Sunday, 10 March 2019

গতবার পাঁচ দফার পর এবার সাত সাত দফার ভোট করিয়েও , কতটা ভালো ফল করতে পারবে বিজেপি ?

ওয়েব ডেস্ক ১০ই  মার্চ ২০১৯:  সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের নির্ঘণ্ট প্রকাশ হল। দিল্লির বিজ্ঞানভবনে পূর্ব ঘোষণা মতো রবিবার বিকাল পাঁচটায় নির্বাচনের দিনক্ষণ ঘোষণা করলেন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুনীল অরোরা। দেশ জুড়ে মোট সাত দফায় হবে ভোট। ১১ এপ্রিল থেকে শুরু ভোট, ঐদিনই  প্রথম দফার নির্বাচন। সর্বশেষ ভোট গ্রহণ হবে ১৯ মে। দেশের তিনটি রাজ্যে ভোট হবে সবচেয়ে বেশি দফায় অর্থাৎ সাত দফায়। এই তিনটি রাজ্য হল- পশ্চিমবঙ্গ, উত্তরপ্রদেশ এবং বিহার।দেখা যাচ্ছে যেখানে  বেশি লোকসভা আসন সেখানেই বিজেপি দলকে সুবিধে পাইয়ে দেওয়ার জন্য সাত দফার ভোট করা হচ্ছে ।
রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের একাংশ তেমনি বলছেন ।কস্মিনকালেও মনে পরেনা রাজ্যে সাত দফার ভোট কোনো কালে হয়েছে । গতবারে ভোট হয়েছিল ৫ দফায় ।সেখানেও নানা  প্রতিকূলতার মধ্যে মমতার বন্দ্যোপাধ্যায়ের দল ভালো ফল করেছিল ।তাহলে এবারকি সেই মিথ ভাঙতেই সুনীল অরোরা ৭ দফার ভোটের নিদান দিলেন পশ্চিমবঙ্গে ? বিহারে মত ৪০ টি লোকসভা আসন বিশিষ্ট রাজ্যেও  দেখা যাচ্ছে ৭ দফার নিদান শুনিয়েছেন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার ।আর ৮০টি আসন বিশিষ্ট উত্তরপ্রদেশে নিজেদের সাফল্য ধরে রাখতে তো সাত দফার ভোট হবেই ।তবে বাংলায় মমতার উন্নয়নের রথ থামাবার পরিকল্পনায় এরকম সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে কি না এই প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার জন্য কোনো পুরস্কার নেই ।গতবারের মতো যদি ৫ দফার ভোটও হত পশ্চিমবঙ্গে তাহলে কি খুব ক্ষতি হত বিজেপির ? এরকম নানা প্রশ্ন সোশ্যাল মিডিয়ায় ইতিমধ্যেই উঠতে শুরু করেছে ।সূচি অনুযায়ী  ১১ এপ্রিল ১ম দফায় রাজ্যে ভোট দুটি আসনে। ১৮ এপ্রিল দ্বিতীয় দফায় পশ্চিমবঙ্গে ভোট হবে  তিনটি আসনে।  ২৩ এপ্রিল তৃতীয় দফায় পশ্চিমবঙ্গের পাঁচটি আসনে ভোট হবে। ২৯ এপ্রিল চতুর্থ দফায় রাজ্যে  আটটি আসনে ভোট।  ৬ মে পঞ্চম দফায় পশ্চিমবঙ্গের সাতটি আসনে ভোট।  ১২ মে ষষ্ঠ দফায় আটটি আসনে।১৯ মে সপ্তম দফায় ন’‌টি আসনে ভোট হবে।এতো করেও কি বিজেপির ভাগ্যে শিকে ছিড়বে বলে মনে হয় ?        

No comments:

Post a Comment

loading...