণেই এফ-১৬ ব্যবহার করা যাবে। কোনও দেশের উপর আক্রমণে, তা ব্যবহার করা যাবে না। বিক্রির সময় এই নিয়মগুলি ছিল। তা মেনেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকেই এই যুদ্ধবিমান কিনেছিল পাকিস্তান।কিন্তু কার্যক্ষেত্রে তার উল্টোই হয়েছে। সন্ত্রাসবাদ দমনে ব্যবহার না করে পাকিস্তান ভারতকে আক্রমণের জন্য এফ-১৬ ব্যবহার করে। সেটাইকেই অপব্যবহার হিসেবে দেখছে ট্রাম্প প্রশাসন।প্রসঙ্গত, গত ১৪ ফেব্রুয়ারি দক্ষিণ কাশ্মীরের পুলওয়ামায় সিআরপিএফ কনভয়ে জঙ্গিহামলা হয়। শহিদ হন ৪০ জন জওয়ান। আহত হন অনেকে। হামলার দায় স্বীকার করে নেয় পাক মদতপুষ্ট জঙ্গি সংগঠন জইশ-ই-মহম্মদ।তার পাল্টা হিসেবে ২৬ ফেব্রুয়ারি ভোররাতে আরও একবার সার্জিক্যাল স্ট্রাইক করে ভারত। পাক অধিকৃত কাশ্মীরে জইশের সবচেয়ে বড় জঙ্গিঘাঁটিতে আকাশপথে মিরাজ-২০০০ যুদ্ধবিমান দিয়ে হামলা চালায় ভারতীয় বায়ুসেনা।সেই হামলার পরদিনই ভারতের আকাশসীমায় ঢুকে পড়ে একাধিক পাক যুদ্ধবিমান। তার মধ্যে তিনটি এফ-১৬ও ছিল। পরে ভারতের তরফে জানানো হয়, এদেশের সৈন্যঘাঁটিই ছিল পাকিস্তানের আক্রমণের লক্ষ্য।চারিদিক থেকে জেরবার পাকিস্তান যে আরও বিপাকে পড়ল সেটা বলাই বাহুল্য । এখন মার্কিন প্রশাসনকে তারা কি উত্তর দেয় সেটাই দেখার ।

No comments:

Post a Comment

loading...